মুহাম্মদ আবু সিদ্দিক ওসমানী :

শুক্রবার ৯ জুলাই সাপ্তাহিক ছুটির দিনে কক্সবাজার জেলায় ২ টি প্রতিষ্ঠানে ২ ধরনের পদ্ধতিতে নমুনা টেস্ট করে মোট ২৩৬ জনের দেহে করোনা শনাক্ত করা হয়েছে। তারমধ্যে, কক্সবাজার মেডিকেল কলেজের ল্যাবে ৭৬৭ জনের নমুনা টেস্ট করে ২০৪ জনের টেস্ট রিপোর্ট ‘পজেটিভ’ পাওয়া গেছে। বাকী ৫৬৩ জনের নমুনা টেস্ট রিপোর্ট ‘নেগেটিভ’ আসে।

এছাড়া, কক্সবাজার জেলা সদর হাসপাতালে একইদিন ৬১ জনের র‍্যাপিড এন্টিজেন টেস্ট (Rapid Antigen Test-RAT) পদ্ধতিতে নমুনা টেস্ট করে ৩২ জনের টেস্ট রিপোর্ট ‘পজেটিভ’ শনাক্ত করা হয়। বাকী ২৯ জনের টেস্ট রিপোর্ট ‘নেগেটিভ’ আসে।

কক্সবাজার মেডিকেল কলেজের ট্রপিক্যাল মেডিসিন ও সংক্রামক ব্যাধি বিভাগের সহকারী অধ্যাপক ডা. মোহাম্মদ শাহজাহান নাজির সিবিএন-কে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

কক্সবাজার মেডিকেল কলেজের (পিসিআর) ল্যাবে শনাক্ত হওয়া ২০৪ জন করোনা রোগীর মধ্যে ৮ জন আগে আক্রান্ত হওয়া রোগীর ফলোআপ টেস্ট রিপোর্ট। বাকী নতুন শনাক্ত হওয়া বাকী ১৯৬ জনের মধ্যে ১ জন বান্দরবান জেলার রোগী এবং ৩ জন চট্টগ্রামের বাঁশখালী উপজেলার রোগী। অবশিষ্ট ১৯২ সকলেই কক্সবাজারের রোগী।

তারমধ্যে, ৬০ জন রোহিঙ্গা শরনার্থী। এছাড়া সদর উপজেলায় ৭৩ জন, উখিয়া উপজেলায় ২৭ জন, রামু উপজেলায় ৫ জন, টেকনাফ উপজেলায় ১৭ জন, চকরিয়া উপজেলায় ১ জন, পেকুয়া উপজেলায় ২ জন, কুতুবদিয়া উপজেলায় ১ জন এবং মহেশখালী উপজেলার ৬ রোগী রয়েছে।

এদিকে, র‍্যাপিড এন্টিজেন টেস্ট পদ্ধতিতে কক্সবাজার জেলা সদর হাসপাতালে করোনা শনাক্ত হওয়া ৩২ জনের মধ্যে ৩০ জন কক্সবাজার সদর উপজেলার, ১ জন উখিয়া উপজেলার রোগী এবং ১ জন মহেশখালী উপজেলার রোগী।

এনিয়ে, ৯ জুলাই পর্যন্ত কক্সবাজার জেলায় করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা হলো-মোট ১৩ হাজার ৫৭৫ জন। এরমধ্যে, গত ৮ জুলাই পর্যন্ত করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে জেলায় মৃত্যুবরণ করেছে ১৩৫ জন। তারমধ্যে, ২০ জন রোহিঙ্গা শরনার্থী। আক্রান্তের তুলনায় মৃত্যুর হার ১’১৮% ভাগ।

একইসময়ে সুস্থ হয়েছেন ১১ হাজার ৪৮০ জন করোনা রোগী। আক্রান্তের তুলনায় সুস্থতার হার ৮৬’০১% ভাগ।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •