বার্তিা পরিবেশক:
কোভিড ১৯ সংক্রান্ত স্বাস্থ্য সেবা ও অন্যান্য সরকারী কার্যক্রমের সমন্বয়ক এবং স্থানীয় সরকার বিভাগের সিনিয়র সচিব হেলালুদ্দীন আহমদের অনুরোধে পর্যটন সেক্টরের কর্মরতদের বিশেষ বরাদ্দ দিয়েছে দুযোর্গ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়।

১৪ জুলাই দুযোর্গ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালযয়ের সিনিয়র সচিব মো. শাহাজাহানে স্বাক্ষরিত এক প্রজ্ঞাপনে জেলার কর্মহীন আবসিক হোটেল শ্রমিক , অন্যান্য সহায়ক ও কমর্চারী ও পর্যটন শিল্পের সাথে সংশ্লিষ্ঠ জনগোষ্ঠীকে মানবিক সহায়তা প্রদানের জন্য ১ হাজার বস্তা শুকনা খাবার বরাদ্দ দেয়া হয়। বরাদ্দটি কক্সবাজার জেলা প্রশাসকের কাছে পাঠানো হয়েছে।
এদিকে স্থানীয় সরকার বিভাগের একটি ঘনিষ্ঠ সূত্র জানায়, ২০২১ সালের ১ লা এপ্রিল থেকে সিনিয়র সচিব হেলালুদ্দীন আহমদ কোভিড ১৯ সংক্রান্ত স্বাস্থ্য সেবা ও অন্যান্য সরকারী কার্যক্রমের কক্সবাজার জেলা সমন্বয়কের দায়িত্ব পালন করছেন। এরপর থেকে করোনাকালে কক্সবাজার জেলার বিভিন্ন পেশাজীবির মানুষের কষ্ট লাঘবে নানা উদ্দ্যোগ গ্রহন করেন। এর ধারাবাহিকতায় ১৩ জুলাই স্থানীয় সরকার বিভাগের সিনিয়র সচিব হেলালুদ্দীন আহমদ কক্সবাজার পর্যটন শিল্পের সাথে সংশ্লিষ্ঠ জনগোষ্ঠীর জন্য বিশেষ বরাদ্দ চেয়ে দুযোর্গ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালযয়ে একটি চিঠি দেন।
২০২০ সালের মার্চ থেকে ৬ মাস এবং ২০২১ সালের শুরু থেকে এখানো পর্যন্ত কক্সবজার জেলার ৪ শতাধিক হোটেল মোটেল এবং পর্যটন স্পট সমূহ বন্ধ রয়েছে। এই কারনে এরসাথে সংশ্লিষ্ঠ শ্রমিক ও অন্যান্য সহায়করা, সংশ্লিষ্ঠ ক্ষুদ্র ব্যবসায়ী সহ অন্যান্যরা কষ্টে দিনাতপাত করছেন। সেই অনুরোধের প্রেক্ষিতেই বুধবার হাজার প্যাকেট শুকনা খাবার বরাদ্দ দিয়েছে দুযোর্গ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •