ফিরে দেখ
প্রিয়…

কেমন আছো আর জানতে চাইবো না,জানতে চাওয়ার অধিকারও হারিয়ে ফেলেছি। অনেকদিন পর আজ আবার লিখতে বসেছি তোমায় নিয়ে,,,,

এটি হয়ত তোমাকে নিয়ে লেখা আমার শেষ চিঠি। মনে পড়ে কী – কত কথা,কত স্মৃতি, কত স্বপ্ন ছিল আমাদের। কিন্তু ভাগ্যের কী নির্মম পরিহাস সবকিছুই এখন অতীত। প্রায় ৪ বছর হতে চললো তোমার সাথে আমার কথা হয় না,দেখা হয় না,বলতে গেলেই কোন যোগাযোগই নেই। অথচ একটা সময় ছিল “এই তুমি” যে আমাকে ছাড়া থাকতে পারতে না…! হাজার ঝগড়া হলেও তুমি আমাকে মানিয়ে নিতে, আমার রাগ-অভিমান সবটাই সহ্য করতে। আমার চেয়েও তুমি আমাকে ভালোবাসতে। আমার প্রতি তোমার কেয়ারিং, ভালোবাসার অনুভূতি ছিল অনন্য । এসব মনে পড়লেই কষ্টের মাত্রাটা বেড়েই যায়। চোখের পাতা গুলো ভিজে উঠে নীরবে। কতোবার ভেবেছি এসব আর মনে করবো না, তোমায় ভেবে কষ্ট পাব না। কী অদ্ভুত! কোন স্মৃতিই মুছতে পারি না। মাঝেমাঝে বিমর্ষ হয়ে উঠি সেদিন কী ঘটেছিল জীবনে। কেন এতোবড় নির্বোধ সিদ্ধান্ত নিলে। হাফিয়ে উঠি,,। রাতের আঁধারে বারান্দায় নীরবে দাঁড়িয়ে অন্ধকার দেখে, তোমার কথা ভাবি আর অনুভব করি! কী ভুল ছিল জীবনে, বলে- কয়ে যেতে পারতে না ; আমি কী কখনও বাধা হয়েছি তোমার জীবনে!

আমি কিন্তু ঠিকই টের পেয়েছিলাম, সুখই কাল হয়ে দাঁড়াল তোমার জীবনে। তোমাকে অনেক বুঝিয়েছিলাম, তুমি বুঝ নি! তোমাকে তোমার ভাইরা লুটেপুটে খেয়ে নিঃস্ব করে ছাড়বে বলেছিলাম, ঠিকই ছেড়েছে। তোমার মেরুদণ্ড ভেঙে দেবে বলেছিলাম, ঠিকই দিয়েছে।
এবার বুঝ, কে ছিল জীবনের সেরা গাইডার,কে ভালো চাইত,কে মন্দ চাইত! এখন বুঝেছ ঠিকই, বড্ড দেরিতে বুঝেছ। তোমার কান্নায় আকাশ- বাতাস ভারী ; কি বা করার আছে আমার। তারা শুধু তোমাকে নিঃস্ব করে ছাড়ে নি,ধ্বংস করেছে একটা সুন্দর পরিবার।কেড়ে নিয়েছে তোমার ২ শিশুর ভবিষ্যৎ।

এখন তোমার কষ্ট দেখে আমারও খুব কষ্ট হয়,মায়া হয়।
তবে করার কিছুই নেই। তোমার ফ্যামিলির ঈর্ষা দেখে আমি পরাজিত সৈনিক! মৃত লাশের মত জীবন্ত লাশ।
ক্ষতি করবে জানতাম,তবে এভাবেই ধ্বংস করবে কখনও ভাবি নি!

যে তুমি ছাড়া ১ টা দিন চলত না,সেই তুমি ছাড়া একা পথ চলা আজ ৪ বছর। কতই কঠিন পথ পাড়ি দিয়েছি সেটা আমিই জানি। তোমাকে ফেরাতে পারি নি,,,,তবে আজ ফিরে এসেছ সবকিছু ধ্বংস করে। তোমার কষ্টগুলো এখন আমাকে কুরে কুরে খাচ্ছে। তবে করার কিছুই নাই! তবুও তুমি বেঁচে আছ হৃদয়ের ক্যানভাসে,থাকবে অনন্তকাল। আমার কান্না হয়তো কেউ দেখবে না, আমার হৃদয় ভাঙ্গার শব্দ কেউ শুনে নাই, শুনবেও না।

আমার জীবনে তুমি দীপ হয়ে এসেছিলে আর দীপালোকিত করে রেখেছিলে আমার জীবন।আমি কখনও ভাবি নি আমার স্বপ্নগুলো অজানা ঝড়ে ঝরে যাবে, নিভে যাবে আমার দীপ। অন্ধকারময় হয়ে যাবে আমার জীবন। আমার স্বপ্নগুলো আর কখনও আলোর মুখ দেখবে না।

তবুও আমাকে বেঁচে থাকতে হবে অনন্তকাল। আমি আশা করছিলাম, তুমি সুন্দর জীবন উপভোগ করতে পারবে কিন্তু পার নি। এভাবে ধ্বংস হবে কখনও ভাবি নি। আমার শত কষ্ট হলেও তোমার ভালো থাকাটাই ছিল আমার সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ ! আমি বিশ্বাস করি- ভালোবাসা মানে ভালো চাওয়া,আমিও তোমার ভালো চেয়েছিলাম। কিন্তু হল না। স্বপ্ন – স্বপ্নই রয়ে গেল। যে তুমি আমাকে স্বপ্ন দেখা শিখিয়েছিলে,জীবনটাকে উপভোগ করতে শিখিয়েছিলে – সে তুমি আজ পাশে নাই। সকল স্বপ্ন ভেঙে দিয়ে চলে গেলে, স্বার্থপরের মতো ভুল পথে। আমায় মাঝনদীতে ছেড়ে দিয়ে। বড্ড একা করে।

আমি জানি অপেক্ষা কষ্টকর। তবুও চেয়েছিলাম শুদ্ধ হবে,সরে আসবে,ভালো হবে,স্বপ্ন দেখবে -সুন্দর জীবনের। কোনটাই পারলে না। এতোটাই ভুল কেমনে করলে! উত্তর মিলাতে পারি না।

অবশেষে উত্তর পেলাম- জীবন বড় রহস্যময়, নাটকের চেয়েও নাটকীয়।
আমার ৪ বছরের প্রতীক্ষা ছিল ভুল।
রাতের আকাশ দেখে যাকে উজ্জ্বল তারা ভেবেছি তা আসলেই ছিল ধ্রুব তারা।
ভুল সবই ভুল….দূর থেকে ভালোবেসেই যাব।
ভালো থেক,ভালো থেক।

ইতি….
অজানা।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •