সিবিএন ডেস্ক:
এমিরেটস এয়ারলাইন, ডানাটাসহ অন্যান্য প্রতিষ্ঠানের সমন্বয়ে গঠিত এমিরেটস গ্রুপ ২০২০-২১ অর্থবছরের প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে। ৩০ বছরেরও বেশি সময় ধরে ব্যবসা করলেও এই প্রথমবারের মতো প্রতিষ্ঠানটি আর্থিক ক্ষতির শিকার হয়েছে। গত অর্থবছরে তাদের লোকসানের পরিমাণ ৬ বিলিয়ন মার্কিন ডলার। মঙ্গলবার ১৫ জুন) এ সংক্রান্ত প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে এমিরেটস।

এমিরেটস জানায়, গত ৩১ মার্চ ২০২১ তারিখে সমাপ্ত অর্থবছরে গ্রুপের ক্ষতির পরিমাণ ৬ বিলিয়ন মার্কিন ডলার। গত বছর অবশ্য গ্রুপটি ৪৫৬ মিলিয়ন ডলার মুনাফা অর্জন করতে সক্ষম হয়েছিল। প্রতিষ্ঠানের রাজস্ব আয় ৬৬ শতাংশ হ্রাস পেয়ে ৯.৭ বিলিয়ন ডলারে নেমে এসেছে। কোভিড-১৯ অতিমারিতে পুরোবছর ধরে ফ্লাইট চলাচল ও ভ্রমণের ওপর নিষেধাজ্ঞার ফলে রাজস্ব আয়ের ব্যাপক অবনতিকে এর মূল কারণ হিসেবে উল্লেখ করা হয়েছে প্রতিবেদনে।

গ্রুপের অন্যতম সদস্য এমিরেটস এয়ারলাইনের ক্ষতির পরিমাণ ৫.৫ বিলিয়ন মার্কিন ডলার। গতবছর এয়ারলাইনটির মুনাফা ছিল ২৮৮ মিলিয়ন ডলার। এ সময়ে এয়ারলাইনটির যাত্রী ও কার্গো পরিবহন ৫৮ শতাংশ হ্রাস পেয়েছে। করোনা অতিমারিতে ফ্লাইট চলাচল ও ভ্রমণে আরোপিত নিষেধাজ্ঞা ছাড়াও ইউএই সরকার গত বছরের ২৫ মার্চ থেকে প্রায় ৮ সপ্তাহের জন্য বাণিজ্যিক উদ্দেশ্যে যাত্রী পরিবহন বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেছিল। এসব কিছুই এয়ারলাইনটির রাজস্ব আয়ে ব্যাপক প্রভাব ফেলে। রাজস্ব আয় পূর্ববর্তী বছরের তুলনায় ৬৬ শতাংশ হ্রাস পেয়ে ৮.৪ বিলিয়ন ডলারে নেমে আসে।

এমিরেটসের প্রতিবেদনে আরও বলা হয়, এ সময়ে অবশ্য এয়ারলাইনটির কার্গো পরিবহন শাখা এমিরেটস স্কাইকার্গোর রাজস্ব আয় পূর্ববর্তী বছরের চেয়ে ৫৩ শতাংশ বেড়ে ৪.৭ বিলিয়ন ডলারে উন্নীত হয়। অতিমারিকালে বিশ্ববাজারে আকাশপথে মালামাল পরিবহনে বর্ধিত চাহিদা কাজে লাগিয়ে এমিরেটস স্কাইকার্গো এ রাজস্ব আয়ে সমর্থ্য হয়।

গ্রুপের অপর প্রতিষ্ঠান ডানাটা প্রথমবারের মতো ক্ষতির শিকার হয়েছে এবং এর পরিমাণ ৪৯৬ মিলিয়ন ডলার এবং রাজস্ব আয় ৬২ শতাংশ হ্রাস পেয়ে ১.৫ বিলিয়ন ডলারে দাঁড়ায়।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •