সিবিএন ডেস্ক:
আফগান সরকারকে তালেবানের সঙ্গে কাজ করার আহ্বান জানিয়েছে ইউরোপীয় ইউনিয়ন (ইইউ)। ইইউ-এর পররাষ্ট্রনীতি বিষয়ক প্রধান জোসেফ বোরেল এক বিবৃতিতে এ আহ্বান জানিয়েছেন। এক প্রতিবেদনে এ খবর দিয়েছে কাতারভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আল জাজিরা।

বিবৃতিতে বলা হয়, একটি অন্তর্ভুক্তিমূলক সমঝোতায় পৌঁছানোর জন্য আফগান সরকারের উচিত তালেবানের সঙ্গে যোগাযোগ করা।

জোসেফ বোরেল বলেন, রাজনৈতিক মতপার্থক্য নিষ্পত্তি, সব স্টেকহোল্ডারদের প্রতিনিধিত্ব বৃদ্ধি এবং একতার দৃষ্টিভঙ্গি থেকে আমরা আফগান সরকারকে তালেবানের সঙ্গে যোগাযোগে উৎসাহিত করি।

তিনি বলেন, আফগানিস্তানের জন্য ইউরোপীয় ইউনিয়নের অব্যাহত সহায়তার চাবিকাঠি হচ্ছে বিদ্যমান সংকটের একটি শান্তিপূর্ণ ও অন্তর্ভুক্তিমূলক সমাধান। এর পাশাপাশি নারী, সংখ্যালঘু নির্বিশেষে সব আফগানদের মৌলিক অধিকারের প্রতি সম্মান প্রদর্শন করতে হবে।

এদিকে কাবুলে নিযুক্ত মার্কিন দূতাবাস থেকে জনবল আরও কমিয়ে আনার সিদ্ধান্ত নিয়েছে ইইউ-এর মিত্র যুক্তরাষ্ট্র। এসব কর্মীদের যুক্তরাষ্ট্রে ফিরিয়ে নেওয়া হবে। আর তাদের দেশে ফেরা নির্বিঘ্ন করতে সহায়তার জন্য আফগানিস্তানে বাড়তি তিন হাজার সেনা পাঠাবে বাইডেন প্রশাসন।

মার্কিন পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র নেড প্রাইস সাংবাদিকদের জানিয়েছেন, কাবুলের দূতাবাসটি পুরোপুরি বন্ধ করে দেওয়া হবে না। কিছু জনবল কমানো হলেও দূতাবাস চালু থাকবে। তবে ক্রমবর্ধমান নিরাপত্তা পরিস্থিতি বিবেচনায় কাবুলে মার্কিন নাগরিকদের পদচারণা সীমিত করা হচ্ছে।

পেন্টাগনের মুখপাত্র জন কিরবি জানিয়েছেন, দূতাবাস কর্মীদের পাশাপাশি মার্কিন বিশেষ অভিবাসী ভিসা (এসআইভি) আবেদনকারীদের সরিয়ে নিতে সহায়তার জন্য যুক্তরাষ্ট্র আফগানিস্তানে তিন হাজার সেনা পাঠাবে। তবে এসব সেনারা দেশটিতে দীর্ঘদিন অবস্থান করবে না। কারণ এটি একটি অস্থায়ী মিশন। তবে দায়িত্ব পালন করতে গিয়ে মার্কিন বাহিনী আক্রান্ত হলে এর উপযুক্ত পাল্টা জবাব দেওয়া হবে।

ওদিকে আফগানিস্তানে তালেবানের অগ্রযাত্রা অব্যাহত রয়েছে। গত সাত দিনে দেশটির ১১টি প্রাদেশিক রাজধানীর নিয়ন্ত্রণ নিতে সমর্থ হয়েছে দলটি। প্রায় ২০ বছর পর যুক্তরাষ্ট্রের নেতৃত্বাধীন বিদেশি সেনা প্রত্যাহার শুরু হওয়ায় দ্রুতগতিতে অগ্রসর হচ্ছে গোষ্ঠীটি। প্রতিদিনই নতুন নতুন এলাকার নিয়ন্ত্রণ নিচ্ছে তারা। উদ্ভূত এমন পরিস্থিতিতে আফগান সরকারকে দলটির সঙ্গে কাজ করার পরামর্শ দিলেন ইইউ-এর পররাষ্ট্র নীতি বিষয়ক প্রধান।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •