বার্তা পরিবেশক:
কক্সবাজার সদরের বৃহত্তর ঈদগাঁওর শ্রী শ্রী কেন্দ্রীয় কালী মন্দিরের চলামন উন্নয়ন কর্মকান্ডকে কেন্দ্র করে মন্দির পরিচালনা কমিটির বিরুদ্ধে বিভিন্ন অনলাইন পোর্টাল ও সংবাদপত্রে বিভিন্ন শিরোনামে প্রকাশিত সংবাদের ব্যাপারে বৃহত্তর ঈদগাঁওর ঐতিহ্যবাহী শ্রী শ্রী কেন্দ্রীয় কালী মন্দির কর্তৃপক্ষ ৭ জুলাই বিবৃতি প্রদান করেছেন।
বিবৃতিতে উল্লেখ করা হয়, স্থানীয় সরকার মন্ত্রনালয়ের সিনিয়র সচিব হেলাল উদ্দিন আহমদ মহোদয়ের আন্তরিক প্রচেষ্টায় কিছুদিন পূর্বে অত্র মন্দিরের উন্নয়নে ৫ লক্ষ টাকা অনুদান প্রদান করেন। অপরদিকে ট্রাস্টি কতৃপক্ষও অত্র মন্দিরের অনুকূলে ৯ লক্ষ ৩০ হাজার ৫ শত পনের টাকা বরাদ্দ দেয়। উভয় কতৃপক্ষ সরকারী বিধি অনুযায়ী টেন্ডার আহবানের মাধ্যমে উন্নয়ন কাজ চলমান রেখেছে। এমতবস্থায়, অত্র কমিটির নেতৃত্বে উন্নয়ন কর্মকান্ড সহ্য করতে না পেরে একটি চিহ্নিত মহল সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমসহ বিভিন্ন সংবাদ ও অনলাইন পোর্টালে অসত্য সংবাদ পরিবেশন করে নিজ সম্প্রদায়ের লোকজনদের মধ্যে বিভেদ সৃষ্টি এবং বিভ্রান্তি ছড়ানোর অপচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। শুধু তাই নয় অপপ্রচারকারীরা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে বেনামে হুমকি ধমকিও দিয়েছে। যা ধর্মীয় অনুভূতিতে চরমভাবে আঘাত বলে আমরা মনে করি। অপপ্রচারে লিপ্তদের আমরা চিহ্নিত করতে সক্ষম হয়েছি। এ জাতীয় অপপ্রচার সৃষ্টির মাধ্যমে হিন্দু সম্প্রদায়ের মধ্যে প্রাচীর তৈরীর অপচেষ্টা সৃষ্টিকারীদের বিরুদ্ধে মন্দির কতৃপক্ষ ইতোমধ্যেই আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহনের প্রক্রিয়াও শুরু করেছে। এহেন ডাহা মিথ্যে সংবাদে কাউকে বিভ্রান্ত না হওয়ার জন্য বিবৃতিদাতারা সংশ্লিষ্ঠ সকলের প্রতি সর্নিবন্ধ অনুরোধ জানিয়েছেন।

বিবৃতিদাতারা হলেন –
ঈদগাঁও কেন্দ্রীয় কালী মন্দির সভাপতি বাবু উত্তম রায় পুলক, সহসভাপতি- বাবুল কান্তি দে, সাংগঠনিক সম্পাদক আপন কান্তি দে, ধর্মীয় সম্পাদক মাস্টার রতন কান্তি দে, যুগ্ম সম্পাদক সুমন চৌধুরী, সহসাংগঠনিক সম্পাদক বাবুল রুদ্র, নির্বাহী সদস্য জিকু দাশ, এবং জনি পাল।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •