ইমাম খাইর, সিবিএনঃ
টেকনাফের হ্নীলা ভিলেজারপাড়ায় পাহাড় ধসে মাটি চাপায় একই পরিবারের ৫ সন্তানের মৃত্যু হয়েছে। সেখানে তিন ছেলে ও দুই মেয়ে। ওই সময় তারা ঘুমন্ত ছিল।
মঙ্গলবার (২৭ জুলাই) দিবাগত রাত পৌনে দুইটার দিকে মর্মান্তিক দুর্ঘটনাটি ঘটে।
নিহতরা ওই এলাকার সৈয়দ আলমের সন্তান। তাৎক্ষণিক তাদের নাম পাওয়া যায় নি।
হ্নীলা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান রাশেদ মাহমুদ আলী বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।
তিনি বলেন, ৪নং ওয়ার্ডের সৈয়দ আলমের বাড়ির পাশের পাহাড় ধসে তিন ছেলে ও দুই মেয়ে মারা যায়। তাদের উদ্ধার করা হয়েছে।
ঘটনার খবর পেয়ে রাত ৩ টার দিকে তিনি ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন।
চেয়ারম্যান রাশেদ জানান, টানা বর্ষণে হ্নীলা ইউনিয়নে  শতশত বসতবাড়ি প্লাবিত ও বিধ্বস্ত হয়েছে। ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে সহায় সম্পদ। মানুষের দুর্ভোগ চরমে। প্রশাসনের পক্ষ থেকে জরুরি ভিত্তিতে সহযোগিতা চান তিনি।

এর আগে উখিয়া, টেকনাফ ও মহেশখালী উপজেলায় প্রবল বৃষ্টি ও পাহাড়ি ঢলে ভেসে গিয়ে এবং পাহাড় ধসে আটজনের মৃত্যু হয়।

এর মধ্যে উখিয়ার বালুখালী রোহিঙ্গা ক্যাম্পেই মারা গেছে ছয়জন। সেখানে আহত হয়েছে আরও পাঁচজন। আর মহেশখালী ও টেকনাফে পাহাড় ধসে দেয়ালচাপায় আরও দুজন মারা গেছেন। সেখানে একজন শিশু, আরেকজন বৃদ্ধ।

আবহাওয়া অধিদপ্তর জানিয়েছে, মঙ্গলবার ১৪১ মিলিমিটার বৃষ্টিপাত রেকর্ড করা হয়েছে।

 

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •