সিবিএন ডেস্ক:
তালেবানকে ক্ষমতা ভাগাভাগির প্রস্তাব দিয়েছে আফগান সরকার। বৃহস্পতিবার আফগান সরকারের একটি সূত্র ধরে এমনই খবর প্রকাশ করেছে কাতার ভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আল জাজিরা। দেশটিতে চলমান সহিংসতা বন্ধ করার জন্যই আফগান সরকার এমন উদ্যোগ নিয়েছে।

ক্ষমতা ভাগাভাগির এই প্রস্তাব দেয়া হয়েছে কাতারের মাধ্যমে। আফগান সরকার ও তালেবানের মধ্যে শান্তি আলোচনায় মধ্যস্থতা করছে কাতার।

তালেবানের সঙ্গে আফগানিস্তান সরকারের ক্ষমতা ভাগাভাগির প্রস্তাব যখন সামনে এসেছে ঠিক সেদিনই তালেবান কর্তৃক আরেকটি প্রাদেশিক রাজধানী দখল করার খবর প্রকাশিত হয়েছে আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যমগুলোতে। সর্বশেষ গজনি প্রদেশের রাজধানী দখল করে নিয়েছে তালেবান।

আফগানিস্তানের রাজধানী কাবুল থেকে গজনি শহরের দূরত্ব প্রায় ১৩০ কিলোমিটার। গজনি শহর দখলের মধ্য দিয়ে মোট ১০টি প্রাদেশিক রাজধানী দখল করল তালেবান। আফগানিস্তানে মোট প্রদেশের সংখ্যা ৩৪টি।

কৌশলগত দিক থেকে গজনি শহর খুবই গুরুত্বপূর্ণ। এই শহর দখলের পর মনে করা হচ্ছে, খুব দ্রুত সময়ের মধ্যে কাবুল দখল করে নিতে পারে তালেবান। আর কাবুল দখল হয়ে গেলে তা আফগান সরকারের জন্য মারাত্মক হুমকি হবে।

আগামী ৩১ আগস্টের মধ্যে আফগানিস্তান থেকে সব সৈন্য প্রত্যাহার করে নেয়ার কথা যুক্তরাষ্ট্রের। যুক্তরাষ্ট্রের সৈন্য প্রত্যাহারের শেষ সময়ের আগ মুহূর্তে তালেবানের তৎপরতা বেড়েছে। তারা প্রতিদিনই নতুন নতুন অঞ্চল দখল করে নিচ্ছে।

বুধবার কান্দাহারে তালেবান ও আফগানিস্তানের সেনাবাহিনীর মধ্যে ব্যাপক লড়াই হয়েছে। তালেবান দাবি করছে যে, তারা কান্দাহারের জেলখানা দখল করে নিয়েছে। কিন্তু বিষয়টি সম্পর্কে পুরোপুরি নিশ্চিত হওয়া যায়নি।

আফগানিস্তানের দক্ষিণাঞ্চলের হেলমন্দ প্রদেশের রাজধানী লস্কর গাহতে পুলিশের হেডকোয়ার্টার দখল করে নিয়েছে তালেবান।

জাতিসংঘের এক হিসেবে বলা হচ্ছে, গত মাসে আফগানিস্তানে ১ হাজার বেসামরিক মানুষকে হত্যা করা হয়েছে। চলতি সপ্তাহে উত্তরাঞ্চলের শহরগুলো থেকে নিরাপদ আশ্রয়ের জন্য হাজার হাজার মানুষ কাবুল শহরে প্রবেশ করেছে।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •