প্রেস বিজ্ঞপ্তি

‘তোমার অসীমে প্রাণমন লয়ে যত দূরে আমি ধাই-

কোথাও দুঃখ, কোথাও মৃত্যু, কোথা বিচ্ছেদ নাই ॥

মৃত্যু সে ধরে মৃত্যুর রূপ, দুঃখ হয় হে দুঃখের কূপ,

তোমা হতে যবে হইয়ে বিমুখ আপনার পানে চাই॥’

বীর মুক্তিযোদ্ধারা বাঙালি জাতির গর্ব। হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙালি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নেতৃত্বে বীর মুক্তিযোদ্ধারা জীবনবাজি রেখে মহান মুক্তিযুদ্ধে সক্রিয়ভাবে অংশ নিয়েছেন বলেই স্বাধীন ও সার্বভৌম বাংলাদেশ পেয়েছি।

দেশ স্বাধীন হওয়ার পেছনে বীর মুক্তিযোদ্ধাদের অবদান চিরস্মরণীয়।

আজ ১৮ ই জুন রোজ শুক্রবার উখিয়া ভালুকিয়া গ্রামের কৃতি সন্তান,শিক্ষক,বীর মুক্তিযোদ্ধা প্রয়াত সুরক্ষিত বড়ুয়ার মৃত্যুর ৬ মাস পূর্ণ হলো। একজন নিরহংকারী, বলিষ্ঠ সমাজসেবক হিসেবে সর্বদা দেশ ও সমাজের জন্য নিজেকে বিলিয়েছেন চিরটাকাল।

আজ তাঁর স্মৃতির উদ্দেশ্য শ্রদ্ধার্ঘ্য জানিয়ে অক্সিজেনস্থ নিজ বাসভবনে সংঘদান ও অষ্টপরিষ্কার দানের ধর্মীয় অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন পরম পূজনীয় ভিক্ষুসংঘগণ এবং শ্রামণগনও উপস্থিত ছিলেন।

পরিবারবর্গের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের নাট্যকলা বিভাগের অধ্যাপক প্রফেসর ড.কুন্তল বড়ুয়া,বিশিষ্ট ওড়িশী নৃত্যশিল্পী প্রমা অবন্তী,সুরক্ষিত বড়ুয়ার স্ত্রী শর্মিষ্ঠা বড়ুয়া,সুযোগ্য কন্যা,স্কুল শিক্ষিকা সপ্তর্ষী বড়ুয়া,তাঁর পুত্র বিপর্ষী বড়ুয়া।ওড়িশী এন্ড টেগোর ডান্স মুভমেন্ট সেন্টারের মিডিয়া পর্ষদ প্রধান অভ্র বড়ুয়া।এছাড়াও অন্যান্য গন্যমান্য ব্যক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন।

তাঁর সুযোগ্য কন্যা বলেন-“বাবার অসমাপ্ত সামাজিক কাজগুলো সাধ্যমতো পূরণ করতে চাই।বাবার আর্দশে ও দেখানো পথে নতুন প্রজন্মেরা যেন এগিয়ে যায় বহুদূর।আমার সবচেয়ে বড় পরিচয় আমি একজন বীর মুক্তিযোদ্ধার সন্তান,সকলে বাবার জন্য আর্শীবাদ করবেন,সকল মুক্তিযোদ্ধার প্রতি বিনম্র শ্রদ্ধা,যাঁদের আত্মত্যাগের বিনিময়ে এই সোনার বাংলাদেশকে দেশকে আমরা পেয়েছি।’

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •