পেকুয়া প্রতিনিধি :

কক্সবাজারের পেকুয়ায় কহিনুর আক্তার(২৬) নামে এক অন্তঃসত্ত্বা গৃহবধূকে যৌতুক দাবী করে পিটিয়ে জখম করেছে স্বামী ও শ্বশুর বাড়ির লোকজন।

শুক্রবার (১৮ জুন) দুপুর ২টার দিকে উপজেলার বারবাকিয়া ইউনিয়নের নোয়াখালী পাড়া এলাকায় এঘটনা ঘটে।

তিনি উপজেলার মগনামা ইউনিয়নের লালমিয়া পাড়া এলাকার শাহাব উদ্দিনের মেয়ে ও বারবাকিয়া ইউপির নোয়াখালী পাড়ার শহিদুল ইসলামের স্ত্রী।

আহত অবস্থায় গৃহবধূকে তার পিতার বাড়ির লোকজন উদ্ধার করে পেকুয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে।

ভুক্তভোগী কহিনুর আক্তার বলেন, তার স্বামী শহিদুল ইসলাম আরেক বিয়ে করে দীর্ঘ দিন ধরে যৌতুক দাবি করে মানসিক ও শারীরিক ভাবে নির্যাতন করে আসছে। নির্যাতন সইতে না পেরে পিতার বাড়ি থেকে বেশ কয়েকবার যৌতুকও এনে দেন। তারপরও শ্বশুর মোস্তাক আহমদ, শ্বাশুড়ি খালেদা বেগম, ননদ রিফা আক্তার ও শিফা আক্তার সহ স্বামী দিনের পর দিন আমার উপর নির্যাতন করে। সর্বশেষ শুক্রবার দুপুরে গর্ভের সন্তান নষ্ট করতে পিটিয়ে জখম করে। এমন ঘটনায় স্থানীয়রা ক্ষিপ্ত হয়ে গৃহবধূর পিতার বাড়িতে খবর দিলে আত্মীয় স্বজন এসে উদ্ধার হাসপাতালে ভর্তি করে।

আহত গৃহবধূর ভাই মোঃ এমরান বলেন, আমার বোনের অনুমতি ছাড়া তার স্বামী অন্য এক মেয়েকে বিয়ে করলেও ৫ বছরের এক সন্তানের মুখের দিকে তাকিয়ে সংসার করে যাচ্ছিলেন। ইতোমধ্যে আমার বোন ৪ মাসের অন্তঃসত্ত্বা। বিয়ের পর থেকে বেশ কয়েকবার যৌতুকের জন্য পিটিয়ে আহত করেছিল। সর্বশেষ শুক্রবার আবারো যৌতৃকের জন্য মারধর করে গুরুতর আহত করে। এমনকি তার অনাগত সন্তানকে মেরে ফেলার চেষ্টা করে তারা। পরে আমরা তাকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে যায়। এ ঘটনায় থানায় লিখিত অভিযোগ দিতেতে গেলে থানার এক কর্মকর্তা অভিযোগ ফেরত দিয়ে আদালতে মামলা করার পরামর্শ দেন।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •