আন্তর্জাতিক ডেস্ক:

ভারতের ত্রিপুরায় গাড়িতে করে গরু নিয়ে যাওয়ার সময় তিন মুসলিম যুবককে পিটিয়ে হত্যা করেছে স্থানীয়রা। এর আগে ভারতের বিভিন্ন রাজ্যে গরু বা গরুর মাংস বহন করার অভিযোগে মুসলিমদের পিটিয়ে মারা হলেও উত্তর-পূর্বাঞ্চলীয় রাজ্যটিতে এই ধরনের ঘটনা সম্ভবত এটাই প্রথম।

স্থানীয় পুলিশ জানিয়েছে, ঘটনাটি ঘটেছে ত্রিপুরার রাজধানী আগরতলা থেকে ৫০ কিলোমিটার দূরে খোয়াই জেলায়, যা বাংলাদেশ সীমান্তের একেবারে কাছাকাছি। নিহত যুবকদের গরুচোর বলে সন্দেহ করেছিল গ্রামবাসী।

গণপিটুনিতে নিহত তিনজনের নাম জায়েদ হোসেইন (৩০), সাইফুল ইসলাম (১৮) ও বিল্লাল মিয়া (২৮)। তাদের হত্যার ঘটনায় শেষ খবর পর্যন্ত কাউকে গ্রেফতার করা হয়নি।

স্থানীয় তেলিয়ামুড়া থানার একজন ঊর্ধ্বতন পুলিশ কর্মকর্তা জানিয়েছেন, গত রোববার ভোররাতে একটি গাড়িতে পাঁচটি গরু-মহিষ নিয়ে যাওয়ার সময় এই তিন ব্যক্তিকে তাড়া করে গ্রামবাসী। গরু চুরি করে পালাচ্ছে সন্দেহে তাদের ধরে গণপিটুনি দেয়া হয়।

প্রথমে উত্তর মহারানিপুর নামে একটি গ্রামের কাছে গাড়িটিকে ধরে এর দুই আরোহীকে ঘটনাস্থলেই পিটিয়ে মারে গ্রামবাসী। একজন সেখান থেকে পালাতে সক্ষম হলেও একটু দূরে মুঙ্গিয়াকামি নামে আরেকটি গ্রামের কাছে স্থানীয়দের হাতে ধরা পড়েন। সেখানে তাকেও পিটিয়ে হত্যা করা হয়।

পরে ওই তিনজন যুবকের দেহ আগরতলা সরকারি মেডিক্যাল কলেজ ও জিবি পন্থ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হলে তাদের মৃত ঘোষণা করা হয়।

পুলিশ জানিয়েছে, এই হত্যাকাণ্ডে দুটি আলাদা গণপিটুনির মামলা হলেও সোমবার বিকেল পর্যন্ত কাউকে গ্রেপ্তার করা হয়নি।

সূত্র: বিবিসি বাংলা

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •