সাজন বড়ুয়া সাজু, উখিয়া :

কঠোর লকডাউনের ৬ষ্ঠ দিনে কক্সবাজরের উখিয়া উপজেলার বিভিন্ন বাজারে বেড়েছে মানুষের ভীড়। সড়কে বেড়েছে ব্যাটারিচালিত অটোরিকশা, টমটম ও সিএনজির চলাচল। মাস্কবিহীন ঘোরাফেরা করছেন অনেকেই।
লকডাউনের আওতামুক্ত নয়, খুলেছে এমন দোকানও।
কেউ কেউ মাস্কের পসরা সাজিয়ে আড়ালে করছেন অন্য ব্যবসা। গেল ৫দিন কঠোর লকডাউন পালনের পর দিনে এসে ঘর ছেড়ে বাইরে বেরিয়েছেন অধিকাংশ মানুষ। অহেতুক ঘোরাফেরা করছেন রাস্তা-ঘাটে।
গত বৃহস্পতিবার থেকে কঠোর লকডাউন ঘোষণার পর আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর তৎপরতায় মানা হচ্ছিল স্বাস্থ্যবিধি ও সরকারি নির্দেশনা। বিধিনিষেধ অমান্যকারীদের ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে দেওয়া হয় মামলা-জরিমানা। লকডাউন বাস্তবায়নে মাঠে নামেন সেনাবাহিনী,বিজিবি, র‌্যাব ,পুলিশ ও আনসার সদস্যরা।
ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা নিজাম উদ্দিন আহমেদ, সহকারী কমিশনার (ভূমি) মো. তাজ উদ্দিন। ফলে গেল ৫ দিন লকডাউন মেনে চলেন সবাই।
সরেজমিন দেখা যায়, ৬ষ্ঠ দিনের শুরুতেই উপজেলা সহ বিভিন্ন হাট-বাজারে বেড়েছে মানুষের উপস্থিতি। মাস্কবিহীন ঘোরাফেরা করতে দেখা যায় অনেককে। কেউ কেউ খুলছেন ব্যবসা-প্রতিষ্ঠান। কেবল আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যদের উপস্থিতি দেখলে সটকে পড়েন সব। তারা চলে গেলে পুনরায় স্বাভাবিকভাবেই ব্যস্ত হয়ে পড়ে অলিগলি ও চায়ের দোকান। এ যেন এক প্রকার চোর পুলিশ খেলা। এছাড়া লোকজনের দাবি লকডাউনে ঘরে চাল ডাল থেকে খাদ্য সামগ্রী কিছু নেই তাই ঝুঁকি নিয়ে হলেও জীবনের তাগিদে বের হওয়া। এছাড়া সরকার থেকেও কোনো প্রকার সাহায্য সহযোগীতা না পেয়ে হতাশ লোকজন।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •