অনলাইন ডেস্ক : দেশে করোনাভাইরাস সংক্রমণরোধে আজ বুধবার (০৭ জুলাই) থেকে ফের গণটিকাদানে নিবন্ধন অ্যাপ চালু করেছে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর। সুরক্ষা অ্যাপের ওয়েবসাইটে দুই মাস পর আবারও তা উন্মুক্ত করে দেওয়া হলো। মঙ্গলবার (০৬ জুলাই) অধিদপ্তরের সম্প্রসারিত টিকাদান কর্মসূচির (ইপিআই) পরিচালক ডা.শামসুল হক সাংবাদিকদের বলেন, টিকা পেতে আগ্রহীদের নিবন্ধনের জন্য মঙ্গলবার পরীক্ষামূলক ‘সুরক্ষা’ নামে অ্যাপটি চালু করা হয়েছে। ২২ ক্যাটাগরিতে সবাই নিবন্ধন করতে পারবেন।

ডা.শামসুল হক বলেন, ৩৫ বছরের ঊর্ধ্বে সব নাগরিক টিকার জন্য নিবন্ধন করতে পারবেন। সবার জন্য নিবন্ধন কার্যক্রম মঙ্গলবার পরীক্ষামূলক খোলা হলেও আনুষ্ঠানিকভাবে বুধবার থেকে চালু হচ্ছে।

করোনাভাইরাস সংক্রমণের মধ্যেই টিকা সংকটে গত ৫ মে নিবন্ধন কার্যক্রম বন্ধ করে দিয়েছিল স্বাস্থ্য অধিদপ্তর। কিন্তু ভারতীয় কোম্পানি সেরাম ইনস্টিটিউট বাংলাদেশে টিকা রপ্তানি বন্ধ করে দেওয়ায় টিকা সংকট দেখা দেয়। ফলে বাধ্য হয়েই স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় টিকা নিবন্ধন কার্যক্রম বন্ধ করে দেয়।

চুক্তি অনুযায়ী প্রতিমাসে ৫০ লাখ ডোজ করে টিকা দেয়ার কথা ছিল সেরাম ইনস্টিটিউট। তবে ৭০ লাখ পাঠানোর পর সিরাম আর টিকা দিতে পারেনি ভারত সরকারের নিষেধাজ্ঞায়। অবশ্য কেনা টিকার বাইরে বাংলাদেশকে ৩৩ লাখ ডোজ টিকা উপহার হিসেবে পাঠিয়েছে ভারত সরকার।

ভারত থেকে টিকা আসা বন্ধ হয়ে যাওয়ার পরই টিকার বিকল্প উৎসের সন্ধানে নামে বাংলাদেশ। চীন ও রাশিয়ার টিকা পেতে নানা ধরনের আলোচনা চলছে। টিকা পাওয়ার জোরালো আশ্বাস মিলেছে।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের এক নির্দেশনায় জানিয়েছে, ইতােমধ্যে যুক্তরাষ্ট্র থেকে ২৫ লাখ ডােজ মডার্নার এবং চীন থেকে ২০ লাখ ডোজ সিনোফার্মের টিকা তাদের হাতে পৌঁছেছে। অতি শিগগিরই সারাদেশের সকল সরকারি মেডিকেল কলেজ, হাসপাতাল, উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ও সিটি করপোরেশনের নির্দিষ্ট টিকাদান কেন্দ্রগুলোতে টিকা দেওয়া হবে।

যে প্রক্রিয়ায় নিবন্ধন:

স্বাস্থ্য অধিদপ্তর বলছে, সুরক্ষা অ্যাপে (https://surokkha.gov.bd/) জাতীয় পরিচয়পত্র বা জন্ম নিবন্ধন সনদ দিয়ে নিবন্ধন করতে হবে। ফোন ও জাতীয় পরিচয়পত্রের নম্বর, নাম, জন্মতারিখের পাশাপাশি কোনো শারীরিক জটিলতা আছে কি-না, পেশা কী- তাও জানাতে হবে।

স্মার্টফোনে ইন্টারনেট সংযুক্ত করে অ্যাপটি ডাউনলোড করা যাবে। অ্যাপে তথ্য দিলে টিকার আপডেট সম্পর্কে গ্রহীতাদের এসএমএসের মাধ্যমে জানানো হবে। বিশ্বের বিভিন্ন দেশ টিকা বিতরণ করতে এই প্রযুক্তি ব্যবহার করছে।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •