আনোয়ার হোছাইন ,ঈদগাঁও, কক্সবাজার :

অবশেষে বহু চড়াই উতরাই পেরিয়ে আজ সোমবার প্রশাসনিক পুনর্বিন্যাস সংক্রান্ত জাতীয় বাস্তবায়ন কমিটি(নিকার)’র সভায় উপস্থাপিত হচ্ছে কক্সবাজার জেলায়” ঈদগাঁও “নামের নতুন উপজেলা বাস্তবায়নের প্রস্তাবনাটি।দীর্ঘ কয়েক দশকে ঈদগাঁওকে উপজেলায় রুপান্তরের দাবি করে আসছে অত্র জনপদের লাখো জনগোষ্টি। দেরিতে হলেও আজ সেই বহু কাংখিত প্রস্তাবনা প্রধানমন্ত্রীর সম্মতির জন্য উপস্থাপিত হচ্ছে।

সংশ্লিষ্ট দপ্তর সুত্রে পাওয়া তথ্যে প্রকাশ,আজ ২৬ জুলাই (সোমবার) বেলা ১২ টায় বাংলাদেশ সচিবালয়ের মন্ত্রী সভাকক্ষে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিতব্য প্রশাসনিক পুনর্বিন্যাস সংক্রান্ত জাতীয় বাস্তবায়ন কমিটি(নিকার)’র (ভার্চুয়াল) ১১৭ তম সভায় সর্বপ্রথমে” ঈদগাঁও উপজেলা” বাস্তবায়ন প্রস্তাবনাটি উপস্থাপিত হবে।আজকের সভার কার্যতালিকায় দেশের বিভিন্ন এলাকার ৮ টি গুরুত্বপূর্ণ প্রস্তাবনা রাখা হয়েছে। এরমধ্যে সভার কার্যবিবরণী তালিকার সর্বপ্রথমে স্থান পেয়েছে “ঈদগাঁও উপজেলা”বাস্তবায়ন প্রস্তাবনাটি। এতে ঈদগাঁওবাসী আশায় বুক বেঁধেছে আজই প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সদয় সম্মতি মিলতে পারে ঈদগাঁও উপজেলা বাস্তবায়নে।প্রস্তাবিত ঈদগাঁও উপজেলার পাঁচ ইউনিয়ন যথাক্রমে ঈদগাঁও, ইসলামপুর,ইসলামাবাদ,জালালাবাদ, পোকখালী’র লাখো জনগোষ্ঠী’র চোখ এখন ঢাকার দিকে।তারা অধীর অপেক্ষায় আছেন প্রধানমন্ত্রীর সম্মতি সূচক নির্দেশনাটি শুনার।যদি আজ কক্সবাজার সদর উপজেলা (বর্তমান)’র পাঁচ ইউনিয়ন নিয়ে প্রস্তাবিত ঈদগাঁও উপজেলা বাস্তবায়নে প্রধানমন্ত্রী সম্মতি দিলে কক্সবাজার জেলায় ঈদগাঁও উপজেলা নামের আরেকটি উপজেলার সংযোজন হবে।রিপোর্ট লিখা পর্যন্ত ঈদগাঁও’র সর্ব মহলে উপজেলা বাস্তবায়নের ঘোষনাটি শুনার তর সইছেনা। বেলা ১২ টার আগ পর্যন্ত এক একটা সেকেন্ড – মিনিট,ঘন্টা যেন তাদের কাছে অতি দীর্ঘ সময় মনে হচ্ছে। ঈদগাঁও’র জনগণ উপজেলা বাস্তবায়নের প্রস্তাবনাটি আজ নিকার’র সভায় উপস্থাপনের সাথে যারা অক্লান্ত পরিশ্রম করেছেন সেই সব কৃতি সন্তানদের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেছেন।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •