সংবাদ বিজ্ঞপ্তি:
বিশ্বের অন্যান্য দেশের মতোই বাংলাদেশের ট্রান্সজেন্ডার, হিজড়া ও লৈঙ্গিক বৈচিত্র্যময় জনগোষ্ঠীর লকডাউনে তাদের নিত্য আয়ের উৎস বন্ধ হয়ে যায়। ফলে, আর্থিক ও মানসিকভাবে বিপদগ্রস্থ হয়ে যায় অবহেলিত ও বঞ্চিত এই জনগোষ্ঠী।সম্প্রদায়ের জীবন-সংস্কৃতিভিত্তি অঙ্গভঙ্গিসহ নানা কৌশলে মানুষের কাছ থেকে তারা প্রতিদিনের রোজগার করতেন। বর্তমান লকডাউনে তারা ঘরবন্দি। এ অবস্থায় পড়েছেন খাদ্য সংকটে। কারণ ইতোমধ্যে সাধারণ দরিদ্র, অসহায় ও মধ্যবিত্তদের মাঝে বিভিন্ন ধর্মীয়, সামাজিক, রাজনৈতিক ও সরকারি সহায়তা এসেছে।কিন্তু হিজড়াদের মাঝে এ পর্যন্ত কোনো সহযোগিতা আসেনি।
এমনিতেই হিজড়ারা কর্মহীন, তার ওপর লকডাউন ঘোষণায় তারা যেন কারাগারে বন্দি। তাই দিনমজুর, রিকশাচালকসহ বিভিন্ন পেশায় যুক্তদের চেয়ে হিজড়াদের কষ্ট অনেক বেশি হচ্ছে।
এই উপলব্ধি থেকে লায়ন্স ক্লাব অব কক্সবাজার এর উদ্যোগে কক্সবাজার ও রামুর উপজেলার হিজড়া সম্প্রদায়ের মধ্যে ১০ দিনের নিত্য প্রয়োজনীয় (চাল, ডাল, তৈল, আলু, পিয়াজ, সাবান, লবন, বিস্কুট) ত্রাণ বিতরণ করা হয়। এই প্রোগ্রাম উদ্বোধন করেন ডিস্ট্রিক্ট (৩১৫এ১)এর গভর্নর আর্কিটেক্ট নিখিল চন্দ্র গুহ এর অনুমতিক্রমে ফার্ষ্ট ভাইস গভর্ণর ইঞ্জিনিয়ার মোস্তফা কামাল এম.জে.এফ।
অনলাইন প্রোগ্রাম এ সভাপতিত্ব করেন কক্সবাজার এর ফার্স্ট ভাইস প্রেসিডেন্ট ইঞ্জিনিয়ার সাহেদ সালাহ উদ্দিন, সঞ্চালনা করেন ডিস্ট্রিক্ট কো-চেয়ারপারসন ও ক্লাবের চার্টার সেক্রেটারি রোকন উদ্দিন মোহাম্মদ আল মামুন। এই সময় অনলাইন প্রোগ্রাম এ যুক্ত ছিলেন ডিস্ট্রিক্ট ৩১৫এ১ এর সেকেন্ড ভাইস গভর্ণর দেওয়ান মোহাম্মদ সালাহ উদ্দিন কেবিনেট সেক্রেটারি ডাঃ জাফর বাদশা, সাবেক কেবিনেট সেক্রেটারি তারেক মাসুম, উইমেন্স চেয়ারপারসন ডাঃ দিলকুসা আহমেদ।
অনলাইন প্রোগ্রামে বক্তব্য রাখেন কক্সবাজার জেলা আওয়ামীলীগের কোষাধ্যক্ষ কমিশনার আবদুল খালেক, ক্লাবের উপদেষ্টা এড. একরামুল হুদা পি.পি,ও মোহাম্মদ ইসমাইল সি.আই.পি, ক্লাবের বিওডি লায়ন মিজানুল করিম, ইফতিখার আহমদ চৌধুরী, শামসুদ্দিন ফারুকী, ছৈয়দনুর জাহাঙ্গীর।
হিজড়াদের পক্ষ থেকে বক্তব্য হিজড়া সম্প্রদায়ের নেতা মাহি হিজড়া।
ত্রাণ বিতরণে সার্বিক দায়িত্ব পালন করেন, চার্টার মেম্বার যথাক্রমে অধ্যক্ষ দিদার উল্লাহ, শরীফ মোস্তফা সানি, জসিম উদ্দিন, ওবাইদুল হান্নান, কফিল মাহমুদ, শফিকুল ইসলাম, শাহীন কোং, পিয়ার মোহাম্মদ বাবুল, জয়নাল আবেদিন, নজরুল ইসলাম প্রমুখ। এছাড়া স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ ও লায়নবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •