সাতকানিয়া প্রতিনিধি:
সাতকানিয়া উপজেলার কালিয়াইশ ইউনিয়নের ৯ নং ওয়ার্ডের আলী মুহুরি বাড়ীর বাসিন্দা রিক্সাচালক মোঃ আহমদ কবিরের তিন সন্তানের মধ্যে নাছির উদ্দীন তৃতীয়। দ্বিতীয় সন্তান বজ্রপাতে গত বছর মৃত্যু বরণ করেন। এক সময়ের ২৬ বছর বয়সের যুবক নাসির। যে বয়সে সংসার তরীতে পা রেখে টগবগিয়ে জীবন পার করার কথা ঠিক সেই বয়স থমকে গেছেন নাসির। তার জীবনের চাকা চলে কি চলেনা এমন দোদূল্যমান পরিস্থিতিতে রয়েছেন নাসির। প্রাণচঞ্চল রক্তিম সূর্যের আভায় এখন কালো মেঘ জমে গেছে। জীবন মৃত্যুর সন্ধিক্ষনে দিন কাটছে তার। মুমূর্ষু অবস্থায় বাড়িতে বিছানায় কাতরাচ্ছেন যুবক নাছির উদ্দীন। দীর্ঘদিন ধরেই নাছিরের দুটি কিডনিতেই পানি জমেছে। কিডনি দু’ টিই ইতোমধ্যে নষ্ট হয়ে গেছে বলে চিকিৎসকরা জানিয়েছেন।
বর্তমানে তিন কিডনি ডায়ালাইসিসের মাধ্যমে বেঁচে আছেন। জরুরি ভিত্তিতে তার কিডনি প্রতিস্থাপন করা প্রয়োজন।
দিনমজুর বাবার পক্ষে এত ব্যবহুল চিকিৎসা খরচ আনজাম দেয়া কোন অবস্থাতেই সম্ভব হচ্ছে না। সহায় সম্বল যা’ ছিল তা’ ছেলের পেছনে শেষ করে নাসিরের বাবা এখন নিঃস্ব হয়ে গেছেন। এরই মধ্যে দ্রুত নাছিরকে হাসপাতালে ভর্তি করার পরামর্শ দিয়েছেন চিকিৎসকরা। টাকার অভাবে নাছিরকে চিকিৎসা করাতে পারছে না তার পিতা আহমদ কবির। এ অবস্থায় তার উন্নত চিকিৎসা করানো নিয়ে শঙ্কা দেখা দিয়েছে।
অর্থাভাবে চিকিৎসা না করেই হাসপাতাল থেকে বাড়িতে নিয়ে আসা হয়েছে নাছিরকে। তার চিকিৎসা করতে পাঁচ/ছয় লক্ষ টাকার প্রয়োজন। দারুন অর্থ কষ্টের পরিবারের পক্ষে তার চিকিৎসা চালানো সম্ভব হয়ে উঠছেনা। তাই নাছিরের জীবন বাঁচাতে এখন সমাজের সহৃদয়বান বিত্তশালীদের সহযোগিতার প্রয়োজন।
সমাজের ধনাঢ্য হৃদয়বান মানুষদের এগিয়ে আসার আহ্বান জানিয়েছেন নাছিরের দরিদ্র পরিবার। সমাজের সবার একটু সহযোগিতা পেলেই বাঁচতে পারে নিষ্পাপ নাছিরের প্রাণ।
সে কারনে নাসিরের অসহায় পিতা আহমদ কবির দেশের ধনাঢ্য ব্যক্তিদের সহায়তা কামনা করেছেন।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •