মুহাম্মদ আবু সিদ্দিক ওসমানী :

কক্সবাজারের জেলা সদর হাসপাতাল, সদর উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তার কার্যালয়, জেলার ৭ টি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স সহ জেলার সকল টিকাদান কেন্দ্রে করোনার টিকা প্রথম ডোজ দেওয়া স্থগিত করা হয়েছে। করোনা ভ্যাকসিনের স্বপ্লতার কারণে গত ১১ আগস্ট থেকে ক্রমান্বয়ে টিকাদান কেন্দ্র গুলোতে চীনের তৈরি সিনোফার্ম এর টিকার প্রথম ডোজ টিকা দেওয়া একে একে বন্ধ হয়ে যায়।

বিশ্বস্ত সুত্র জানিয়েছে, কক্সবাজার স্বাস্থ্য বিভাগ থেকে টিকার চাহিদাপত্র অনেক আগেই সংশ্লিষ্ট উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের কাছে পৌঁছানো হয়েছে। সোমবার ১৬ আগস্ট সিনোফার্মের কিছু টিকা কক্সবাজারে পাঠানো হতে পারে। পর্যাপ্ত টিকা প্রাপ্তি সাপেক্ষে আগামী ১৮ আগস্ট থেকে কক্সবাজার জেলার কিছু কিছু টিকাদান কেন্দ্রে পূণরায় টিকার প্রথম ডোজ দেওয়া শুরু হতে পারে বলে একই সুত্র জানিয়েছে।

তবে ভারতের সেরাম ইনষ্ঠিটিউটের তৈরি এস্ট্রাজেনেকার কোভশিল্ড টিকা আগে যাঁরা প্রথম ডোজ টিকা নিয়েছিলেন-তাঁদের স্ব স্ব টিকাদান কেন্দ্রে প্রতিদিন সকাল ৯ টা থেকে বিকেল ৩ টা পর্যন্ত ক্রমান্বয়ে একই টিকার দ্বিতীয় ডোজ টিকা দেওয়া হবে বলে সংশ্লিষ্ট সুত্র জানিয়েছে।

সুত্র মতে, প্রথম ডোজ কোভিশিল্ড টিকা গ্রহনকারী নাগরিকদের মোবাইল ফোনে এসএমএস পাওয়া সাপেক্ষে দ্বিতীয় ডোজ টিকা নিতে পূর্ব ঘোষিত সময়সূচী অনুযায়ী টিকা কার্ড, এনআইডি সহ টিকা কেন্দ্রে আসার জন্য সংশ্লিষ্ট সকলের প্রতি অনুরোধ জানানো হয়েছে। দ্বিতীয় ডোজ টিকা গ্রহণকারীদের ভীড় নাকরে স্বাস্থ্য বিধি প্রতিপালন করে টিকা নিতে জেলা স্বাস্থ্য বিভাগ টিকা গ্রহনকারীদের সহযোগিতা কামনা করেছেন।

একইভাবে সিনোফার্মার প্রথম ডোজ টিকা গ্রহনকারীদের টিকাকার্ডে দ্বিতীয় ডোজ দেওয়ার তারিখ নির্ধারিত উল্লেখ থাকলেও দ্বিতীয় ডোজ গ্রহণ করতে এসএমএস না যাওয়া পর্যন্ত দ্বিতীয় ডোজ টিকা গ্রহনকারীদের টিকাকেন্দ্রে না যেতে অনুরোধ করা হয়েছে।

এদিকে, কক্সবাজারের নাগরিকগণ রেজিষ্ট্রেশন করেও টিকাদান বন্ধ থাকার কারণে টিকা গ্রহনে আগ্রহীরা টিকা নিতে পারায় বিচলিত হয়ে পড়েছেন। সংশ্লিষ্ট সুত্র মতে, কক্সবাজার জেলায় প্রায় এক লক্ষ রেজিষ্ট্রেশনকারী এখন টিকা গ্রহনের অপেক্ষায় রয়েছে। রেজিষ্ট্রেশনের এ সংখ্যা দিন দিন আরো বাড়ছে।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •