মোঃ জয়নাল আবেদীন টুক্কু:
বান্দরবানের নাইক্ষ্যংছড়ি ১১ বার্ডার গার্ড ব্যাটালিয়ন (বিজিবি) ধারাবাহিক অভিযানে বুধবার (১১ আগস্ট) গভীর রাতে নাইক্ষ্যংছড়ি বিজিবির জোন কমান্ডার লেঃ কর্ণেল শাহ আবদুল আজিজ আহমেদ এর দিক নির্দেশনায়
ক্যাপ্টেন ওমর মোহম্মদ খালেদীন হৃদয় এর নেতৃত্বে বিশেষ টহল দল রামুর কচ্ছপিয়া ইউনিয়নের বেঙ্গডেফা ডাক্তারকাঁটা নামক স্থান থেকে ৪০ হাজার পিস ইয়াবাসহ দুই মাদক কারবারি কে ধৃত করা হয়েছে। ধৃত আসামী হলো মোঃ সামছুদ্দিন (৩৬), পিতা-মোঃ নুরুল ইসলাম, গ্রাম উলুচামরী, মোহাম্মদ আলী (২৭), পিতা মোঃ ইউনুস, গ্রাম মগপাড়া, উভয়ের ঠিকানা কক্সবাজারের টেকনাফ উপজেলার হ্নীলা বাজার। বিজিবির প্রেসবিজ্ঞপ্তিতে জানা যায় এসময় আরো ২ রোহিঙ্গা পলিয়ে যায়। তাদের একজনের নাম মোঃ ফারুক হোসেন অপরজন হাজী জাহিদ।,তারা কৌশলে দৌঁড়ে পালিয়ে যায়। ধৃত আসামীদের স্বীকারোক্তি মতে বিজিবির টহল দল বেঙ্গডেফা ডাক্তারকাঁটাস্থ নুরুল ইসলামের আকাশমনি বাগানে পৌঁছালে ওই পলাতক আসামীদ্বয়ের হাতে থাকা কালো পলিথিনের ব্যাগ ফেলে দৌঁড়ে জঙ্গলের দিকে পালিয়ে যায়। এরপর স্থানীয় লোকজনের উপস্থিতিতে বিজিবি টহল দলটি কালো পলিথিনের ভিতর হতে ৪টি পলিপাইজার প্যাকেট প্রতি প্যাকেটে ১০,০০০ পিস করে সর্বমোট ৪০,০০০ (চল্লিশ হাজার) পিস ইয়াবা ট্যাবলেটসহ ধৃত ১নং আসামীর নিকট হতে একটি ভিভো মডেল-বি-৯১ ও একটি রবি সীম উদ্ধার করেন। উদ্ধারকৃত ইয়াবা ট্যাবলেটের অনুমানিক মূল্য এক কোটি বিশ লক্ষ দশ হাজার টাকা।
১১ বিজিবির অধিনায়ক জোন কমান্ডার লেঃ কর্ণেল শাহ আবদুল আজিজ আহমেদ জানান,
সীমান্ত এলাকা দিয়ে অবৈধ অস্ত্র, অবৈধ কাঠ পাচার ও পরিবহন, মাদকদ্রব্য পাচার, অন্যান্য যে কোন ধরনের অবৈধ পণ্য সামগ্রী পাচার এবং এই এলাকায় যে কোন ধরনের সন্ত্রাসী কার্যক্রম রোধে বিজিবি’র এ ধরনের কার্যক্রম ও তৎপরতা অব্যাহত থাকবে।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •