অনলাইন ডেস্ক: চলতি করোনা মহামারিতে দেশে দেশে ভেঙে পড়ছে শিক্ষাব্যবস্থা। চরম ক্ষতির মুখে পড়তে হয়েছে শিক্ষার্থীদের। থমকে আছে লেখাপড়া। এ অবস্থায় শিক্ষার্থীদের পাশে দাঁড়িয়েছে ওপার বাংলার মমতা সরকার।

স্থানীয় সংবাদমাধ্যমের খবরে বলা হয়েছে, ভারতের পশ্চিমবঙ্গ রাজ্যের ছাত্রছাত্রীদের জন্য ‘স্টুডেন্ট ক্রেডিট কার্ড’ প্রকল্প চালু করেছে মমতা সরকার।

প্রকল্প চালুর পর তৃণমূল নেত্রী হুঁশিয়ারি দিয়ে বলেছেন, শিক্ষার্থীদের জন্য চালু করা স্টুডেন্ট ক্রেডিট কার্ড নিয়ে কোনোরকম জালিয়াতি যেন না হয়।

প্রকল্পে ১০ লাখ রুপি পর্যন্ত ঋণ দেয়া হবে শিক্ষার্থীদের। ভারতের এবং বিদেশের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে সেই ঋণের সাহায্যে পড়াশোনা এবং গবেষণা করা যাবে। কেনা যাবে শিক্ষার প্রয়োজনীয় সরঞ্জামও।

মুখ্যমন্ত্রী মমতা বলেছেন, ছাত্রছাত্রীরা আমাদের গর্ব। বলেছিলাম, ‘স্টুডেন্ট ক্রেডিট কার্ড’ দেব। যা বলেছিলাম, করেছি। আগে কৃষক বন্ধু চালু করেছি।

কোর্স ফি, টিউশন ফি, ল্যাপটপ, কম্পিউটারের জন্যও ঋণ দেয়া হবে এই কর্মসূচিতে। চাকরি পাওয়ার পর এক বছর সময় পাওয়া যাবে ঋণশোধের পর্ব শুরুর জন্য। ১৫ বছরের মধ্যে শোধ করতে হবে ঋণ।

দশম শ্রেণি থেকে শুরু করে স্নাতক এমনকি, প্রতিযোগিতামূলক পরীক্ষার প্রশিক্ষণের জন্যও ঋণ পাবেন শিক্ষার্থীরা। গ্যারান্টার, রাজ্য সরকার। ৪০ বছর বয়স পর্যন্ত এই সুবিধা পাবেন ছাত্রছাত্রীরা।

এ বিষয়ে মুখ্যমন্ত্রী জানান, বয়সসীমা ৪০ রাখা হয়েছে যাতে ঋণের টাকায় স্নাতক, স্নাতকোত্তর, পেশাভিত্তিক পাঠ্যক্রম, ডিপ্লোমা পাঠ্যক্রম, ডক্টরাল এবং পোস্ট ডক্টরাল স্তরে গবেষণার খরচ চালাতে পারে শিক্ষার্থীরা।

সূত্র : এবিপি

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •