বাংলা ট্রিবিউন:
স্বাস্থ্য অধিদফতরের ঘোষণা অনুযায়ী বৃহস্পতিবার (১২ আগস্ট) থেকে মডার্নার দ্বিতীয় ডোজ শুরু হওয়ার কথা থাকলেও অনেক কেন্দ্রেই তা না পেয়ে ফেরত গেছে সাধারণ মানুষ। এ দিন বন্ধ হয়ে যাওয়ার কথা ছিল মডার্নার প্রথম ডোজ। কিন্তু সারাদেশের অনেক কেন্দ্রেই এ টিকা মজুত না থাকায় তৈরি হয়েছে সংকট। এ নিয়ে স্বাস্থ্য অধিদফতর বলছে, এটি একটি ভুল বোঝাবুঝি ছিল। এটি অ্যাডজাস্ট করে তাড়াতাড়ি ঠিক করে ফেলা হবে।

বৃহস্পতিবার চট্টগ্রাম মহানগরীতে অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকার দ্বিতীয় ডোজ ছাড়া অন্য টিকা দান বন্ধ রয়েছে। শুধু সিটি করপোরেশনের টিকাদানকেন্দ্রগুলো নয়, সিভিল সার্জন কার্যালয় পরিচালিত জেনারেল হাসপাতালেও মডার্নার টিকা প্রয়োগ বন্ধ রয়েছে।

চট্টগ্রামের সিভিল সার্জন শেখ ফজলে রাব্বি বলেন, ‘ভ্যাকসিনের পর্যাপ্ত সরবরাহ না থাকায় চট্টগ্রাম জেনারেল হাসপাতালে বৃহস্পতিবার থেকে মডার্না ও সিনোফার্মের প্রথম ও দ্বিতীয় ডোজ দেওয়া অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ রাখা হয়েছে। ভ্যাকসিন এলে শিগগিরই দ্বিতীয় ডোজ চালু করা হবে। অ্যাস্ট্রাজেনেকার টিকা যথারীতি চলবে। বিকাল ৩টা থেকে ৫টা পর্যন্ত এসএমএস পাওয়া সাপেক্ষে সবাই টিকা নিতে পারবেন। যারা এসএমএস পাননি অথবা ডিলিট হয়ে গেছে তারা আগামী ২১, ২২ ও ২৩ আগস্ট অ্যাস্ট্রাজেনেকার টিকা নিতে পারবেন।’ তবে উপজেলা পর্যায়ে সিনোফার্মের টিকা দান কার্যক্রম অব্যাহত থাকবে বলে জানান তিনি।

এদিকে ঢাকার অনেক কেন্দ্রেও মডার্নার দ্বিতীয় ডোজ দেওয়া হয়নি। টিকার সংকট থাকার কথা বলে অনেক কেন্দ্রে নোটিশ টাঙিয়ে দেওয়া হয়েছে।

জাতীয় নাক-কান-গলা ইনস্টিটিউটে বুধবার (১১ আগস্ট) ছিল নাজিমুল ইসলামের দ্বিতীয় ডোজ নেওয়ার দিন। সেখানে ২ ঘণ্টা অপেক্ষা করার পর তাকে জানানো হয় বৃহস্পতিবার দেওয়া হবে মডার্নার দ্বিতীয় ডোজ। কিন্তু বৃহস্পতিবার গিয়েও তিনি পাননি। তাকে টিকা কেন্দ্র থেকে বলা হয়েছে ১৪-১৫ আগস্ট খোঁজ নিতে। তার প্রশ্ন তাহলে স্বাস্থ্য অধিদফতর কেন বললো, ১২ আগস্ট থেকে দ্বিতীয় ডোজ দেওয়া হবে?

একটি বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে কর্মরত তামিম জানান, আজকে ৩ ঘণ্টা অপেক্ষার পর কর্তৃপক্ষ আমাকে জানায়, ১৬ আগস্ট থেকে দ্বিতীয় ডোজ দেওয়া শুরু হবে। তিনি বলেন, ‘আমি জানি না কার কাছে এটা জিজ্ঞেস করবো যে, আজকে না দিলে আমাকে এসএমএস পাঠালো কেন। এভাবে হয়রানির কোনও মানে হয় না।’

সুজন নামে একজন টিকাগ্রহীতা বলেন, ‘আজ মর্ডানার দ্বিতীয় ডোজ নিতে গিয়ে ফেরত আসলাম। প্রথম ডোজ নিয়েছি। সকালে কার্ড জমা দিয়ে সিরিয়ালে ছিলাম। সাড়ে ৯টার দিকে বললো টিকা দেবে না। ১৪ তারিখের পর জানাবে কবে দেবে। আসলেই কি আমরা টিকা দিতে পারবো? এমন হয়রানি কেন? গতকাল মেসেজ দিয়েছে, আজকে দেওয়া হবে। কিন্তু কেন দেওয়া হলো না?’

আজিমপুর মা ও শিশু হাসপাতালের সামনে নোটিশ টাঙিয়ে দেওয়া হয়েছে। সেখানে বলা হয়েছে, সবার অবগতির জন্য জানানো যাচ্ছে যে, অত্র প্রতিষ্ঠানে কোভিড-১৯ ভ্যাকসিন সরবরাহ না থাকায় আপাতত ভ্যাকসিন প্রদান কার্যক্রম বন্ধ থাকবে। যেসব গ্রহীতার টিকাদান কার্ডে অথবা মোবাইল এসএমএসে ভ্যাকসিন গ্রহণের তারিখ দেওয়া আছে, তাদের পরবর্তীতে ভ্যাকসিন সরবরাহ পাওয়া গেলে দেওয়া হবে।

বুধবার বুলেটিনে অধিদফতরের মুখপাত্র অধ্যাপক ডা. নাজমুল ইসলাম বলেছিলেন, দেশে যারা ফাইজার ও মডার্নার টিকার প্রথম ডোজ নিয়েছেন, তাদের দ্বিতীয় ডোজ নিশ্চিত করেই টিকা কর্মসূচি চালানো হচ্ছে। তিনি আরও বলেন, যারা ভ্যাকসিনের প্রথম ডোজ নিয়েছেন, তারা চার সপ্তাহ পরে দ্বিতীয় ডোজ নিতে পারবেন।।

গত ১০ আগস্ট স্বাস্থ্য অধিদফতর জানায়, ১২ আগস্ট থেকে মডার্নার দ্বিতীয় ডোজ শুরু হবে এবং এ দিন থেকে প্রথম ডোজ বন্ধ হয়ে যাবে। সম্প্রসারিত টিকাদান কর্মসূচির নির্দেশনায় বলা হয়, ১২ আগস্টের পর সারাদেশে মডার্নার ভ্যাকসিনের প্রথম ডোজ প্রদান বন্ধ এবং দ্বিতীয় ডোজ শুরু করতে হবে। তবে যেসব স্থানে উক্ত ভ্যাকসিনের প্রথম ডোজ উদ্বৃত্ত রয়েছে সেসব স্থানে দ্রুত প্রথম ডোজ প্রদানের কাজ সম্পন্ন করে দ্বিতীয় ডোজ শুরু করতে হবে। চাহিদা মোতাবেক সারাদেশে দ্বিতীয় ডোজ ভ্যাকসিন পাঠানো হবে।

এতে আরও বলা হয়, ১৪ আগস্ট থেকে সারাদেশে আবশ্যিকভাবে সিনোফার্মের ভ্যাকসিনের দ্বিতীয় ডোজ দেওয়া শুরু করতে হবে।

ভ্যাকসিন নিয়ে উদ্ভূত পরিস্থিতি বিষয়ে জানতে চাইলে স্বাস্থ্য অধিদফতরের মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. এ বি এম খুরশীদ আলম জানান, আজকে যেটা হয়েছে এটা মিস কমিউনিকেশন। এটা অ্যাডজাস্ট করা হবে। খুব শিগগিরই তা ঠিক হয়ে যাবে।

তবে স্বাস্থ্য অধিদফতরের একজন কর্মকর্তা জানিয়েছেন, মডার্নার দ্বিতীয় ডোজ সোমবার (১৬ আগস্ট) থেকে চালু হবে।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •