সেলিম উদ্দীন, ঈদগাঁও:
করোনা ভাইরাস সংক্রমণের হার উদ্বেগজনক হারে বৃদ্ধি পাওয়ায় চকরিয়া উপজেলার খুটাখালীতে ফের কঠোর বিধি-নিষেধ শুরু হয়েছে।
বৃহষ্পতিবার (৮ জুলাই) ভোর থেকে শুরু হওয়া এ বিধি-নিষেধ চলবে আগামী ১৪ জুলাই পর্যন্ত।
করোনা ভাইরাস প্রতিরোধ সংক্রান্ত উপজেলা প্রশাসনের সিন্ধান্ত অনুযায়ী এ বিধি-নিষেধ চলছে।
করোনা সংক্রমণের আধিক্য বিবেচনায় উপজেলার খুটাখালী বাজারে জরুরি সেবা ব্যতিত সব দোকানপাট, মার্কেট বন্ধ রাখার নির্দেশ দেয়া হয়েছে।
কঠোর এ বিধি-নিষেধের প্রথম দিন সকাল থেকে মহাসড়কের খুটাখালী ব্রীজ ও কিশলয় স্কুল গেইটে গ্রাম পুলিশের নিরাপত্তা চৌকি বসিয়েছে প্রশাসন।
তবে বাজারের মুদি, কাঁচাবাজার, মাছ, মাংসের দোকান গিয়ে দেখা গেছে, অধিকাংশ ক্রেতা-বিক্রেতার মুখে মাস্ক নেই।
কেউ মানছেন না শারীরিক দূরত্ব। তবে বৃহষ্পতিবার দুপুর পর্যন্ত লোক সমাগম কম রয়েছে।
বিধি-নিষেধে বলা হয়েছে- কাঁচাবাজার ও নিত্য প্রয়োজনীয় মুদি দোকান বিকেল পাঁচটা পর্যন্ত খোলা রাখা যাবে।
ক্রেতা ও বিক্রেতাদের বাধ্যতামূলকভাবে মাস্ক পরিধান ও নূন্যতম তিন ফুট শারীরিক দূরত্ব বজায় রাখাসহ অন্যান্য স্বাস্থ্যবিধি মেনে বেচাকেনা করতে হবে।
ওষুধের দোকান সার্বক্ষণিক খোলা রাখা যাবে। হোটেল-রেস্তোরাগুলো পার্সেল অথবা প্যাকেটজাত খাবার সরবরাহ করতে পারবে।
সন্ধ্যার পর কোনো রাস্তার মোড়ে বা স্থানে একের অধিক ব্যক্তি অবস্থান করা বা একসঙ্গে চলাফেরা করতে পারবে না। মাস্ক পরিধানসহ সব স্বাস্থ্যবিধি কঠোরভাবে মেনে চলতে হবে।
এসব শর্তাবলী উপজেলার সবাইকে কঠোরভাবে মেনে চলার অনুরোধ করা হয়েছে। অমান্য করলে সংশ্লিষ্টদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। উপজেলা প্রশাসনের এক গণবিজ্ঞপ্তিতে এসব তথ্য জানানো হয়েছে।
এদিকে, খুটাখালী ইউপি চেয়ারম্যান মুহাম্মদ আবদুর রহমান করোনা সংক্রমন প্রতিরোধে আরোপিত বিধি-নিষেধ বাস্তবায়নে ওয়ার্ডে ওয়ার্ডে জনপ্রতিনিধিদের সার্বিক সহযোগিতা করার অনুরোধ জানান এবং মাস্ক ব্যবহার ও স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার পাশাপাশি আরোপিত বিধি-নিষেধ মেনে চলার জন্য ইউনিয়নবাসীকে আহ্বান জানান।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •