সিবিএন ডেস্ক:
করোনাভাইরাসের ভয়াবহ পরিস্থিতি মোকাবিলায় দেশের বিভিন্ন মেডিক্যাল কলেজ ও হেলথ ইনস্টিটিউট থেকে এক হাজারেরও বেশি চিকিৎসককে জেলা ও উপজেলা পর্যায়ের হাসপাতালগুলোতে বদলি ও পদায়ন করা হয়েছে। এর মধ্যে গতকাল সোমবার (৫ জুলাই) একদিনেই স্বাস্থ্য ক্যাডারের প্রায় এক হাজার এবং এর আগের দিন রবিবার (৪ জুলাই) আরও শতাধিক চিকিৎসকের বদলি ও পদায়নের আদেশ এসেছে।

আলাদা আলাদা প্রজ্ঞাপনে বদলির তারিখেই নতুন কর্মস্থলে যোগদান করতে বলা হয়েছে চিকিসৎকদের। তা না হলে পরেরদিন থেকেই বর্তমান কর্মস্থল থেকে তাৎক্ষণিকভাবে অবমুক্ত হিসেবে গণ্য হবেন বলেও আদেশে উল্লেখ করা হয়েছে। স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের স্বাস্থ্য সেবা বিভাগের প্রজ্ঞাপনগুলোতে আরও বলা হয়েছে, কোভিড অতিমারি সুষ্ঠুভাবে মোকাবিলা এবং জনসেবা নিশ্চিত করতে পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত বিসিএস স্বাস্থ্য ক্যাডার বা সার্ভিসের কর্মকর্তাদের সংযুক্তিতে পদায়ন করা হলো।

উল্লেখ্য যে, সংযুক্তিতে বদলি করা এই চিকিৎসকরা পূর্ববর্তী বা মূল প্রতিষ্ঠান থেকেই বেতন-ভাতা প্রাপ্য হবেন।

এ বিষয়ে স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক বাংলা ট্রিবিউনকে জানিয়েছেন, দেশের বিভিন্ন হাসপাতালে করোনার রোগী বাড়তে থাকায় হাসপাতালে চিকিৎসকরা হিমশিম খাচ্ছেন। এ কারণে করোনাকালীন সংকট থেকে উত্তরণের জন্য মেডিক্যাল কলেজগুলো থেকে চিকিৎসকদের হাসপাতালগুলোতে সংযুক্ত করা হয়েছে। করোনাকালীন সঙ্কট কেটে গেলে তারা আবার পূর্বের কর্মস্থলে ফিরে যাবেন। এটাকে বদলি বলা যায় না, তাদের হাসপাতালগুলোতে সংযুক্ত করা হয়েছে।

বদলি ও পদায়নকৃতদের মধ্যে পাঁচ সহকারী সার্জনকে গত ৫ জুলাই এক সংশোধিত প্রজ্ঞাপনে পরবর্তী পদায়নের জন্য স্বাস্থ্য অধিদফতরের বিশেষ ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওএসডি) করা হয়েছে। এসব কর্মকর্তাদের খুলনার দিঘলিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স থেকে অধিদফতরে ওএসডি করা হয়।

বদলি করাদের মধ্যে কুষ্টিয়া মেডিক্যাল কলেজ থেকে কুষ্টিয়া জেলা হাসপাতালে বদলি ও পদায়ন করা হয়েছে ২৩ জন চিকিৎসককে। পটুয়াখালী মেডিক্যাল কলেজ থেকে পটুয়াখালী জেলা হাসপাতালে ১৩ জন এবং বান্দরবান মেডিক্যাল কলেজ থেকে ১৬ জনকে পদায়ন করা হয়েছে বান্দরবান জেলা হাসপাতালে।

ফরিদপুরের বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান মেডিক্যাল কলেজ থেকে শরিয়তপুর জেলা হাসপাতালে বদলি করা হয়েছে ২৭ জন চিকিৎসককে। আর ওই কলেজ থেকে একই কলেজের হাসপাতালে অর্থাৎ ফরিদপুরের বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের বিভিন্ন পদে সংযুক্ত দেওয়া হয়েছে আরও ৩৬ জনকে।

অন্য এক প্রজ্ঞাপনে চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের ১৮ চিকিৎসককে খাগড়াছড়ি জেলা হাসপাতালে, কুমিল্লা মেডিক্যাল কলেজ থেকে ২২ জনকে ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা হাসপাতালে, কুমিল্লা মেডিক্যাল কলেজ থেকে আরও ২১ জনকে নারায়ণগঞ্জ ৩০০ শয্যা বিশিষ্ট হাসপাতালে বদলি করা হয়েছে। চাঁদপুরের আব্দুল মালেক উকিল মেডিক্যাল কলেজ থেকে চাঁদপুর জেলা হাসপাতালে বদলি করা হয়েছে ২২ জনকে বদলি করা হয়।

কুমিল্লা মেডিক্যাল কলেজ থেকে কুমিল্লা জেনারেল হাসপতালে বদলি করা হয়েছে ২৫ জনকে এবং একই প্রজ্ঞাপনে কুমিল্লা মেডিক্যাল কলেজ থেকে কুমিল্লা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে বদলি করা হয়েছে আরও ৩৬ জনকে।

সাতক্ষীরা মেডিক্যাল কলেজ থেকে সাতক্ষীরা জেলা হাসপাতালে পদায়ন করা হয়েছে ১৬ জন চিকিৎসককে। কক্সবাজার মেডিক্যাল কলেজ থেকে কক্সবাজার জেলা হাসপাতালে এবং রামু উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে বদলি করা হয়েছে ৪৮ জন চিকিৎসককে।

মাগুরা মেডিক্যাল কলেজ থেকে মাগুরা সদর হাসপাতালে ১৪ জন, নওগাঁ মেডিক্যাল কলেজ থেকে নওগাঁ জেলা হাসপাতালে ১৪ জন, রাজশাহী মেডিক্যাল কলেজ ও রাজশাহী ইনস্টিটিউট অ্যান্ড হেলথ টেকনোলজি থেকে চাঁপাইনবাবগঞ্জ ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট আধুনিক সরদ হাসপাতালে ২২ জন ও পাবনা মেডিক্যাল কলেজ থেকে পাবনা ২৫০ বেড জেনারেল হাসপাতালে ১৮ জনকে বদলি করা হয়েছে।

দিনাজপুর এম আবদুর রহমান মেডিক্যাল কলেজ থেকে ঠাকুরগাঁও জেলা হাসপাতালে ১৮ জন এবং পঞ্চগড় জেলা হাসপাতালে ১৮ জনকে পদায়ন করা হয়েছে। রংপুর মেডিক্যাল কলেজ থেকে গাইবান্ধা জেলা হাসপাতালে ১৭ জন, কুড়িগ্রাম জেলা হাসপাতালে ২৪ জন এবং লালমনিরহাট জেলা হাসপাতালে ২০ জনকে পদায়ন করা হয়েছে। এছাড়াও নীলফামারী মেডিক্যাল কলেজ থেকে নীলফামারী জেলা হাসপাতালে ১১ জনকে পদায়ন করা হয়েছে।

খুলনা মেডিক্যাল কলেজ থেকে খুলনা জেলা হাসপাতালে এবং খুলনা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে বদলি করা হয়েছে ২৮ জন চিকিৎসককে। খুলনা মেডিক্যাল কলেজ এবং বাগেরহাট মেডিক্যাল অ্যাসিস্ট্যান্ট স্কুল থেকে ১৪ জনকে বাগেরহাট সদর হাসপাতালে পদায়ন করা হয়েছে।

কুষ্টিয়া মেডিক্যাল কলেজ থেকে মেহেরপুর জেলা হাসপাতালে ১৫ জন, ঝিনাইদহ ইনস্টিটিউট অ্যান্ড হেলথ টেকনোলজি ও কুষ্টিয়া মেডিক্যাল কলেজ থেকে ঝিনাইদহ জেলা হাসপাতালে ১৫ জন। নোয়াখালীর আব্দুল মালেক উকিল মেডিক্যাল কলেজ থেকে লক্ষীপুর জেলা হাসপাতালে ১৯ জন, চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ থেকে ফেনী জেলা হাসপাতাল ও দাগনভূইয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ২৪ জন, রাঙ্গামাটি মেডিক্যাল কলেজ থেকে রাঙ্গামাটি জেনারেল হাসপাতালে ১৮ জন, আব্দুল মালেক উকিল মেডিক্যাল কলেজ থেকে নোয়াখালী জেলা হাসপাতালে ২৮ জন, চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ থেকে চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল এবং বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব ট্রপিক্যাল অ্যান্ড ইনফরমেশন ডিসিজেজ (ডিআইডিআইডি) ফটিকছড়ি উপেজলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ১১৪ জনকে পদায়ন করা হয়েছে।

রাজশাহী মেডিক্যাল কলেজ থেকে রাজশাহী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ১০২ জন, সিরাজগঞ্জ মেডিক্যাল কলেজ, শহীদ এম মনমুর আলী মেডিক্যাল কলেজ এবং সিরাজগঞ্জ মেডিক্যাল অ্যাসিসটেন্ট ট্রেনিং স্কুল থেকে সিরাজগঞ্জ ২৫০ বেড বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব জেনারেল হাসপাতালে ২০ জন, বগুড়ার শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিক্যাল কলেজ থেকে জয়পুরহাট জেলা হাসপাতাল ও জয়পুরহাটের কালাই উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ২১ জন, শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিক্যাল কলেজ ও বগুড়া ইনস্টিটিউট অব হেলথ টেকনোলজি থেকে বগুড়া ২৫০ বেড মোহাম্মদ আলী জেলা হাসপাতালে ৪৩ জন এবং পাবনা মেডিক্যাল কলেজ ও শহীদ এম মনসুর আলী মেডিক্যাল কলেজ থেকে নাটোর জেলা হাসপাতালে ১৫ জনকে বদলি করা হয়।

যশোর মেডিক্যাল কলেজ থেকে চুয়াডাঙ্গা জেলা হাসপাতালে ১৪ জন, ঝালকাঠি মেডিক্যাল কলেজ থেকে ঝালকাঠি জেলা হাসপাতালে ২০ জন, বরিশালের শেরে বাংলা মেডিক্যাল কলেজ থেকে পিরোজপুর জেলা হাসপাতালে ২০ জন, শেরে বাংলা মেডিক্যাল কলেজ থেকে শেরে বাংলা মেডিক্যাল কলেজ হাসপতালে ও বরিশাল জেলা হাসপাতালে ৫১ জন, পটুয়াখালী মেডিক্যাল কলেজ থেকে বরগুনা জেলা হাসপাতালে ১২ জন, পটুয়াখালী মেডিক্যাল কলেজ থেকে ভোলা জেলা হাসপাতালে ১২ জনকে বদলি করা হয়েছে।

এছাড়া গত রবিবারের প্রজ্ঞাপনে রংপুর মেডিক্যাল কলেজের ৬৫ জন চিকিৎসককে একই মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের বিভিন্ন পদে পদায়ন করা হয়েছে এবং দিনাজপুর এম আবদুর রহমান মেডিক্যাল কলেজ থেকে এম আবদুর রহমান মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল ও দিনাজপুর জেলা হাসপাতালে পদায়ন করা হয়েছে ৪৬ জনকে।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •