রেজাউল করিম চৌধুরী:
শেষ পর্যন্ত আমার চিকিৎসক পুত্র এবং শিক্ষকের অনুরোধ-হিতোপদেশের কাছে আমাকে আত্মসমর্পণ করতেই হলো! স্কিমিয়ার (Ischemia) সামান্য কিছু লক্ষণ থাকায় (রক্ত চলাচলে কিছুটা বাঁধা সৃষ্টি হওয়া), হৃদযন্ত্রে কোনও ব্যাথা না থাকলেও কার্ডিওলোজির উচ্চতর ডিগ্রির প্রস্ততি গ্রহণরত পুত্রের চাপাচাপিতে সম্প্রতি এনজিওগ্রাম করালাম। আমাকে আগেই বলা হয়েছিলো এনজিওগ্রাম করার আগে ১২ ঘণ্টা এবং এই অপারেশনের পর হাসপাতালে আমাকে কমপক্ষে দুই রাত পর্যবেক্ষণে রাখা হবে। এই সময়ের সঙ্গী হিসেবে আমি দুটি বই সঙ্গে নিয়ে যাই, দুটোই দক্ষিণ আফ্রিকার বর্ণবাদ বিরোধী আন্দোলনের মহান নেতা নেলসন ম্যান্ডেলার উপর। একটি রিচার্ড স্নেগেলের লেখা ম্যান্ডেলা’স ওয়ে এবং আরেকটি ম্যান্ডেলার আত্মজীবনী লং ওয়াক টু ফ্রিডম।

টাইম ম্যাগাজিনের সাবেক সম্পাদক রিচার্ড স্নেগেল ম্যান্ডেলা সম্বন্ধে জানতে, তাঁর কার্যক্রমগুলো খুব কাছে থেকে দেখতে প্রায় তিন বছর সময় কাটিয়েছেন নেলসন ম্যান্ডেলার সাথে। নেলসন ম্যান্ডেলার বিষয়ে আমার আগ্রহ দীর্ঘদিনের, শ্বেতাঙ্গ সংখ্যালঘুদের বর্ণবাদী শাসনের সময় প্রায় তিন দশক তিনি কারাগারে বন্দি ছিলেন, অথচ এরপরেও দক্ষিণ আফ্রিকায় একটি জাতীয় ঐক্য প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে সেই শ্বেতাঙ্গদের নিয়েই সরকার গঠন করেছিলেন। তিনিই একমাত্র আফ্রিকান নেতা, যিনি স্বেচ্ছায় ক্ষমতা ত্যাগ করে অন্য নেতাদের জন্য সুযোগ তৈরি করে দিয়েছিলেন।

রিচার্ড স্নেগাল তাঁর রচনায় ম্যান্ডেলা’র কয়েকটি বিশ্বাস, দর্শন বা কর্মোপদ্ধতির উল্লেখ করেছেন, যেমন: (ক) মানুষকে ভালোবাস, শুরুতেইে কোনও মানুষ সম্বন্ধে কোনও নেতিবাচক ধারণা গ্রহণ করোনা (খ) ভয় না থাকার মানেই সাহসী হওয়া নয় (খ) নিজের পদ ছাড়তে জানাও নেতার বড় গুণ, (গ) নেতৃত্ব দিতে হবে সামনে থেকে, (ঘ) পিছন থেকেও নেতৃত্ব দিতে জানতে হবে, (ঙ) শত্রুর উপর নজর রাখতে হবে, তাকে কাছে কাছে রাখাটাও জরুরি। এই পাঁচটি দর্শন বা গুণের বাইরেও ম্যান্ডেলার আরও অনেকগুলো বিশেষ গুণাবলী ছিলো। বইটি আমার এক সহকর্মীকে পড়ার জন্য দিয়েছি। এখন পড়ছি লং ওয়াক টু ফ্রিডম, বেছে বেছে বিশেষ অধ্যায়গুলো পড়ছি। নতুন নতুন বিষয় জানা ও শেখায় আমি সবসময়ই দারুণ উৎসাহ বোধ করি।

বই পড়ার আগ্রহটা আমার সবসময়ই ছিলো, ব্যবস্থাপনার বিভিন্ন দর্শন এবং মনোবিজ্ঞান আমার খুব প্রিয় বিষয়। সংকটের সময়গুলোতে বই আমার বেশ কার্যকর সঙ্গী। মনে আছে রংপুরে বসবাসকালীন কিছুদিনের বেকারত্বের সময়ে, আইসিডিডিআরবি’র চাকরিটার জন্য যখন আমি অপেক্ষা করছি, তখন আমাকে দারুণ সঙ্গ দিয়েছে বোর্ন টু উইন বইটি। রংপুর-ঢাকা-রংপুর আসা-যাওয়ার সময়কালে বই আমাকে শক্তি, মানসিক শক্তি, জীবন ও সংগ্রামের উপর আস্থা, মানুষ এবং বন্ধুদের প্রতি বিশ্বাসের সুযোগ করে দিয়েছে।

সর্বোপরি বই পড়া আমাকে এক ধরনের মানসিক প্রশান্তি দিয়েছে। আমি আমার বন্ধুদের অনুরোধ করবো, দয়া করে ইন্টারনেট, মোবাইল, টিভি’র এই সময়েও বই পড়ুন, সেসব বই পড়ুন যেগুলো থেকে জীবনের জন্য শিক্ষা পাওয়া যায়, বিশেষ করে সফল ব্যক্তিদের জীবনী পড়ুন।

আমার আর একটি অভ্যাস আছে, আমি ইন্টারনেটে সংবাদপত্র পড়লেও বাসায় পাঁচটি সংবাদপত্র রাখি এবং আমি কাগজে ছাপা সংবাদপত্র পড়তে খুব পছন্দ করি।আমি আমাদের প্রজন্ম ও তরুণ প্রজন্মকে অনুরোধ করবো, আপনার মানসিক শান্তির জন্য এবং দুর্দান্ত শিক্ষার জন্য, কাগজে ছাপা বই এবং সংবাদপত্র পড়ুন।

আমি আমার স্বাভাবিক জীবনে ফিরে এসেছি, যেমন সকালে একটু ব্যায়াম করা, সন্ধ্যায় এক ঘণ্টা বা ৬ কিমি হাঁটা, বাসায় থেকে অনলাইনে অফিসের কাজ করা। আমার সকল বন্ধু ও শুভানুধ্যায়ীদের প্রতি কৃতজ্ঞতা, আমাদের একে অপরের প্রতি ভালোবাসাই আসলে শেষ কথা।

রেজাউল করিম চৌধুরী
নির্বাহী পরিচালক
কোস্ট ফাউন্ডেশন।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •