মুহাম্মদ আবু সিদ্দিক ওসমানী :

কক্সবাজারের চকরিয়ায় পানির সাথে নেশাজাতীয় দ্রব্য পান করিয়ে ১২ বছরের শিশুকে ধর্ষণের অভিযোগে দায়েরকরা মামলার প্রধান আসামী ধর্ষক মো: ইউনুছকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার ২৪ জুন সন্ধ্যা ৭ টার দিকে চট্টগ্রামের লোহাগাড়া থেকে র‍্যাব-১৫ এর একটি টিম তাকে গ্রেপ্তার করে।

র‍্যাব-১৫ এর সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার ও পরিচালক (মিডিয়া এন্ড অপারেসন্স) আবদুল্লাহ মোহাম্মদ শেখ সাদী বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

গত ২ জুন বিকাল ৫টার দিকে কক্সবাজারের চকরিয়ায় দাওয়াত দিয়ে নিয়ে নেশা জাতীয় দ্রব্য খাওয়ানোর পর ১২ বছর বয়সি এক শিশুকে ধর্ষণ করার অভিযোগে গত ৭ জুন চকরিয়া থানায় একটি মামলা দায়ের করা হয়। ধর্ষণের শিকার শিশুটির মা বাদী হয়ে ২ জনকে আসামি করে মামলাটি দায়ের করেন।

মামলার এজাহারে উল্লেখ করা হয়, ঘটনার দিন চকরিয়ার খুটাখালী ইউনিয়নের ৪ নম্বর ওয়ার্ডস্থ গর্জনতলীর ফখরুল ইসলামের মেয়ে রোকসানা আক্তার তার বাড়িতে বিয়ের দাওয়াত দিয়ে ওই শিশুটিকে নিয়ে যায়। পরে দুপুরে ভাত খাওয়ার সময় পানির সাথে নেশা জাতীয় দ্রব্য মিশিয়ে পান করানোর পর শিশুটি অজ্ঞান হয়ে পড়ে। এসময় পূর্ব থেকে ওই ঘরে থাকা একই এলাকার নুরুল ইসলামের ছেলে মো. ইউনুছ শিশুটিকে ধর্ষণ করেন। দীর্ঘ সময় জ্ঞান না ফেরায় ওই শিশুকে নিজ ঘরে দিয়ে আসে।

পরবর্তীতে তার অবস্থা অবনতি হলে তাকে কক্সবাজার জেলা সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। চিকিৎসার পর তার জ্ঞান ফিরলে মাকে ধর্ষণের বিষয়টি জানায় ওই শিশু।

র‍্যাব-১৫ এর চৌকস একটি টিম বৃহস্পতিবার সুকৌশলে মামলার প্রধান আসামী ধর্ষক মো: ইউনুছকে লোহাগাড়া থেকে গ্রেপ্তার করতে সক্ষম হয়। এরআগে ধর্ষনের সহযোগীতাকারী এক নারীকেও গ্রেফতার করা হয়।

ধর্ষককে গ্রেপ্তারের বিষয়ে সাফল্যের কথা বিস্তারিত জানানোর জন্য শুক্রবার ২৫ জুন সকাল ১০ টায় র‍্যাব-১৫ এর সদর দপ্তরে প্রেস ব্রিফিং এর আয়োজন করা হয়েছে।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •