বার্তা পরিবেশক:
রামু উপজেলার দক্ষিণ মিঠাছড়ি এলাকায় আদালতের ১৪৪ ধারা অমান্য করে বিরোধপূর্ণ জমিতে বসতবাড়ি নির্মাণ করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। এতে অসহায় হয়ে পড়েছে ভুক্তভোগী। অভিযুক্তরা সবল হওয়ায় কোনোভাবেই তাদের ঠেকাতে পারছে না দক্ষিণ মিঠাছড়ি ছরারকুল এলাকার মৃত নজির আহমদের পুত্র সুলতান আহমদ। তাই সহযোগিতা পেতে সর্বশেষ কক্সবাজারের পুলিশ সুপারের কাছে লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন তিনি।
অভিযোগে বলা হয়েছে, ভুক্তভোগী সুলতান আহমদের পৈত্রিক অংশীয় জমি জোর করে দখল করে মোহাম্মদ উল্লাহ। সর্বশেষ ওই বিরোধপূর্ণ জমিতে বাড়ি নির্মাণ শুরু করা হয়। মূলত গায়ের জোরে অবৈধভাবে জমিটি দখল করা হয়। বিচার না মানায় আদালতের শরণাপন্ন হন ভুক্তভোগী সুলতান আহমদ। আদালত তার আবেদনের প্রেক্ষিতে ওই জমির ওপর ১৪৪ ধারা জারি করেন এবং তদন্ত করে প্রতিবেদন দেয়ার জন্য রামু উপজেলা এসিল্যান্ডকে নির্দেশ দেন। কিন্তু ১৪৪ ধারা ভঙ্গ তদন্তের আগেই গায়ের জোরে ওই জমিতে ঘর নির্মাণের চেষ্টা করে মোহাম্মদ উল্লাহ। তার অংশ হিসেবে গত ১৫ মে সশস্ত্র লোকজন নিয়ে ঘর নির্মাণ শুরু করে মোহাম্মদ উল্লাহ। ১৪৪ ধারা ভঙ্গ করে জোর করে ঘর নির্মাণের বিষয়ে আদালতে ১৮৮ ধারা দরখাস্ত পেশ করেছেন ভুক্তভোগী সুলতান আহামদ। দরখাস্তটি শুনানীর অপেক্ষা রয়েছে। তারপরও ঘর নির্মাণ অব্যাহত রেখেছে অভিযুক্ত মোহম্মদ উল্লাহ।
এদিকে ১৪৪ ধারা ভঙ্গ করে নির্মাণ কাজ শুরু করার বিষয়টি পুলিশকে অবগত করা হলে রামু থানার উপ পরিদর্শক মঞ্জুর নেতৃত্বে একাধিকবার ঘটনাস্থলে যান পুলিশ।
উপ পরিদর্শক মঞ্জু বলেন, খবর পেয়ে কয়েকবার ঘটনাস্থলে তাৎক্ষণিক ছুটে গিয়েছি। তবে অভিযুক্ত কাউকে ঘটনাস্থলে পাওয়া যায়নি। তবে বিষয়টি গুরুত্বের সাথে দেখা হচ্ছে।
এ ব্যাপারে ভুক্তভোগী সুলতান আহামদ পুলিশ সুপারের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •