প্রেস বিজ্ঞপ্তি:
জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৬ তম শাহাদত বার্ষিকী উপলক্ষে কক্সবাজারে অনলাইনে চিত্রাঙ্কন, রচনা ও আবৃত্তি প্রতিযোগীতার উদ্বোধন হয়েছে।

কক্সবাজার পৌর আওয়ামী লীগের উদ্যোগে মঙ্গলবার (১০ আগস্ট) বিকেল ৫ টায় উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে ভার্চুয়াল আলোচনা সভা পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি মোহাম্মদ নজিবুল ইসলামের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত হয়।

সভা সঞ্চালনা করেন কক্সবাজার পৌর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক উজ্জ্বল কর।

সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক এডভোকেট সিরাজুল মোস্তফা। এসময় তিনি বলেন, ইতিহাসের এই ধরনের হত্যাকাণ্ড বিশ্ববাসীর দেখে নাই, এই ধরনের নরকীয় হত্যাকাণ্ড যেটা বাংলাদেশের জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান সহ তার পরিবারবর্গের উপর হয়েছে। এই হত্যাকাণ্ড থেকে শিশু থেকে নারী পুরুষ থেকে কাজের মেয়ে শুধু রেহাই পায়নি। পুরো দুনিয়াবাসী কাছে আমরা লজ্জিত ও কলঙ্কিত। যে মানুষটি সারা জীবন যৌবন উৎসর্গ করে বাঙালি স্বাধিকারের জন্য আন্দোলন করেছে। গরীব দু্খী মেহনতী মানুষের জন্য কথা বলেছে। দাসত্ব শৃঙ্খল থেকে একটি ভূখণ্ড একটি জাতিকে মুক্ত করার জন্য নিজের জীবন উৎসর্গ করেছে। ঘাতকরা সেই জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু সহ তার পরিবারের সকল সদস্যকে হত্যা করেছেন। পাকিস্তানের পরাজিত শক্তি যারা বাংলাদেশকে মেনে নিতে পারে নাই তারাই এই কাজটি করেছে । তারা এখনো দেশের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করা যাচ্ছে।নতাই কক্সবাজার পৌর আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদের এদের বিরুদ্ধে সজাগ থাকার অনুরোধ জানাচ্ছি।

কক্সবাজার পৌর আওয়ামী লীগ যে উদ্যোগটি ছাত্র-ছাত্রীদের জন্য শিশু-কিশোরদের জন্য নিয়েছে সেটা সুন্দর একটি উদ্যোগ। নতুন প্রজন্ম সঠিক ইতিহাস জানার জন্য এ ধরনের অনুষ্ঠান প্রয়োজন আছে বলে আমি মনে করি। অনলাইন প্রতিযোগিতা আয়োজন করার জন্য কক্সবাজার পৌর আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদের ধন্যবাদ জানাচ্ছি।

অনুষ্ঠানের উদ্বোধক ছিলেন জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও পৌর মেয়র মুজিবুর রহমান।

তিনি বলেন, আগস্ট মাস বাঙালি জাতির বেদনার মাস ১৫ই আগস্ট জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু সহ তার পরিবারের সকল সদস্যকে ঘাতকরা হত্যা করেছে। যারা এই কালো অধ্যায় রচনা করেছেন । তাদের বিচারের মাধ্যমে ফাঁসির রায় কার্যকর করে বাঙালি জাতিকে কলঙ্ক মুক্ত করেছে । এতদিন বাঙালি জাতি কলঙ্কিত জাতি হিসেবে প্রতিষ্ঠিত পেয়েছিল জননেত্রী শেখ হাসিনার হাত ধরে বাঙালি জাতি আজ কলঙ্ক মুক্ত হয়েছে ।
আগামী প্রজন্ম বঙ্গবন্ধুর স্বপ্ন বাস্তবায়নে শেখ হাসিনার পেছনে রাজনীতি করার বদ্ধপরিকর। এ দেশের সকল মানুষ জাতির জনক কন্যার হাত ধরে যেভাবে শান্তিশৃঙ্খলা ফিরিয়ে আনতে সমর্থ হয়েছেন। বঙ্গবন্ধু সারা জীবন সাত কোটি বাঙ্গালীকে ঐক্যবদ্ধ করার জন্য দিনরাত কাজ করে গেছেন। আমরা তার কর্মী আমরা তার অনুসারী। জননেত্রী শেখ হাসিনার হাত ধরে এগিয়ে যাচ্ছে এগিয়ে যাবে।

কক্সবাজার পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি মোহাম্মদ নজিবুল ইসলাম বলেন, একটি নতুন প্রজন্মের কাছে এই বাঙালির মহানায়ক কে পরিচয় করার লক্ষ্যে কক্সবাজার পৌর আওয়ামী লীগের ক্ষুদ্র প্রয়াস । এই আগস্ট মাসে একটি ছোট্ট শিশু যখন জাতীয় পতাকা, বঙ্গবন্ধু, স্মৃতিসৌধ আঁকবে, প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করবে তখন আমাদের সার্থকতা। আমরা মনে করব, বাঙালি জাতি হিসেবে কৃতজ্ঞতাবোধ আমাদের আছে। যখন আমরা নতুন প্রজন্মকে জাতির পিতা এবং বাংলাদেশের দেশপ্রেম হিসেবে নতুন প্রজন্মকে গড়ে তুলতে পারব। তাহলে ৩০ লক্ষ শহীদ এবং ১৫ আগস্টের সকল শহীদের আত্মার শান্তি পাবে। আমাদের এই বয়সে আপনাদের সকলের সহযোগিতা কামনা করছি ।

এছাড়া বক্তব্য রাখেন পৌর আওয়ামী লীগের সদস্য ও প্রতিযোগীতা আয়োজন কমিটি আহবায়ক সত্যপ্রিয় চৌধুরী দোলন।

সংযুক্ত ছিলেন সহ-সভাপতি আসিফ উল মওলা,সাইফুল ইসলাম চৌধুরী, নাজমুল হোসেন নাজিম,সেলিম নেওয়াজ, আতিক উল্লাহ কোং, যুগ্ন সাধারন সম্পাদক রফিক মাহমুদ, সাংগঠনিক সম্পাদক হাসান মেহেদী রহমান, মিজানুর রহমান, শাহ নেওয়াজ চৌধুরী, এ.বি সিদ্দিকী খোকন, শাহেদ আলী, ১ নং ওয়ার্ড সাধারন সম্পাদক ইয়াহিয়া খান,র৩ নং ওয়ার্ড পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি জানে আলম পুতু, সাধারণ সম্পাদক ওয়াহিদ মুরাদ সুমন, ২ নং ওয়ার্ডের সভাপতি আব্দুল্লাহ আল মাসুদ আজাদ, আজিমুল হক আজিম, ৪ নং ওয়ার্ড সভাপতি আরমানুল আজিম, সাধারণ সম্পাদক আবু আহাম্মেদ, ৫ নং ওয়ার্ড সাধারন সম্পাদক তাজ উদ্দিন, ৭ নং ওয়ার্ড সভাপতি জাফর আলম, সাধারণ সম্পাদক সেলিম ওয়াজেদ, ৮ নং ওয়ার্ড সভাপতি দুলাল দাশ, সাধারণ সম্পাদক খোরশেদ আলম রুবেল, ৯ নং ওয়ার্ড সভাপতি জহিরুল কাদের ভুট্টো, সাধারণ সম্পাদক মেজবা উদ্দিন কবির, ১০ নং ওয়ার্ড সভাপতি নুর মোহাম্মদ, সাধারণ সম্পাদক দিপক দাশ, ১১ নং ওয়ার্ড সভাপতি নজরুল ইসলাম, ১২ নং ওয়ার্ডের মোরশেদ চৌধুরী, আওয়ামী লীগ নেতা ফয়সাল হুদা, সোহেল রানা, আমির উদ্দিন, সাগর পাল, আবুল কালাম প্রমুখ।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •