সিবিএন ডেস্ক:
চট্টগ্রাম কলেজ ছাত্রলীগের দুই গ্রুপের সংঘর্ষে সাধারণ চার শিক্ষার্থীসহ মোট ৭ জন আহত হওয়ার ঘটনায় মামলার আসামি হলেন চকবাজারের বিতর্কিত যুবলীগ নেতা নুর মোস্তাফা টিনু। যদিও ঘটনাস্থলে টিনু ছিলেন না বলে দাবি তার অনুাসারিদের। এরপরও টিনুকে আসামি করে মামলা নেয় পুলিশ।

বুধবার দিবাগত রাত সাড়ে ১২টায় টিনুসহ ১২ জনের নাম উল্লেখ করে এ মামলা দায়ের করেন সভাপতি মাহমুদুল করিমের অনুসারি চট্টগ্রাম কলেজের ইংরেজী বিভাগের শিক্ষার্থী আব্দুল্লাহ আল সায়মুন।

এ মামলায় ঘটনাস্থল থেকে আটক মহিউদ্দীন সৌরভ ও সিরাজুল ইসলাম সৌরভ নামে দুজনকে গ্রেপ্তার দেখিয়ে বৃহস্পতিবার আদালতে পাঠিয়েছে পুলিশ।

এর আগে বুধবার (১৬ জুন) দুপুর সাড়ে ১২ টার দিকে দিকে চকবাজার থানার কেয়ারি শপিং মলের সামনে আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে চট্টগ্রাম কলেজ ছাত্রলীগের সভাপতি ও সম্পাদক গ্রুপের মধ্যে সংঘর্ষ হয়। এতে সাধারণ চার শিক্ষার্থীসহ মোট ৭ জন আহত হয়। তিনজনকে হাসপাতালে ২৫ ও ২০ নম্বর ওয়ার্ডে ভর্তি করা হয়।

করিমের অনুসারি আব্দুল্লাহ আল সায়মুন বাদি হয়ে একটি মামলা করেন। এতে চকবাজারের বিতর্কিত যুবলীগ নেতা টিনু ও কলেজ ছাত্রলীগের সেক্রেটারি সুভাষ মল্লিকের ১১ অনুসারিকে আসামি করা হয়। মামলার আসামিরা হলেন— আমির উদ্দিন, জিয়া উদ্দিন আরমান, সৌরভ উদ্দিন বাপ্পা, সিরাজুল ইসলাম তোরাব, মো. মহিউদ্দিন সৌরভ, মনির উদ্দিন রেহান, আবুল কালাম, আনসার উদ্দিন, মন্টি চৌধুরী, ইমন হোসেন এবং মো. আব্দুল্লাহ।

চকবাজার থানার ওসি মোহাম্মদ আলমগীর বলেন, ‘হামলার সঙ্গে জড়িতদের চিহ্নিত করে নুর মোস্তাফা টিনুসহ ১২ জনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করা হয়েছে। এরমধ্যে দুজনকে গ্রেপ্তার করে আদালতে পাঠানো হয়েছে। অন্য আসামিদের গ্রেপ্তারে অভিযান অব্যাহত রয়েছে।’ -সিভয়েস

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •