পেকুয়া প্রতিনিধি:

কক্সবাজারের পেকুয়া উপজেলার টৈটং ইউপির বটতলির ঝুম পাড়ায় ইউপি সদস্য আবুল কাশেমের নেতৃত্বে একটি সিন্ডিকেট অবৈধভাবে বালি উত্তোলন করে চলছে।

ইউপি সদস্য তার প্রভাব দেখিয়ে বালি উত্তোলন করতে গিয়ে স্থানীয় বেশ কয়েকজনের বসতভিটা তলিয়ে যাওয়ায় তা দ্রুত বন্ধের জন্য উপজেলার টৈটং ইউপির জুমপাড়া এলাকার মোহাম্মদ ছোছাইনের ছেলে আব্দুল জলিল বাদী হয়ে নির্বাহী কর্মকর্তা বরাবর লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন।

রবিবার বিকেলে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা লিখিত অভিযোগ পাওয়ার পর সহকারি কমিশনারকে (ভূমি) তা দ্রুত ব্যবস্থা নেয়ার জন্য বলেন।

সহকারি কমিশনার (ভূমি) মিকি মারমা ওই আদেশ পাওয়ার পর একদল পুলিশ নিয়ে ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে অবৈধ বালি উত্তোলনের কার্যক্রম বন্ধ করে দেন।

লিখিত অভিযোগ স্থানীয় আবদু জলিল বলেন, বেশ কয়েকমাস ধরে স্থানীয় ইউপি সদস্য আবুল কাশেমের নেতৃত্বে মাওলানা আনছার ও রিদুয়ান অবৈধভাবে বালি উত্তোলন করে চলছেন। তাদের অবৈধ বালি উত্তোলনের কারণে বেশ কয়েকজনের বসতভিটা ভেঙে যায়। তার মধ্যে অভিযোগকারীর বাড়িও রয়েছে। বালি উত্তোলন করতে গিয়ে বসতভিটার ক্ষতি না করতে বেশ কয়েকবার ইউপি সদস্যকে অনুরোধ করলেও প্রভাব দেখিয়ে তার কার্যক্রম চালিয়ে যান। এমনকি স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান এমন কার্যক্রম বন্ধ করতে ইউপি সদস্যকে বারণ করলেও তা অগ্রাহ্য করেন। সর্বশেষ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বরাবর লিখিত অভিযোগ দায়ের করলে দ্রুত ব্যবস্থা নেন প্রশাসন।

আবদু জলিল বলেন, ইউপি সদস্য আবুল কাশেম ও তার সহযোগী মাওলানা আনছার ও রিদুয়ান খুব প্রভাবশালী। অবৈধভাবে বালি উত্তোলন করায় আমরা মারাত্মক সমস্যার ক্ষতির মুখে পড়ছিলাম। প্রশাসন তা দ্রুত ব্যবস্থা নেয়ায় বড় ধরণের ক্ষতি থেকে বেঁচে গেলেও তিনি হয়তোবা এমন অবৈধ কর্ম আবারো শুরু করবেন।

সহকারি কমিশনার(ভূমি) মিকি মারমা বলেন, স্থানীয়ভাবে অভিযোগ পাওয়ার পর বন্ধ করে দিয়েছি। তারপরও অবৈধভাবে বালি উত্তোলন করলে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •