এম আবু হেনা সাগর, ঈদগাঁও:
কক্সবাজার সদরের ঈদগাঁওর ভোমরিয়াঘোনা সড়কে চলাচল যেন মরণ ফাঁদ। খালি পায়ে হাঁটাচাচলাও বিপজ্জনক। দিনদিন বিলীন হতে চলছে দীর্ঘদিনের সড়ক। খালে ক্ষয় হয়ে যাচ্ছে পাড়ের মাটি। এই মুহূর্তে ‘সড়ক রক্ষাবাঁধ’ খুব জরুরী হয়ে পড়েছে।

জানা যায়, ঈদগাঁও ইউনিয়নের পশ্চিম এবং পূর্ব ভোমরিয়াঘোনা যাতায়াত সড়কের খালের পাড় ভেঙ্গে চরম আতংকে দিন কাটাচ্ছে অর্ধ শতাধিক পরিবার। এই সড়ক দিয়ে রাজঘাটেও লোকজন আসা যাওয়া করে থাকে। প্রতিনিয়ন এসড়ক দিয়ে ৫/৬ হাজার লোকের চলাচল। বর্তমানে সড়কটির বেহাল দশা। দেখার যেন কেউ নেই।

সম্প্রতি ঈদগাঁও নদীর ভোমরিয়াঘোনা কাসেম সওদাগরের দোকান সংলগ্ন স্থান হতে লুতুর বাড়ীর মাথা পর্যন্ত ঝড়ের পানির তোড়ে ভেঙ্গে গেছে। এটি দ্রুত সময়ে রক্ষা না করলে বহু পরিবার নদীর সাথে মিশে যাবে মনে করছে এলাকাবাসী।

স্থানীয় যুবক ইমরান তাওহীদ রানা জানিয়েছেন, ঈদগাঁও নদীর সাথে বিলীন হয়ে গেছে অসংখ্য জমি জমা। ক্ষতি হয়েছে ফসলের। আতংকে স্থানীয়রা।

মনোয়ারা নামের এক গৃহিনী জানান, দীর্ঘ সময় ধরে খালটি ভেঙ্গে চলেছে। ঝুঁকি নিয়ে দিবারাত্রী পথ চলছে স্থানীয়দেরা।

শফি, মিজানসহ অনেকের ভাষ্য-ভোমরিয়াঘোনা এলাকার ভাঙ্গা নিয়ে তারা নিদারুন কষ্ট পাচ্ছে। যাতাযাত করছেন ঝুঁকি নিয়ে।

ইউপি সদস্য আবদুল হাকিম মুঠোফোন রিসিভ না করায় বক্তব্য নেয়া সম্ভব হয়নি।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •