আলমগীর মানিক, রাঙামাটি:
২০০৫ সালের ১৭ আগস্ট বিএনপি জামাতের যোগ সাজশে জঙ্গি সন্ত্রাসী গোষ্ঠী জেএমবি কতৃক দেশের ৬৩ টি জেলার ৫ শতাধিক স্থানে ঘৃণ্য ও নারকীয় সিরিজ বোমা হামলার প্রতিবাদে রাঙামাটিতে কালো পতাকা প্রদর্শন কর্মসূচি পালন করেছে জেলা ছাত্রলীগের নেতৃবৃন্দরা।
মঙ্গলবার সকালে বাংলাদেশ ছাত্রলীগ রাঙামাটি জেলা শাখার আয়োজনে শহরের পুরাতন বাস স্টেশনস্থ জেলা আওয়ামীলীগের দলীয় কার্যালয়ের সামনে ছাত্রলীগের কর্মীরা কালো পতাকা হাতে ঘন্টা ব্যাপী এই কর্মসূচি পালন করে।
কর্মসূচিতে জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি আব্দুল জব্বার সুজনের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক প্রকাশ চাকমার সঞ্চালনায় ছাত্রলীগের বিভিন্ন স্তরের নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।
এসময় সভাপতির বক্তব্যে আব্দুল জব্বার সুজন বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী দেশরত্ন শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দেশ আজ জঙ্গিবাদ মুক্ত হয়েছে। দেশের স্বাধীনতা ও সার্বভৌমত্বকে ধ্বংস করতেই বিএনপি-জামায়াত জোট সরকারের প্রত্যক্ষ মদদে এই হামলা চালানো হয়েছিল। ‘১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট যারা জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুকে স্বপরিবারে হত্যা করেছিল তাদের দোসর বিএনপি-জামায়াত বাংলাদেশের অগ্রযাত্রাকে বাধাগস্ত করতে বারবার মাথা চাড়া দিচ্ছে। তাদের প্রতিহত করতে দেশের সর্বস্তরের জনগণকে ঐক্যবদ্ধ থাকতে হবে। হামলাকারী পলাতক জঙ্গীদের ও এই হামলায় মদদ প্রদানকারীদের দ্রুত আইনের আওতায় এনে শাস্তির দাবি জানাচ্ছি।
সাধারণ সম্পাদক প্রকাশ চাকমা বলেন, ‘বিগত বিএনপি-জামায়াত জোট সরকারের আমলেই বাংলাদেশে জঙ্গিদের উত্থান ঘটে। তারাই জঙ্গিদের লালন-পালন করে আসছে। ২০০৫ সালে দেশের ৬৩ জেলা ৫০০ টি পয়েন্টে বোমা হামলা চালিয়েছিল নিষিদ্ধ জঙ্গী সংগঠন জেএমবি। ধিক্কার জানাই সেই জেএমবির মদদদাতা বিএনপি জোট সরকারের প্রতি।
তিনি আরো বলেন, বর্তমানে পার্বত্য চট্টগ্রামের আঞ্চলিক সংগঠনগুলোর তথা অবৈধ অস্ত্রধারীদের কর্মকান্ড জঙ্গিবাদের মতই। তাদের বিরুদ্ধে ও সকল নেতাকর্মীকে সজাগ থাকতে হবে। জঙ্গিবাদ কঠোর ভূমিকা পালন করছে আওয়ামী লীগ সরকার। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী দেশরতœ শেখ হাসিনার হাত ধরেই এগিয়ে যাবে বাংলাদেশ।
এসময় জেলা ছাত্রলীগের বিভিন্ন স্তরের নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •