স্পোর্টস ডেস্ক: বিশ্বকাপ বাছাই পর্বের পর কোপা আমেরিকায় ‘উড়ন্ত’ ব্রাজিলকে মাটিতে প্রায় নামিয়ে আনছিল কলম্বিয়া।

কিন্তু অতিরিক্ত যোগ করা ১০ মিনিটের শেষ মুহূর্তে নাটকীয় জয় পেয়েছে ব্রাজিল।

রিও ডি জেনেরোর নিল্তন সান্তোস স্টেডিয়ামে ‘বি’ গ্রুপের ম্যাচে বৃহস্পতিবার সকালে কলম্বিয়ার বিপক্ষে শেষ পর্যন্ত ২-১ গোলে জিতেছে ব্রাজিল।

এমন জয়ের পর ব্রাজিল সমর্থকদের এক হাত নিয়েছেন অনেকে। রেফারির বদান্যতায় এ জয়ের মুখ দেখেছেন নেইমাররা, এমনটিই বিশ্বাস তাদের।

এ হারকে মানতে পারছেন না কলম্বিয়ানরা।

দেশটির সমর্থকদের অভিযোগ— আর্জেন্টাইন রেফারি নেস্তর পিতানা তাদের জয় কেড়ে নিয়েছে। ব্রাজিলের বিপক্ষে ম্যাচে সুস্পষ্ট ব্যবধানে এগিয়ে ছিল কলম্বিয়া। কিন্তু সে অবস্থায় রেফারি নিজে সহযোগিতা করে, পক্ষপাতিত্ব করে স্বাগতিক ব্রাজিলকে জয় উপহার দিয়েছে।

লাতিন আমেরিকায় বিষয়টি নিয়ে তোলপাড় চলছে এখন।

এমন গুরুতর অভিযোগের পেছনে রয়েছে ব্রাজিলকে সমতায় ফেরানো রর্বাতো ফিরমিনোর বিতর্কিত গোলটি।

ম্যাচ শুরুর ১০ মিনিটে দুর্দান্ত এক বাইসাইকেল কিকে ব্রাজিলের জালে বল জড়িয়ে দেন লুইস দিয়াস।

১-০ তে এগিয়ে গিয়ে নিজেদের গুটিয়ে নেয় কলম্বিয়া। গোলপোস্টের মুখে চীনের মহাপ্রাচীর হয়ে দাঁড়ান কলাম্বিয়ার ডিফেন্ডাররা।

যে কারণে প্রথমার্ধে সমতায় ফিরতে পারেননি সেলেকাওরা। কিন্তু ৬৬ মিনিটে ঘটে এক অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনা।

রেনান লোদির ক্রসে ফিরমিনোর জোরালো হেড অসপিনার হাত ফসকে জড়ায় জালে।

এই গোলে তুমুল আপত্তি তোলে কলম্বিয়া। রেফারি ভিএআর দিয়ে অফসাইড চেক করেন। এর পর গোলের চূড়ান্ত বাঁশি বাজালেও কলম্বিয়ানরা প্রতিবাদ করেন।

রিপ্লেতে দেখা গেছে— নেইমারের জোরালো গতির ক্রস গিয়ে প্রথম লাগে রেফারির গায়ে। সেখান থেকে বলটা লুকাস পাকুয়েতার পায়ে গেলে তিনি ঠেলে দেন রেনান লোদির কাছে। সেখান থেকেই লোদির ক্রসে হেড দিয়ে গোল করেন ফিরমিনো।

লাতিন আমেরিকান ফুটবল কনফেডারেশনের (কনমেবল) নিয়মানুযায়ী, বল মাঠে রেফারির গায়ে লেগে যদি মাঠেই থাকে এবং কোনো দল যদি সেই সুযোগে আক্রমণ শুরু করে বা যে দলের পায়ে বল ছিল তার বদলে অন্য দলের কাছে বল চলে যায় বা সোজাসুজি গোলে বল জড়িয়ে যায়, তখন ফের ড্রপ বলের মাধ্যমে খেলা শুরু করতে হবে।

অর্থাৎ নিয়মানুযায়ী, নিজের গায়ে বল লাগার পর পরই খেলা থামিয়ে ড্রপ বলের মাধ্যমে আবার খেলা শুরু করা উচিত ছিল রেফারি নেস্তার পিতানোর। কিন্তু তিনি তা করেননি। খেলা থামাননি তিনি। ওই মুহূর্তে ড্রপ বলের জন্য প্রস্তুত ছিলেন কলম্বিয়ার ফুটবলাররা। কিন্তু তাদের এই ক্ষণিকের দ্বিধাই কাল হয়ে দাঁড়ায়। বল জালে জড়িয়ে যায়।

বিষয়টি নিয়ে মাঠেও প্রতিবাদ করেছেন কলম্বিয়ার ফুটবলাররা। এ নিয়ে খেলা ৫-৬ মিনিট বন্ধ থাকে। কিন্তু আর্জেন্টাইন রেফারি সিদ্ধান্তে অনড়। যে কারণে প্রতিবাদ ছেড়ে গোল মেনে নিয়ে ফের খেলায় ফেরে কলম্বিয়া।

বিতর্কিত গোলটি দেখুন-  https://youtu.be/rVWpP7INa2c

দ্বিতীয় যে বিষয়টি নিয়ে বিতর্ক চলছে, রেফারি ইনজুরি সময় বাড়িয়ে দিয়েছিলেন ১০ মিনিট! অতিরিক্ত সময় এতটা কেন দিলেন তা নিয়েও অসন্তোষ চলছে।

কারণ ওই সময়ের শেষ মুহূর্তেই অধিনায়ক কাসেমিরোর জয়সূচক গোলটি করেন।

-যুগান্তর

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •