সিবিএন ডেস্ক: আফগানিস্তানের মধ্যাঞ্চলীয় শহর গজনি দখলে নিতে সরকারি বাহিনীর ওপর হামলা শুরু করেছে তালেবান। মঙ্গলবার তারা রাজধানী কাবুলের সঙ্গে দক্ষিণাঞ্চলীয় প্রদেশ কান্দাহারের সংযোগ মহাসড়কে ভারী অস্ত্র-গোলাবারুদ নিয়ে সরকারি বাহিনীর সঙ্গে সংঘর্ষে লিপ্ত হয়। খবর আল জাজিরার।

আফগান সরকারের জ্যেষ্ঠ কর্মকর্তারা সংঘর্ষের সত্যতা নিশ্চিত করে জানিয়েছেন, সরকারি বাহিনী হারানো এলাকার নিয়ন্ত্রণ ফিরে পেতে চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে।

গজনিতে বহু বছর ধরেই তালেবানের শক্তিশালী উপস্থিতি রয়েছে। তবে প্রাদেশিক পুলিশ কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, সশস্ত্র গোষ্ঠীর এবারের হামলাটি সবচেয়ে তীব্র।

আল জাজিরার খবর অনুসারে, এদিন আফগান-তালেবান সংঘর্ষ সবচেয়ে বেশি হয়েছে শেখ আজাল ও গঞ্জ এলাকার নিরাপত্তা চৌকিগুলোর কাছে। এতে ওইসব এলাকার ব্যবসায়ীরা দোকানপাট বন্ধ করে পালিয়ে যেতে বাধ্য হন। সেখানকার বেশিরভাগ রাস্তাঘাট বন্ধ করে দেয়া হয়েছে। টেলিকমসেবা বিঘ্নিত হওয়ায় সহায়তা সংগঠন ও সরকারি কর্মকর্তাদের জন্য হতাহতের সংখ্যা নির্ণয় কঠিন হয়ে পড়েছে।

গজনিসহ আফগানিস্তানের বিভিন্ন অংশে তালেবানের বিরুদ্ধে লড়াইয়ে কিছু সাধারণ নাগরিক সক্রিয়ভাবে অংশগ্রহণ করছে বলে জানিয়েছেন সরকারি কর্মকর্তারা।

মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের ঘোষণা অনুসারে, আগামী ১১ সেপ্টেম্বরের মধ্যে আফগানিস্তান থেকে নিজেদের সব সেনা প্রত্যাহার করবে যুক্তরাষ্ট্র। ইতোমধ্যে সেই প্রক্রিয়া শুরুও হয়েছে। পাশাপাশি দোহায় দফায় দফায় চলছে আফগান-তালেবান শান্তি আলোচনা।

এর মধ্যেই গত মে মাসের শুরু থেকে আফগান বাহিনীর বিরুদ্ধে কয়েকবার রক্তক্ষয়ী হামলা চালিয়েছে তালেবান। তাদের দাবি, দেশটির চার শতাধিক জেলার মধ্যে প্রায় ৯০টির নিয়ন্ত্রণ নিয়েছে তালেবান।

অবশ্য এর বেশ কয়েকটি এলাকার নিয়ন্ত্রণ নিয়ে ধোঁয়াশা রয়েছে। সেগুলো আসলেই কাদের নিয়ন্ত্রণে তা নিশ্চিত হওয়া যায়নি।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •