মুহাম্মদ আবু সিদ্দিক ওসমানী :

মঙ্গলবার ২২ জুন কক্সবাজার জেলা সদর হাসপাতাল সহ পুরো জেলায় ৬৮ জনের র‍্যাপিড এন্টিজেন টেস্ট (Rapid Antigen Test-RAT) পদ্ধতিতে নমুনা টেস্ট করে ১৯ জনের টেস্ট রিপোর্ট ‘পজেটিভ’ শনাক্ত করা হয়। বাকী ৪৯ জনের টেস্ট রিপোর্ট ‘নেগেটিভ’ আসে।

কক্সবাজার মেডিকেল কলেজের ট্রপিক্যাল মেডিসিন ও সংক্রামক ব্যাধি বিভাগের সহকারী অধ্যাপক ডা. মোহাম্মদ শাহজাহান নাজির সিবিএন-কে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

র‍্যাপিড এন্টিজেন টেস্ট পদ্ধতিতে নমুনা টেস্ট করে ‘পজেটিভ’ শনাক্ত শনাক্ত হওয়া ১৯ করোনা রোগীর মধ্যে ১৭ জন কক্সবাজার সদর উপজেলার রোগী এবং ২ জন উখিয়া উপজেলার রোগী। নমুনা টেস্টের তুলনায় পজেটিভিটির হার প্রায় ২৮% ভাগ। সুত্র মতে, র‍্যাপিড এন্টিজেন টেস্ট পদ্ধতিতে করোনার নমুনা টেস্ট শুরু হওয়ার পর থেকে সর্বোচ্চ সংখ্যক পজেটিভ শনাক্ত হওয়ার একটা রেকর্ড।

অন্যদিকে, কক্সবাজার মেডিকেল কলেজের পিসিআর (পলিমারি চেইন রি-এ্যাকশন) ল্যাবে গত সোমবার ২১ জুন নমুনা টেস্টের তুলনায় পজেটিভিটির হার ছিলো ১১’৯৮% ভাগ। এদিন কক্সবাজার মেডিকেল কলেজের ল্যাব এবং র‍্যাপিড এন্টিজেন টেস্ট পদ্ধতিতে নমুনা টেস্ট করে কক্সবাজার জেলায় মোট ৭৫ জন ‘পজেটিভ’ রোগী শনাক্ত করা হয়।

এ অবস্থায় কক্সবাজারে বিমান পরিবহন চালু করা এবং সীমিত পরিসরে আবাসিক হোটেল খুলে দেওয়ার সিদ্ধান্তকে আত্মঘাতী সিদ্ধান্ত বলে মন্তব্য করেছেন- কোভিড-১৯ পরিস্থিতি নিয়ে গবেষণা করেন-এমন একজন গবেষক। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক উক্ত গবেষক বলেছেন-সার্বিক করোনা পরিস্থিতির কারণে কক্সবাজার জেলায় করোনা সংক্রামণ প্রতিরোধে এ ধরনের সিদ্ধান্ত পূণ: বিবেচনা করা উচিত।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •