ইমাম খাইর, সিবিএনঃ
কঠোর লকডাউনের অষ্টম দিনে (৮ জুলাই) কক্সবাজার জেলায় মোবাইল কোর্টের মাধ্যমে ২২৮ জনের নিকট থেকে ৮৮ হাজার ৬৫০ টাকা জরিমানা আদায় করা হয়েছে।

পৃথক ৩২ টি অভিযানে মামলা হয়েছে ২০১ টি। তবে কাউকে কারাদণ্ড প্রদান করা হয় নি।

জেলা প্রশাসনের সহকারী কমিশনার ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট কাজি মাহমুদুর রহমান এসব তথ্য জানিয়েছেন।

এদিকে, বৃহস্পতিবার কক্সবাজার সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়, বাসটার্মিনাল ও গাড়ির মাঠে বিভিন্ন শ্রেণি পেশার কর্মহীন ৩০০ জন মানুষকে খাদ্য সামগ্রী দিয়েছে জেলা প্রশাসন।

গত ৪ জুলাই এ পর্যন্ত প্রায় ১৫ হাজার মানুষ খাবার সহায়তা পেয়েছে, যার মধ্যে ছিল পরিবহন শ্রমিক, টমটম চালক, বাক—প্রতিবন্ধি, সেলুন কর্মচারি, সিএনজি চালক, দিনমজুর, রিকশাচালক, মুচি ও ভাসমান হত—দরিদ্র মানুষ।

পর্যায়ক্রমে কর্মহীন সবশ্রেণীর মানুষ প্রধানমন্ত্রীর এই উপহার পাবে। প্রয়োজনে ৩৩৩ হটলাইন নাম্বারে ফোন দিলে ঘরে পৌঁছে যাবে খাবার।

জরিমানার বদলে মানবিক সহায়তা পেল ৪০ চালকঃ
বিধিনিষেধ না মেনে রাস্তায় বের হওয়ার অপরাধে বৃহস্পতিবার প্রায় ৪০টি টমটম, অটোরিক্সা আটক করে উখিয়া উপজেলা প্রশাসন।
পরে, জরিমানার বদলে তাদের প্রত্যেককে ১০ কেজি চাল, ২কেজি ডাল, ১কেজি তেল, ১ কেজি লবন, ১ কেজি চিনি, ১ কেজি ছোলা দেয়া হয়।
উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার মো. নিজাম উদ্দিন আহমদের এমন মহানুভবতায় মহাখুশী গাড়ী চালক ও শ্রমিকরা।

কঠোর লকডাউনে জরুরি সেবা দেয়া দপ্তর-সংস্থা ছাড়া সরকারি-বেসরকারি অফিস, যন্ত্রচালিত যানবাহন, শপিংমল-দোকানপাট বন্ধ রয়েছে।

লকডাউন বাস্তবায়নে জেলা প্রশাসনের সাথে সমন্বয় করে কাজ করছে সেনা বাহিনী, বিজিবি, পুলিশ, র‌্যাব, আনসার ব্যাটালিয়নসহ সরকারী অন্যান্য দপ্তরগুলো।

উল্লেখ্য, করোনা নিয়ন্ত্রণে গত ১ জুলাই থেকে সারাদেশে এক সপ্তাহের কঠোর লকডাউন শুরু হয়। চলমান কঠোর লকডাউন আরও এক সপ্তাহ বাড়িয়ে ১৪ জুলাই পর্যন্ত করা হয়েছে।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •