শাহেদুল ইসলাম মনির, কুতুবদিয়া:

কুতুবদিয়ায় মুজিববর্ষ উপলক্ষে শেখ হাসিনার উপহার হিসেবে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের আশ্রয়ন-২ প্রকল্পের আওতায় নির্মিত ২য় পর্যায়ে ভূমিহীন ও গৃহহীনদের জন্য তৈরী করা ১৩ টি ঘরের মধ্যে সম্পূর্ণ প্রস্তুত করা ১১টি ঘর হস্তান্তর করা হয়েছে।

বাকি ২টি ঘরের কাজ শেষ হলে উপকার ভোগীদের কাছে হস্তান্তর করা হবে বলে উপজেলা প্রশাসন জানিয়েছেন।

রবিবার (২০ জুন) সকালে গণভবন থেকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা অনলাইনে উদ্বোধন করার পর উপজেলা নির্বাহী অফিসার নুরের জামান এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত অনুষ্ঠানে ভূমিহীন ও গৃহহীনদের মাঝে ঘরগুলো হস্তান্তর করেন।

কুতুবদিয়া উপজেলা প্রশাসনের সম্মেলন কক্ষে ভিডিও কনফারেন্সে এ কার্যক্রমের উদ্বোধনকালে উপস্থিত ছিলেন কক্সবাজার জেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি এড.ফরিদুল ইসলাম চৌধুরী
প্রধানমন্ত্রীর আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন ঘোষণার পর এসব ঘরের দলিল, চাবিসহ প্রয়োজনীয় ডকুমেন্ট গৃহহীন পরিবারের মাঝে বিতরণ করা হয়।

অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন, কক্সবাজার আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি এড.ফরিদুল ইসলাম চৌধুরী, থানার ওসি ওমর হায়দার , আলী আকবর ডেইল ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা নুরুসছাফা বি কম, উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান হাসিনা আক্তার বিউটি, ইউপি চেয়ারম্যান আ স ম শাহরিয়ার চৌধুরী, ইউপি চেয়ারম্যান জালাল আহমদ, ইউপি চেয়ারম্যান সৈয়দ আহমদ চৌধুরী, ইউপি চেয়ারম্যান আক্তার হোসাইন, মুক্তিযুদ্ধা পুলিন বিহারী শীল, প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক হাছান কুতুবী, অনলাইন প্রেসক্লাবে সভাপতি এম.এ মান্নান, সমাজসেবা অফিসার আমজাদ আলী উপকার ভোগী ভূমি ও গৃহহীন পরিবারগুলোসহ আওয়ামীলীগ এর বিভিন্ন অঙ্গ সংগঠনের নেতাকর্মী এবং সরকারী বেসরকারি কর্মকর্তা কর্মচারীরা উপস্থিত ছিলেন।

উপজেলার সূত্র জানা যায়, ২য় পর্যায়ে উপজেলার বড়ঘোপ ইউনিয়নে ৬টি, লেমশীখালী ইউনিয়নে ১টি, উত্তর ধূরুং ইউনিয়নের ৪টি ঘরসহ মোট ১১ টি সম্পূর্ণ কাজ শেষ হওয়ায় আনুষ্ঠানিকভাবে হস্তান্তর করা হয়েছে।

বাকি ২টির কাজ পুরোপুরিভাবে শেষ হলে দ্রুত সময়ে হস্তান্তর করা হবে।

প্রতিটি ঘর নির্মাণে ব্যয় ধরা হয়েছে এক লাখ ৭১ হাজার টাকা। ইটের দেওয়াল, কংক্রিটের মেঝে এবং টিনের ছাউনি দিয়ে তৈরি এসব সেমিপাকা ঘরে দুইটি শয়নকক্ষ, একটি খোলা বারান্দা, একটি রান্না ঘর এবং একটি শৌচাগার রয়েছে বলে জানা যায় ।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •