প্রেস বিজ্ঞপ্তি:
কক্সবাজার জেলায় করোনা ভাইরাসের সংক্রমণের শুরুর দিন থেকেই হোপ ফাউন্ডেশন ফর ওমেন এন্ড চিল্ড্রেন অব বাংলাদেশ করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত রোগীদের চিকিৎসা সেবা প্রদানে নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে। হোপ ফাউন্ডেশন কর্তৃক পরিচালিত কক্সবাজারের বাহারছড়ার কবিতা চত্বরে অবস্থিত ৫০ শয্যাবিশিষ্ট ‘হোপ আইসোলেশন এন্ড ট্রিটমেন্ট সেন্টার’ কে গত বৃহস্পতিবার গণস্বাস্থ্য কেন্দ্র কোভিড চিকিৎসা সুরক্ষা সামগ্রী প্রদান করেছে। যার মাধ্যমে করোনার রোগীদের সেবা প্রদানকারী স্বাস্থ্য সুরক্ষা পাবে। উক্ত সুরক্ষাসামগ্রী গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রোজেক্ট কোঅর্ডিনেটর ডাঃ আব্দুর রাজ্জাক খান এর কাছ থেকে গত বৃহস্পতিবার সাদরে গ্রহণ করেন হোপ ফাউন্ডেশনের কান্ট্রি ডিরেক্টর কে এম জাহিদুজ্জামান। হোপ ফাউন্ডেশন কতৃপক্ষ ‘গণস্বাস্থ্য কেন্দ্র’কে মানবতার কাজে সামিল হওয়ায় আন্তরিক ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন। উক্ত চিকিৎসা সামগ্রী গ্রহণকালে হোপ ফাউন্ডেশনের কান্ট্রি ডাইরেক্টর বলেন,  দেশি-বিদেশি দাতা সংস্থাসমুহ এই করোনাকালিন সময়ে কক্সবাজারবাসীর পাশে থাকলে করোনা অতিমারী সহজেই মোকাবেলা করা যাবে আর এ ব্যাপারে সরকার দক্ষতার সাথে কাজ করে যাচ্ছে।

এখানে  উল্লেখ্য যে, হোপ আইসোলেশন এন্ড ট্রিটমেন্ট সেন্টারটি কক্সবাজার জেলার মাননীয় জেলা প্রশাসক জনাব মোঃ মামুনুর রশিদ এর সার্বিক দিক নির্দেশনা ও সহযোগিতায় পরিচালিত হচ্ছে।

কক্সবাজার জেলার কৃতি সন্তান এবং হোপ ফাউন্ডেশনের প্রতিষ্ঠাতা ডাক্তার ইফতেখার উদ্দিন মাহমুদ (মিনার) বলেন, ‘হোপ আইসোলেশন এন্ড ট্রিটমেন্ট সেন্টারটি জেলার জনস্বাস্থ্য এবং মানবিক সহায়তার জন্য গুরুত্বপূর্ণ একটি কেন্দ্র। দেশের যেকোন দুর্যোগ মোকাবিলায় হোপ ফাউন্ডেশন সরকারের সাথে নিরলসভাবে কাজ করতে প্রস্তুত। তিনি কক্সবাজারবাসীকে করোনা ভাইরাস মোকাবেলায় মাস্ক পরিধান, সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখা ও সাবান দিয়ে হাত ধোয়ার উপর বিশেষ গুরুত্ব আরোপ করেন পাশাপাশি যারা টিকার জন্য উপযুক্ত তাদেরকে সরকারি বিধি মোতাবেক অতিসত্বর করোনার টিকা গ্রহণেরও পরামর্শ দেন। উল্লেখ্য যে, হোপ ফাউন্ডেশন ১৯৯৯ সাল হতে কক্সবাজার জেলায় মা ও শিশু স্বাস্থ্যের উন্নয়নে কাজ করে যাচ্ছে।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •