ফেসবুক কর্নার :

 

করোনার ভয়ংকর থাবায় বিপর্যস্ত দেশ ও বিশ্ব। কিন্তু এখনো কিছু শ্রেণির মানুষ মাস্ক ছাড়াই লজ্জাহীন ঘুরে বেড়াচ্ছে। লকডাউনে বসে বসে ঠিক করলাম , আমার দেখা মাস্ক না পড়া বেহায়া লোকগুলোর চরিত্র কেমন তা একটু বিশ্লেষন করি।
★ মহা সাহসী টাইপঃ যত ধরণের মাস্কবিহীন মানুষ দেখেছি তার মধ্যে এই টাইপটাই প্রধান। এরা এমন ভাব নেয় আসলে তারা অনেক সাহসী তাই সাহস দেখাতে গিয়ে মাস্ক না পরে ঘুরে বেড়ায়। আর যারা মাস্ক পড়ে তাদের তারা ভীতু প্রমানের চেষ্টায় থাকে। আর নিজেকে আলেকজান্ডার টাইপের সাহসী ভাবতে থাকে।
★ বকধার্মিক টাইপঃ এই টাইপের লোকজন আবার মহাধার্মিক এর ভাবে থাকে। এমন ভাব নেয় যে, তিনি স্রষ্টার একজন অত্যন্ত খাস বান্দা তাই তার মাস্ক না পরলেও চলে। তারা আরো বলতে থাকে, যাদের ঈমানের শক্তি কম তারাই নাকি স্রষ্টার উপর ভরসা কম থাকায় মাস্কের উপর ভরসা করে!
★ আঁতেল টাইপঃ এরা আসলে সবজান্তা শমশের টাইপ পাব্লিক। এরা বিভিন্ন তথ্য-উপাত্তের ভিত্তিতে প্রমান করার চেষ্টায় থাকে যে, আসলে মাস্ক পড়া আর না পড়া একই ব্যাপার। অনেক সময় তারা এমন সব তথ্য-প্রমাণাদি আপনাকে দেখাবে যে, আপনি নিজেও কনফিউজড হয়ে যাবেন মাস্ক পড়ে ভুল করলেন না ঠিক করলেন।
★ গরিব টাইপঃ এরা হল এমন এক প্রজাতি যারা সবসময়ই নিজেকে খুবই গরীব বলে ধরে নেয় এবং মনে প্রাণে বিশ্বাস করে যে গরীবের করোনা হয় না। আর যেহেতু গরীবের করোনা হয় না সেহেতু মাস্ক পরলেও কি আর না পরলেও কি!
★ এন্টি-গর্ভমেন্ট টাইপঃ এদের যুক্তি সহজ। সেটা হল সরকার যা বলছে তার ঠিক বিপরীত কাজটাই করতে হবে। যেহেতু আমরা সরকারকে অপছন্দ করি সেহেতু সরকার মাস্ক পড়তে বলেছে বলেই আমরা মাস্ক পড়িনা। সিম্পল।
★ স্টাইলিস্ট টাইপঃ এই মানুষগুলো নিজেকে কিঞ্চিৎ সুন্দর দেখানোর জন্য জীবন দিতেও প্রস্তুত টাইপ। সাধারণত মহিলাদের মধ্যে এই টাইপ বেশি খুজে পাওয়া যায়। লিপিষ্টিক নষ্ট হবে, মেকাপ উঠে যাবে সর্বোপরি মাস্ক পড়লে আমার এই চাঁদবদন খানা মানুষজন দেখতে পাবে না এই ভয়ে এরা মাস্ক পড়া থেকে বিরত থাকে।
★ বস টাইপঃ আমিই বস, আমিই সেরা, আমি এখানে সবার চেয়ে সুপিরিয়র এই ধরণের মানসিকতা থেকেও অনেক ইতর মাস্ক পড়া থেকে দূরে থাকে। এরা সবসময় নিজেদের একটা কিছু ভাবে।
★ ছাগলের তিন নম্বর বাচ্চা টাইপঃ এরা আসলে কি জন্য যে মাস্ক পড়েনা সেটা এরাও বলতে পারেনা। হয়তো মাস্ক না পড়া অন্য ছাগলগুলোকে কপি করতে গিয়ে নিজেরাও মাস্ক পড়েনা।
★খোটা দেওয়া টাইপঃ এই টাইপের বলদগুলো নিজেরাতো মাস্ক পড়বেই না তার উপর অন্য কেউ পড়লে খিক খিক করে হাসবে আর খোটা দিবে। যেন নিজে মাস্ক না পড়ে বিশাল একটা কর্ম সাধন করে ফেলেছে, আর অপরজন মাস্ক পড়ে বিশাল বড় ভুল কাজ করেছে।
★ অতি আত্মবিশ্বাসী টাইপঃ এই ধরনের লোকগুলো দীর্ঘ দিন মাস্ক না পড়তে পড়তে একসময় মনে মনে ধরে নেয় যে, আমিতো সুপারম্যান এতদিন যখন কিছু হয়নি তখন আর আমার কিছু হবেনা।
★মৃত টাইপঃ কেউ মাস্ক না পড়তে পড়তে করোনাআক্রান্ত হয়ে শেষপর্যন্ত মারা যাওয়ার পর যখন চিরনিদ্রায় শুয়ে থাকে তখনতো আর মাস্ক পড়া না পড়ার কোন বাধ্যবাধকতা আসলেই থাকে না। বিষয়টা তখন অনেকটা এরকম যে,- ” নো শ্বাস, নো মাস্ক”। তারপরও শালার মাস্ক পড়বই না।
★অন্যান্য টাইপঃ এছাড়াও আরো অনেকগুলো টাইপ এই বঙ্গদেশের রঙ্গমেলায় হরহামেশাই দেখা যায়। আপনারাই বলুন না হয় বাকি সব টাইপগুলো।
উল্ল্যেখ্য যে দুইজন ব্যাক্তিই যদি মাস্ক পড়ে থাকে তাহলে তাদের মধ্যে করোনার জীবানু সংক্রমণের হার ০৩-০৫%- এ নেমে আসে অর্থাৎ তখন ৯৫% এর বেশি সুরক্ষা পাওয়া যায়। যা এমনকি এখন পর্যন্ত আবিষ্কৃত কোন ভ্যাক্সিন থেকেও পাওয়া যায় না।
তাই মাস্ক পড়ুন, নিজে বাচুন, পরিবারকে বাচান, দেশকে বাচান।

– আল রাহাত

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •