আবদুল মজিদ, চকরিয়া:
চকরিয়া উপজেলার কৈয়ারবিল ইউনিয়নের ৭নং ওয়ার্ডের পূর্ব বানিয়ারকুম গ্রামের একমাত্র চলাচল সড়কের বেহাল দশা সৃষ্টি হয়েছে। এই রাস্তাটি প্রয়াত সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যানর আবদুল কুদ্দুস চৌধুরী চেয়ারম্যান ও গিয়াস উদ্দিন মেম্বারের আমলে মাটি ভরাট হলেও বিগত ৩৫/৪০ বছরে উল্লেখ যোগ্য কোন উন্নয়ন কিংবা সংস্কার হয়নি। বর্ষাকালীন সময়ে বন্যায় পলি মাটির প্রলেপ পড়ে মানুষের ভিটা ও চাষের জমি রাস্তা থেকে অন্তত ১/২ ফুট উঁচু হয়ে যায়। ফলে বৃষ্টি হলেই মানুষের ভিটা ও নাল জমির পানি রাস্তায় এসে জমে যায়। এই রাস্তা দিয়ে আর চলাচল উপযোগি থাকেনা।

জানাগেছে, পূর্ব বানিয়ারকুম গ্রামের লোকজন কৃষি নির্ভর। এই রাস্তা দিয়ে প্রতিদিন কৃষকের অনুমানিক ৫০ হেক্টর জমির ফসল কাঁধে নিয়ে বাজারে যেতে হয়। এতে কৃষকের দুর্ভোগের শেষ নেই। বিষয়টি নজরে আনতে স্থানীয় এলাকাবাসী চকরিয়া-পেকুয়া আসনের সংসদ সদস্য আলহাজ¦ জাফর আলম, উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ফজলুল করিম সাঈদী, উপজেলা নির্বাহী অফিসার সৈয়দ শামসুল তাবরীজ সহ সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের কাছে সুদৃষ্টি কামনা করছেন।

স্থানীয় পথচারী সুলতান আহমদ বলেন, স্বাধীনতার পর থেকে চেয়ারম্যান আসলো-গেল, কিন্তু কোন চেয়ারম্যান রাস্তায় এক কোদাল মাটিও দেয় নাই। এমনকি কেউ দেখতেও আসেনা। আজ আমাদের কষ্টের শেষ নাই। স্থানীয় মিজানুর রহমান টুটুল বলেন, ১২/১৪ বছর আগে ভরাট ছাড়াই সাবেক শাহজাহান চেয়ারম্যান ও পরে শরীফ উদ্দিন চৌধুরী চেয়ারম্যান এ রাস্তাটি সংস্কার করলেও প্রতি বছর বন্যার পানির সাথে পলি মাটি জমে ভিটে উঁচু হয়ে গিয়ে সড়কের চরম আকার ধারণ করে। এ রাস্তাটি কমপক্ষে দুই ফুট উঁচু করলে অন্তত কয়েক বছর টেকসই থাকবে। এ রাস্তা দিয়ে ইয়াংছা- শান্তিবাজার সড়কের সাথে এবং চট্টগ্রাম-কক্সবাজার মহাসড়কের সাথে সহজে যোগাযোগ করা যায়।

স্থানীয়রা আরো জানান, এ রাস্তাটি চকরিয়ার লক্ষ্যারচর ইউনিয়নের ২নং ওয়ার্ডের হাজী পাড়া জামে মসজিদ থেকে সোজা উত্তর দিকে হাজী পড়া হয়ে পূর্ব বানিয়ারকুম ও ডলমপীরের মাজারের পাশে চৌধুরী বাজার ও উপজেলার চিরিংগা খাদ্য গুদাম এবং নলবিলা ফরেষ্ট অফিস পযর্ন্ত পযর্ন্ত যাওয়া যায়। হাজী পাড়া দিয়ে রাস্তার কিছু অংশ লক্ষ্যারচর ইউনিয়নের এবং অবশিষ্ট অংশ কৈয়ারবিল ইউনিয়নের ৭নং ওয়ার্ডের। দুই ইউনিয়নের লোকজনের চলাচলের জন্য গুরুত্বপূর্ণ এই রাস্তাটি সংস্কার করতে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের জরুরী হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।

চকরিয়া উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আলহাজ¦ ফজলুল করিম সাঈদী জানান, স্থানীয়দের চলাচলের জন্য এ সড়কের উন্নয়নে প্রয়োজনীয় উদ্যোগ নেওয়া হবে। তিনি বিষয়টি দেখার জন্য উপজেলা প্রকৌশলীকে দিকনির্দেশনা দেবেন বলে জানান।

 

 

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •