মুহাম্মদ আবু সিদ্দিক ওসমানী :

কক্সবাজার জেলা সদর হাসপাতালে ICU এবং HDU ফ্যাসিলিটি সহ সার্বিক ব্যবস্থাপনা পরিদর্শন করে UNHCR এর শুভেচ্ছা দূত তাহসান খান বলেছেন- কক্সবাজার জেলা সদর হাসপাতালের মতো দেশের অন্যান্য জেলায় আধুনিক চিকিৎসা সুবিধা পাওয়া খুবই দুষ্কর। এরকম আধুনিক চিকিৎসা সুবিধার অবারিত সুযোগ সৃষ্টি করে দিয়ে জাতিসংঘের উদ্বাস্তু বিষয়ক হাই কমিশন UNHCR অসাধারণ মানবিক দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছে। পাশাপাশি জেলা স্বাস্থ্য বিভাগ, কক্সবাজার জেলা প্রশাসন সহ বাংলাদেশ সরকার এই আধুনিক চিকিৎসা ব্যবস্থাপনায় সহযোগী হয়ে করোনাকালীন রোগীদের আধুনিক চিকিৎসা সেবা দিতে পারছে। করোনা সংকটে গণমানুষের বিশ্বাসের জায়গা সৃষ্টি হয়েছে। শুভেচ্ছা দূত তাহসান খান হাসপাতালের আধুনিক চিকিৎসা সুবিধা দেখে সন্তোষ প্রকাশ করে UNHCR ও বাংলাদেশ সরকারকে ধন্যবাদ জানান।

কক্সবাজার জেলা সদর হাসপাতালে ICU এবং HDU ফ্যাসিলিটি চালুর একবছর পূর্তি উপলক্ষে গত ১৯ জুন হাসপাতাল পরিদর্শনের পর শুভেচ্ছা দূত তাহসান খান একথা বলেন। তিনি আরো বলেন, সদর হাসপাতালে ICU এবং HDU ফ্যাসিলিটি জেলার নাগরিকদের মাঝে আস্থা ও মনোবল সৃষ্টি করেছে।

পরিদর্শনকালে কক্সবাজার জেলা সদর হাসপাতালের তত্বাবধায়ক ডা. সুমন বড়ুয়া, UNHCR এর Country Representative মি. ইয়োহানেস ভন ডার ক্লাও, কক্সবাজার অফিসের Officer in Charge Ms. Anne, Health Coordinator Dr. Maina, Medical Officer Dr. Sakib, সদর হাসপাতালের ICU-HDU ইনচার্জ ডা. কফিল প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

প্রায় ৩৩ কোটি টাকা ব্যয় করে কক্সবাজার জেলা সদর হাসপাতালে UNHCR কর্তৃপক্ষ গত এক বছর আগে ১০বেডের ICU এবং ৮বেডের HDU নির্মাণ করে দিয়েছে। যেখানে এগুলোর চিকিৎসক, নার্স, স্বাস্থ্য কর্মী, ওয়ার্ডবয় সহ প্রায় ৩২ লক্ষ টাকা জনবল ও ব্যবস্থাপনার ব্যয় প্রতিমাসে UNHCR নিয়মিত বহন করছে। কোভিড-১৯ রোগী চিকিৎসায় এই আধুনিক চিকিৎসা সুবিধা ব্যাপকভাবে কাজে আসছে।

UNHCR শুভেচ্ছা দূত তাহসান খান বিশ্ব শরনার্থী দিবস উপলক্ষে ২০ জুন অন্যান্যদের সাথে রোহিঙ্গা শরনার্থী ক্যাম্প পরিদর্শন করেন। সেখানে তিনি রোহিঙ্গা শরনার্থীদের সাথে মতবিনিময় করেন এবং রোহিঙ্গা শরনার্থী সুন্দর ও সুষ্ঠু ব্যবস্থাপনা দেখে UNHCR ও বাংলাদেশ সরকারের প্রশংসা করেন।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •