সংবাদ বিজ্ঞপ্তি:

যথাযোগ্য মর্যাদায় সরকারী বিধিনিষেধ মেনে আগামী ৩০ আগস্ট ভগবান শ্রীকৃষ্ণের জন্মতিথী জেলাব্যাপী পালিত হবে। এ উপলক্ষ্যে বাংলাদেশ জন্মাষ্টমী উদযাপন পরিষদ কক্সবাজার জেলা শাখার সভাপতি স্বপন পাল (নাজির) এর সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক বিশ্বজিৎ পাল বিশুর পরিচালনায় এক প্রস্তুতি সভা অনুষ্ঠিত হয়।

শুক্রবার (০৬ আগষ্ট) সকালে ঘোনারপাড়াস্থ শ্রী শ্রী কৃষ্ণানন্দধাম নাট মন্দির প্রাঙ্গনে অনুষ্ঠিত সভার শুরুতে পবিত্র গীতা পাঠ করেন শ্রী সজল ধর। এসময় ১৫ই আগস্ট জাতীর জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও তার পরিবারবর্গ এবং বর্তমান দেশে বিদেশে নিহত ব্যক্তিবর্গের প্রতি গভির শোক ও শ্রদ্ধা জানিয়ে এক মিনিট দাঁড়িয়ে নিরবতা পালন করা হয়।

সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন জেলা পুজা উদযাপন পরিষদের সভাপতি এড. রনজিত দাশ। বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন জেলা পুজা কমিটির সহ—সভাপতি রতন দাশ, উদয় শংকর পাল মিঠু, বিপুল সেন, সাধারণ সম্পাদক বাবুল শর্মা, যুগ্ন সম্পাদক দিপক শর্মা দিপু, মহিলা বিষয়ক সম্পাদিকা দিপ্তী শর্মা, শহর পুজা কমিটির সভাপতি বেন্টু দাশ, সহঃ সভাপতি শাওন চক্রবতী জনি, ঘোনার পাড়া দুর্গা পুজা কমিটির সভাপতি সুমন কান্তি দে, সাবেক সভাপতি রুবেল শর্মা, বাপ্পী শর্মা প্রমুখ।

সভায় প্রধান অতিথি বলেন, বর্তমান বৈশ্বিক করোনা পরিস্থিতিকে সামনে রেখে সনাতনী সম্প্রদায়ের সর্ববৃহৎ ধর্মীয় উৎসব সরকারী বিধিনিষেধ ও সাস্থ্যবিধি মেনে সারা দেশের ন্যায় পর্যটন নগরী কক্সবাজার জেলায় ও পালিত হবে। এ জন্য সকলকে ঐক্যবদ্ধ থাকার আহ্বান জানান তিনি। সভায় এই সময় বিগত বছরের আয়—ব্যয় হিসাব পেশ করেন অর্থ সম্পাদক মিঠুন কান্তি দে ভুলুক। এসময় গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্ত হয়, গঠনতন্ত্রের আলোকে আগামী এক সপ্তাহের মধ্যে পূর্ণাঙ্গ কমিটির ঘোষণা। করোনা পরিস্থতি শিথিল হলে কক্সবাজার জেলায় নয়টি উপজেলা ও ৪ টি পৌরসভায় কমিটি গঠন করা হবে। এছাড়া আগামী ৩০ আগস্ট কক্সবাজার জেলায় যে সকল উপজেলায় জন্মাষ্টমী পালিত হবে তার অনুষ্টান সুচী জেলা কমিটির বরাবরে প্রেরণ করতে হবে। জেলা কমিটির সিদ্ধান্তের বাইরে কোন ধরণের অনুষ্টান সুচী পালন করা যাবে না।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •