নিজস্ব প্রতিবেদক:
মাদ্রাসা ছাত্রী অপহরণ মামলার প্রধান আসামীকে আটক করা হয়েছে। গত শনিবার (০৭ আগষ্ট) কলাতলী চন্দ্রিমা ঘোনা এলাকা থেকে সদর মডেল থানা ও উখিয়া থানা পুলিশ যৌথ অভিযান চালিয়ে তাকে আটক করে। আটকের নাম সালাহ উদ্দিন। সে  উখিয়া নিদানিয়ার মেহের আলীর পুত্র।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা ইনানী পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ মো. ওলিউর রহমান আটকের সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, সালাহ উদ্দিনকে আটক করে সংশ্লিষ্ট মামলায় জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে।

মামলার বাদি উখিয়ার নিদানিয়ার নুরুল ইসলাম ভুলু জানান, আমার নাবালিকা মেয়ে কক্সবাজার আদর্শ মহিলা কামিল মাদ্রাসার ছাত্রী। কিছুদিন আগে মামলার প্রধান আসামী সালাহ উদ্দিন জাসেদ আমার মেয়েকে বিয়ে করার প্রস্তাব দেয়। আমার মেয়ে নাবালিকা ও জাসেদের স্বভাব—চরিত্র ভাল না হওয়ায় তার বিয়ের প্রস্তাব আমি এবং পরিবার প্রত্যাখান করি। কিন্তু এতে ক্ষিপ্ত হয়ে সে গত ৫ জুলাই রাত ৮টার দিকে সালাহ উদ্দিন জাসেদের নেতৃত্বে মো. রফিক, মো. কায়সার, জাহাঙ্গীর আলমসহ অজ্ঞাত আরও কয়েকজন আমার বাড়িতে হামলা চালায়। এসময় তারা আমার ছেলে আবছারকে বেধম মারধর করে আমার মেয়েকে জোরপূর্বক একটি সিএনজি নিয়ে অপহরণ করে নিয়ে যায়। বিষয়টি আমি জানতে পেরে আমার মেয়েকে অনেক খোঁজাখুজি করেও না পেয়ে আইনের আশ্রয় নিতে বাধ্য হই। এখনো আমার মেয়ে উদ্ধার হয়নি। এ নিয়ে আমিসহ পুরো পরিবার চরম দুশ্চিন্তায় রয়েছি।

স্থানীয়রা জানান, সালাহ উদ্দিন  জমি দখল, চাঁদাবাজি, অপহরণ ও গাড়ি চুরিসহ নানা অপকর্মের সাথে জড়িত। তার রয়েছে সক্রিয় একাধিক অপরাধীর সিন্ডিকেট। তাদের কাছে জিম্মি পুরো এলাকার সাধারণ মানুষ। তার অপরাধের বিরুদ্ধে পুলিশ কোন আইনী পদক্ষেপ গ্রহণ করলে উল্টো পুলিশের বিরুদ্ধে সে নানা মিথ্যা অভিযোগ ও অপপ্রচার চালায়। তার বিরুদ্ধে চাঁদাবাজি, হত্যা চেষ্টা, অপহরণ ও সিএনজি চুরিসহ একাধিক ফৌজধারী মামলা রয়েছে। যার মামলা নং হলো জিআর—৮৭/২১, জিআর ৪৩৫/২১, জিআর ১৪৩/২১ ও জিআর ৫১৫/২১।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •