হত্যাকাণ্ডের শিকার নোবেলের জানাজা অনুষ্ঠিত, কাঁধে তুলে নিলেন পরিবারের দায়িত্ব

নোবেল হত্যাকাণ্ডে জড়িত প্রত্যেককে কঠিন পরিণতি ভোগ করতে হবে-এমপি জাফর

প্রকাশ: ১৮ আগস্ট, ২০২১ ০৮:০১

পড়া যাবে: [rt_reading_time] মিনিটে


নিজস্ব প্রতিবেদক :

কক্সবাজার-১ আসনের সংসদ সদস্য ও চকরিয়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আলহাজ জাফর আলম এমএ বলেছেন, নাছির উদ্দিন নোবেল ছাত্র অবস্থা থেকে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুর আদর্শের একজন প্রকৃত সৈনিক। রাজপথের বিভিন্ন আন্দোলন-সংগ্রামে চট্টগ্রাম মহানগরীতে তার পদচারণা ছিল বেশ। তার মতো আদর্শবান সাবেক ছাত্রনেতা খুঁজে পাওয়া বিরল। কিন্তু ভাগ্যের নির্মম পরিহাস, আজ তাকে সন্ত্রাসীদের গুলিতে প্রাণ দিতে হলো। জায়গা-জমির বিরোধে এমন একজন সম্ভাবনাময়ী আওয়ামী লীগের কর্মীকে কেউ হত্যা করতে পারে না। শুধুমাত্র আগামী ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনেও সে প্রতিদ্বন্ধিতা করার জন্য দীর্ঘদিন ধরে মাঠে তৎপর থাকায় তাকে খুব সুক্ষ্ম কৌশলে পরিকল্পিতভাবে গুলি করে হত্যা করা হয়েছে।
এমপি জাফর আলম বলেন, আমি জাফর বেঁচে থাকতে কোন সন্ত্রাসীকে প্রশ্রয় দেওয়া হবে। নির্মম এই হত্যাকাণ্ডের সাথে জড়িতরা যত বড় নেতা বা প্রভাবশালীর আশ্রয়-প্রশ্রয়েই থাকুক না কেনো কাউকে বিন্দু পরিমাণ ছাড় দেওয়া হবে। নোবেল হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে সরাসরি জড়িত এবং আড়ালে থেকে অস্ত্র এবং ভাড়াটে সন্ত্রাসী লেলিয়ে দিয়ে যারা ইন্ধন দিয়েছেন তাদের প্রত্যেককে কঠিণ পরিণতি ভোগ করতে হবে।
গত মঙ্গলবার চকরিয়ার পূর্ব বড় ভেওলা ইউনিয়নে সন্ত্রাসীদের গুলিতে নিহত চট্টগ্রাম ওমর গণি এমইএস বিশ্ববিদ্যালয় কলেজ ছাত্র সংসদের সাবেক সমাজকল্যাণ সম্পাদক, চট্টগ্রাম মহানগর যুবলীগ নেতা ও পূর্ব বড় ভেওলা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সদস্য সম্ভাব্য চেয়ারম্যানপ্রার্থী নাছির উদ্দিন নোবেলের জানাজা পূর্ব আলোচনা সভায় দেওয়া বক্তব্যে এমপি জাফর আলম উপরোক্ত হুঁশিয়ারী দেন।
এমপি জাফর আলম আরো বলেন, এলাকায় বেশ জনপ্রিয় ও সম্ভাবনাময়ী নোবেলকে অনেক আগে থেকেই হত্যা করার মিশন নিয়ে মাঠে তৎপর ছিল দলের ভেতর অনুপ্রবেশকারী সন্ত্রাসীরা। তারা শোকের মাস আগষ্টকে বেঁছে নিয়েছে নির্মমভাবে হত্যা করার মিশন নিয়ে। শেষপর্যন্ত তাকে আর এগুতে দেওয়া হলো না। আমি কঠোর থেকে কঠোর ভাষায় বলে দিতে চাই, যারা নোবেলের হত্যাকারী এবং মদদদাতা কাউকে ছাড় দেওয়া হবে। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুকেও হত্যা করে খুনিরা মনে করেছিল কেউ বিচার করতে পারবে না। সেই বাংলাদেশ আর এখনকার বাংলাদেশ ভিন্ন। তাই নোবেলের খুনিদের প্রত্যেককে কঠির শাস্তির মুখোমুখি হতে হবে।
এমপি জাফর আলম নোবেলের সন্তানসহ পরিবার সদস্যদের দায়িত্ব নেওয়ার ঘোষণা দিয়ে বলেন, আজ থেকে নোবেলের পরিবারের সকল দায়-দায়িত্ব আমি নিজের কাঁধে তুলে নিলাম। পাশাপাশি নোবেল হত্যাকাণ্ডের উপযুক্ত বিচারের আশ্বাসও দিচ্ছি।
ময়নাতদন্ত শেষে বুধবার (১৮ আগষ্ট) দুপুরে নাছির উদ্দিন নোবেলের লাশ গ্রামের বাড়িতে পৌঁছায়। এর পর বিকেল পৌণে পাঁচটার দিকে পূর্ব বড় ভেওলাস্থ জয়নাল আবেদীন মহিউচ্ছুন্নাহ দাখিল মাদরাসা মাঠে জানাজা অনুষ্ঠিত হয়। জানাজায় শোকাহত দলীয় নেতাকর্মী থেকে শুরু করে সাধারণ মানুষের ঢল নামে। জানাজার মাঠে স্বজন-শুভাকাঙ্খিদের অঝোর কান্নায় এলাকার পরিবেশ ভারী হয়ে উঠে। এর পর সামাজিক কবরস্থানে দাফন করা হয় তাকে।
জানাজার মাঠে আরো বক্তব্য রাখেন জেলা আওয়ামী লীগ নেতা রেজাউল করিম, উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ফজলুল করিম সাঈদী, পৌরমেয়র আলমগীর চৌধুরী, পৌরসভা আওয়ামী লীগের সভাপতি জাহেদুল ইসলাম লিটু, সহ-সভাপতি ওয়ালিদ মিল্টন, চকরিয়া যুবলীগ সাধারণ সম্পাদক কাউছার উদ্দিন কছির, চট্টগ্রাম মহানগর ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি এম আর আজিম, সাবেক সাধারণ সম্পাদক নুরুল আজিম রনি, চসিক কাউন্সিলর আশরাফুল আলম ও মোবারক আলী। এছাড়াও জেলা, উপজেলা ও স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতৃবৃন্দ এবং স্বজনেরা।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •