মুহাম্মদ আবু সিদ্দিক ওসমানী :

কক্সবাজার জেলা আইনজীবী সমিতির ভিজিলেন্স টিম এক অভিযান চালিয়ে আদালত অঙ্গন থেকে সোহেল বড়ুয়া নামক একজন টাউট ধরে কক্সবাজার মডেল থানায় সোপর্দ করেছে। বুধবার ৯ জুন সকাল ১১ টার দিকে কক্সবাজার জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের জেনারেল রেজিস্ট্রার অফিসারের কার্যালয়ের সামনে প্রতারণা করার সময় তাকে হাতেনাতে ধরা হয়।

কক্সবাজার জেলা আইনজীবী সমিতির আপ্যায়ন ও সাংস্কৃতিক সম্পাদক এডভোকেট নুরুর রশিদ সিবিএন-কে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

তিনি আরো জানান, ধৃত প্রতারক সোহেল বড়ুয়া নিজেকে কখনো আইনজীবী, কখনো আইনজীবী সহকারী, কখনো লিগ্যাল এইডের প্যানেল আইনজীবী হিসাবে বিভিন্নভাবে পরিচয় দিয়ে বিচারপ্রার্থীদের প্রতারিত করতো। এডভোকেট নুরুর রশিদ আরো জানান, ধৃত সোহেল নিজেকে কখনো বৌদ্ধ ধর্মালম্বী, কখনো মুসলিম ধর্মালম্বী হিসাবে যখন যেখানে যেভাবে প্রয়োজন সেভাবে পরিচয় দিতে দিতো। মূলত সে আইনঙ্গনের কিছুই নয়। তার কাছ থেকে একাধিক ভুঁয়া ভিজিটিং কার্ড উদ্ধার করা হয়েছে। এছাড়া, স্টাম্প দিয়ে প্রতারণা করে বিচারপ্রার্থীদের কাছ থেকে টাকা আদায়ের কিছু স্টাম্পও তার কাছ থেকে উদ্ধার করা হয়েছে। টাউট সোহেল বড়ুয়ার কাছে প্রতারণার শিকার হওয়া অনেক বিচারপ্রার্থী আইনজীবী সমিতিতে বিচার চেয়ে তার বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করেছেন।

ধৃত সোহেল বড়ুয়া উখিয়ার রত্নাপালং ইউনিয়নের ৪ নম্বর ওয়ার্ডের ভালুকিয়া পালং গ্রামের আনন্দ বড়ুয়া ও মিনা বড়ুয়ার পুত্র। সোহেল বড়ুয়ার বিরুদ্ধে প্রতারণা, জালিয়াতির সুনির্দিষ্ট অভিযোগ এনে কক্সবাজার আইনজীবী সমিতির সহ সাধারণ সম্পাদক (সাধারণ) এডভোকেট এরশাদ উল্লাহ বাদী হয়ে কক্সবাজার সদর মডেল থানায় একটি এজাহার দায়ের এবং প্রতারক সোহেল বড়ুয়াকে সদর মডেল থানা পুলিশের কাছে সোপর্দ করেছেন।

এ বিষয়ে কক্সবাজার আইনজীবী সমিতির সভাপতি এডভোকেট আবুল কালাম ছিদ্দিকী বলেন, বিচারপার্থীদের সেবা দিতে সমিতি নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে। তারই অংশ হিসাবে ভিজেলেন্স টিম টাউট বাটপার নির্মুলে কাজ করছে। আইনজীবী সমিতির সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট জিয়া উদ্দিন আহমেদ বলেন, আদালত অঙ্গন থেকে টাউট বাটপার নির্মুলে সমিতির চলমান অভিযান অব্যাহত রাখা হবে। এ বিষয়ে তিনি সকলের সহযোগিতা কামনা করেন।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •