সেলিম উদ্দীন, ঈদগাঁও:
চকরিয়া উপজেলার খুটাখালী পশ্চিম নয়াপাড়ায় ভারী বর্ষনে পাহাড় ধসে একটি বসতবাড়ী চরম ঝুঁকিতে রয়েছে।

সপ্তাহ ধরে টানা বৃষ্টির কারণে আতঙ্ক বিরাজ করছে ৮ সদস্যের এ পরিবারের মাঝে।

এদিকে বসতবাড়ী ধসের ঝুঁকি নিয়ে বসবাস করলেও তাদের পুনবার্সনের উদ্যোগ নেই।

সরেজমিন উপজেলার খুটাখালী ইউনিয়নের পশ্চিম নয়াপাড়া গ্রামে গিয়ে দেখা যায়, পাহাড় ধসে ঐ গ্রামের মৃত হাজী আশকর আলীর পুত্র আবু বক্করের বসতঘর ধসের ঘটনা।

এতে বিধ্বস্ত হয়েছে সেমিপাকা বসতবাড়ির ২ টি কক্ষ ও বাথরুম। যার কারনে ফের বৃষ্টি হলে ধসের ঝুঁকিতে রয়েছে এ পরিবার।
এমনকি চলমান বর্ষা মৌসুমে পাহাড় ধসে প্রাণহানির শঙ্কা রয়েছে বলে জানান স্থানীয় বাসিন্দারা।

তবে এবার পাহাড় ধসে সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে আবু বক্কর সিদ্দিকের পরিবার।
টানা বৃষ্টিতে তার ঘরে মাটি ধসে গেছে। মাটি ধসে পড়ায় ঘরের অবশিষ্ট অংশ ঝুঁকিতে রয়েছে।

ঝুঁকি নিয়ে বসবাসকারী আবু বক্কর সিদ্দিক জানান, আমার মাথা গোঁজার ঠাঁই নেই। যা ছিল তাও ধসে গেছে। বৃষ্টি হলে রাতের বেলায় নির্ঘুম রাত কাটে।এভাবে কি বসবাস করা যায়। নতুন করে ঘর বানানোর সার্মথ্য নেই। তিনি উপজেলা প্রশাসনের সহযোগিতা কামনা করেন।

স্থানীয় বাসিন্দারা জানান, বৃষ্টি হলেই পাহাড়ের মাটি ধসে যায়। পাহাড়ের উপরের বসত বাড়ি এখন নিরাপদ না। বৃষ্টি নামলেই আমাদের আতঙ্ক বাড়ে। রাতে আত্মীয়ের বাসায় চলে যাই।

খুটাখালী ইউপি’র ৯নং ওয়ার্ডের মেম্বার গিয়াস উদ্দীন জানান, এই ওয়ার্ডে পশ্চিম নয়াপাড়ায় বেশ ক’টি পরিবার পাহাড় ধসের ঝুঁকিতে রয়েছে। এর মধ্যে ধস শুরু হয়েছে। কদিন আগে আবু বক্করের ঘরের মাটি ধসে গেছে।
ধসের ঝুঁকিতে রয়েছে ঐ ঘরের বসবাসকারীরা।

খুটাখালী ইউপি চেয়ারম্যান আবদুর রহমান জানান, খুটাখালীর ২/৩ টি ওয়ার্ডে পাহাড় ধসের ঝুঁকি রয়েছে। বিষয়টি চকরিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাকে অবহিত করা হয়েছে। আশা করি তিনি খোঁজ-খবর নিয়ে এসব সমন্বয় করবেন।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •