অনলাইন ডেস্ক: মারাকানায় ডি মারিয়ার পা থেকে গোল আসার পর বিশ্বের নানা প্রান্তে থাকা আর্জেন্টাইন সমর্থকরা উল্লাসে মেতে উঠেন। ৩৩ বছর বয়সী এই ফরোয়ার্ডেরর কৃতিত্বেই ২৮ বছরে শিরোপা খরা মিটলো আলবেসিলেস্তেদের।

আর এই গোলের সুবাদে ডি মারিয়া জিতেছেন ফাইনালের সেরা খেলোয়াড়ের পুরস্কার। দলকে কোপা জিতিয়ে এবার বিশ্বকাপে নজর এ তারকা ফরোয়ার্ডের।

কোপার ফাইনাল জিতে ডি মারিয়া বলেছেন, ‘আমি আমার বাচ্চা, স্ত্রী, বাবা-মা এবং যারা আমাদের অকুণ্ঠ সমর্থন দিয়েছে তাদেরকে এই শিরোপা উৎসর্গ করছি। শিগগিরই একটি বিশ্বকাপ আসবে। এটা দিনের আলোর মতোই পরিষ্কার।’

ফাইনাল ম্যাচের ২২ মিনিটের মাথায় রদ্রিগো ডি পলের দুর্দান্ত থ্রু বলে ব্রাজিলের অফসাইড ফাঁদ ভেঙে ঢুকে পড়েন ডি মারিয়া। বুদ্ধিদীপ্ত চিপ শটে সামনে থাকা গোলরক্ষককে পরাস্ত করে দলকে এগিয়ে দেন এ তারকা ফরোয়ার্ড। এই গোলের নিশ্চিত হয় শিরোপা।

ম্যাচ শেষে গোলটি সম্পর্কে ডি মারিয়া বলেছেন, ‘আমরা অনেকদিন ধরে এই স্বপ্ন দেখছি। এটা অর্জনে অনেক লড়াই করেছি। রদ্রিগো ডি পল আমাকে পারফেক্ট পাস দিয়েছে। আমি এটি অলিম্পিকে নাইজেরিয়ার বিপক্ষে ম্যাচের মতোই জালে জড়িয়েছি।’

এসময় লিওনেল মেসির সঙ্গে কথোপকথনের কিছুটা তুলে ধরে তিনি বলেন, ‘এটা সত্যিই অবিস্মরণীয়। মেসি আমাকে ধন্যবাদ জানিয়েছে। আমিও মেসিকে ধন্যবাদ জানিয়েছি। সে আমাকে বলেছে, এটা আমার ফাইনাল। যেসব ফাইনাল আমি ইনজুরির কারণে খেলতে পারিনি, সেসবের প্রতিশোধ। এটা আজই হওয়ার ছিল এবং এটাই হয়েছে।’

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •