স্পোর্টস ডেস্ক: সারা দিন আশার বাণী শুনিয়ে গল্পের নাটকীয় মোড় নিল, বার্সেলোনার সঙ্গে বিচ্ছেদ ঘটেছে লিওনেল মেসির।

এ বিষয়ে আনুষ্ঠানিক ঘোষণাও দিয়েছে ক্লাব বার্সেলোনা।

কিছুক্ষণ আগে ১০ নম্বর জার্সি পরিহিত মেসির ছবি শেয়ার টুইট করেছে বার্সেলোনা, লিও মেসি বার্সায় আর নিয়মিত হচ্ছেন না। বার্সার সঙ্গে চুক্তি নবায়ন করেননি মেসি।

বিষয়টি পরিষ্কার করতে বার্সেলোনা তাদের অফিসিয়াল ফেসবুক পেজে বিস্তারিত লিখেছে। তারা লিখেছে, ‘ক্লাব ও মেসির চুক্তি স্বাক্ষরের পরিষ্কার চেষ্টা থাকা স্বত্ত্বেও এটি সম্ভব হয়নি। কারণ লা লিগার অর্থনৈতিক কাঠামোর নিয়মের বাধ্যবাধকতা। এর পরিপ্রেক্ষিতে মেসি বার্সায় থাকছে না। দুই পক্ষই এ নিয়ে আফসোস করছে যে ক্লাব খেলোয়াড়ের ইচ্ছে পূরণ করতে পারেনি। ক্লাবের সমৃদ্ধিতে মেসির অবদানের জন্য আন্তরিকভাবে তার কৃতজ্ঞতা জানাচ্ছে। একই সঙ্গে ভবিষ্যতে তার ব্যক্তিগত ও পেশাদার জীবনের জন্য শুভ কামনা জানাচ্ছে।’

অর্থাৎ মেসি-বার্সা দুইপক্ষ চুক্তিতে পৌঁছাতে পারলেও লা লিগার নিয়মের কারণে এটির বাস্তবায়ন সম্ভব নয়। যে কারণে পিছু হটেছেন বার্সা সভাপতি হুয়ান লাপোর্তা।

উল্লেখ্য, গত বছরই স্বেচ্ছ্বায় বার্সেলোনা ছাড়তে চেয়েছিলেন মেসি। তাকে পেতে পিএসজি, ম্যানসিটি থেকে বড় বড় ক্লাব ওৎ পেতে ছিল। গুঞ্জন উঠেছিল, সাবেক গুরু গার্দিওলার কাছে শিষ্যত্ব নেবেন আবার। চলে যাবেন ম্যানসিটিতে। কিন্তু চুক্তির মারপ্যাচে পড়ে বার্সাতেই থেকে যেতে হয় মেসির। এ বিষয়ে মেসির বাবা হর্হে মেসির সঙ্গে দফায় দফায় বৈঠক হয়ে বার্সা কোচ রোনাল্ড কোম্যান ও ওই সময়ের সভাপতি বার্তেমেউয়ের সঙ্গে। পরিস্থিতি এতোই ঘোলাটে হয় যে আদালতে যাওয়ার জন্যেও প্রস্তুতি নিচ্ছেলেন মেসির বাবা। পরে প্রিয় ক্লাবের ভালোবাসায় বিষয়টি আর আদালতে গড়াতে দেননি মেসি।থেকে যানা বার্সায়।

আর্জেন্টিনা ছেড়ে মাত্র ১৩ বছর বয়সে বার্সেলোনায় এসেছিলেন মেসি। এরপর ধীরে ধীরে ফুটবলের মহাতারকাদের একজন হয়ে ওঠেন। স্পেনের ক্লাবটির হয়ে সব শিরোপাই জিতেছেন অন্তত তিনবার। এই ক্লাবের হয়েই ছয়টি ব্যালন ডি’অর জমা করেছেন ঝুলিতে। বার্সেলোনার জার্সি গায়ে ৭৭৮টি ম্যাচ খেলে ৬৭২টি গোল করেছেন মেসি। বার্সার হয়ে সর্বোচ্চ ম্যাচ ও সবচেয়ে বেশি গোলের মালিক মেসিই। ক্লাবটির হয়ে ৩৫টি শিরোপা জিতেছেন মেসি।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •