সংবাদদাতা:
করোনাকালীন লকডাউনের কারণে সুনির্দিষ্ট কাজ ছাড়া বাহিরে যাওয়া মানা। তাই একজন রোগীকে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়াও অনেক কষ্ট সাধ্য ব্যাপার।

ঠিকমতো গাড়ি পাওয়া যায় না,আবার পাওয়া গেলেও অতিরিক্ত ভাড়া চাওয়ায় অনেক সময় মুমূর্ষু রোগী নিয়ে সাধারণ মানুষ গাড়ি নিয়ে হাসপাতাল যেতে পারে না।

যেখানে সাধারন মানুষের আয়ের পথ বন্ধ, সেখানে অতিরিক্ত ভাড়া দিয়ে হাসপাতালে যাওয়া অনেক কষ্টসাধ্য ব্যাপার।

ফলে অনেক সময় বিপদের সম্মুখীন হতে হয়। এই সমস্যা সমাধানের লক্ষ্যে সাধারণ মানুষের কথা চিন্তা করে বাংলাদেশ ছাত্রলীগ কক্সবাজার জেলা শাখা এক মানবিক কাজ ফ্রি এম্বুলেন্স সার্ভিস চালু করতে যাচ্ছে।

তারই লক্ষ্যে রবিবার বিকাল ৩ টায় লালদিঘীর পাড়ে বাংলাদেশ ছাত্রলীগ কক্সবাজার জেলা সভাপতি এস এম সাদ্দাম হোসাইন ও সাধারণ সম্পাদক মারুফ আদনানের নেতৃত্বে উক্ত ফ্রি এ্যাম্বুলেন্স সার্ভিসের আনুষ্ঠানিক কার্যক্রম উদ্বোধন করা হয়।

এই সময় জেলা ছাত্রলীগ সভাপতি এস এম সাদ্দাম হোসাইন বলেন, শুরুতে মহান রাব্বুল আলামীনের কাছে দোয়া চাই যাতে এই করোনা মহামারি থেকে আল্লাহ আমাদের রক্ষা করেন।

করোনাকালীন সময়ে মানুষ মানুষের পাশে নেই,আত্মীয় স্বজনরাসহ পাশে নেই সেই জায়গা কেন্দ্রীয় নির্দেশনা অনুযায়ী বাংলাদেশ ছাত্রলীগ, কক্সবাজার জেলা শাখা মানুষের পাশে আছে,তারই ধারাবাহিকতার একটা অংশ হিসেবে এই কঠোর লকডাউনে কক্সবাজারে শহরে করোনা আক্রান্ত,মূমুর্ষ রোগীর জন্য ফ্রি-এম্বুলেন্স সেবা চালু করেছি এবং পরবর্তীতে কক্সবাজার জেলা জুড়ে প্রান্তিক এলাকায়ও এই সেবা চালু করতে চেষ্টা করব।

এই সময় জেলা ছাত্রলীগ সাধারণ সম্পাদক মারুফ আদনান বলেন, সারা দেশে মহামারী করোনার কারনে মানুষ অনেক কষ্টে আছে। মানুষের আয়ের উৎস বন্ধ। লকডাউনের কারনে মানুষ ঠিকমত বাসা থেকে বের হতে পারেনা।

এই পরিস্থিতিতে একজন মুমূর্ষু রোগী নিয়ে সময়মত হাসপাতালে নিয়ে যাওয়াও মুশকিল। তাই সাধারন মানুষের কথা চিন্তা করে আমরা বাংলাদেশ ছাত্রলীগ কক্সবাজার জেলা শাখা কক্সবাজার শহরে ফ্রি এম্বুলেন্স সার্ভিস দিয়ে সাধারন মানুষের পাশে থাকার চেষ্টা করেছি।

আমরা আপাতত কক্সবাজার শহরের ১২টি ওয়ার্ডে উক্ত কার্যক্রম চালিয়ে যাব। পরবর্তীতে কক্সবাজারের প্রত্যেক উপজেলায় এবং ইউনিয়নে এই সার্ভিস চালু করা হবে।

এই সময় তিনি প্রত্যেক বিত্তশালী ব্যক্তিদের এই মহামারীতে সাধারন মানুষের পাশে থাকার আহবান জানান।

এই সময় উপস্থিত ছিলেন কক্সবাজার জেলা ছাত্রলীগের সহ সভাপতি বোরহান উদ্দিন খোকন, সদর উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি কাজী তামজিদ পাশা, সাবেক কক্সবাজার জেলা ছাত্রলীগের সাহিত্য বিষয়ক সম্পাদক ইরফানুল হক হিমন (হিমু), সাবেক উপ ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক মঈন উদ্দিন জনি, সাবেক সদস্য রাজিবুল ইসলাম মোঃ মোস্তাক, সাবেক সদস্য দেবপ্রিয় ভট্টাচার্য্য আকাশ, সদর উপজেলা ছাত্রলীগের সহ সভাপতি তৌহিদুল ইসলাম, কক্সবাজার ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি ছাত্রলীগের বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক মনিরুল হক মনির, কক্সবাজার কলেজ ছাত্রলীগের সহ সভাপতি কাওছার মাহমুদ জয়, যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক ইমতিয়াজ আমিন শুভ, কুতুবদিয়া উপজেলা ছাত্রলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক রফিকুল ইসলাম, কক্সবাজার পৌর ১১ নং ওয়ার্ড ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক খায়রুল ইসলাম জিশান, কক্সবাজার টেকনিক্যাল কলেজ ছাত্রলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ইমরুল আজিজ সুমন,সদর উপজেলা ছাত্রলীগ নেতা তারেকুল মোস্তফা তোষার,কক্সবাজার সরকারি কলেজ ছাত্রলীগ নেতা সৈয়দ সাফাওয়া সজীব।

উপস্থিত ছিলেন- ছাত্রনেতা আরমান মাসুদ মিশাল, আরমানুল ইসলাম, আবু বক্কর, মুরাদ মাহমুদ চৌধুরী, রাকিবুল ইসলাম রাহাত, সামিউল হুসাইন সামি, তারেক উদ্দিন মিশুক।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •