সিবিএন ডেস্ক
ইয়েমেনের মারিব শহরে ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র হামলায় পাঁচ বছর বয়সী এক কন্যা শিশুসহ অন্তত ১৭ জনের প্রাণহানি ঘটেছে। এ হামলার জন্য ইরান সমর্থিত হুতি বিদ্রোহীদের দায়ী করেছে ইয়েমেন সরকার। খবর আল জাজিরার।

প্রাদেশিক গভর্নরের প্রেস সেক্রেটারি আলি আল-গুলিসি জানিয়েছেন, রাওধা এলাকায় একটি পেট্রল স্টেশনে মিসাইলটি আঘাত হানে।

তথ্যমন্ত্রী মোয়াম্মার আল-এরিয়ানি বলেছেন, হামলায় আরও অন্তত পাঁচজন আহত হয়েছে। আহতদের সবাই বেসামরিক ব্যক্তি।
ভয়াবহ এ ঘটনায় জাতিসংঘ ও যুক্তরাষ্ট্রের পক্ষ থেকে নিন্দা দাবি করেছেন এরিয়ানি। এটিকে যুদ্ধাপরাধ বলে দাবি করেন তিনি। যদিও হুতি বিদ্রোহীদের পক্ষ থেকে তাৎক্ষণিকভাবে কোনো মন্তব্য করা হয়নি।
রাষ্ট্রীয় মালিকানাধীন সংবাদ সংস্থা জানিয়েছে, ক্ষেপণাস্ত্র হামলার কিছুক্ষণ পরেই হুতিরা বিস্ফোরকবাহী ড্রোন দিয়ে আরেকটি হামলা চালায়। ক্ষেপণাস্ত্র হামলায় হতাহতদের উদ্ধারে যাওয়ার সময় দুটি অ্যাম্বুলেন্স ওই ড্রোন হামলায় ধ্বংসপ্রাপ্ত হয়েছে।

ইয়েমেনে ২০১৪ সাল থেকে গৃহযুদ্ধ চলছে। সে সময় ইরান সমর্থিত হুতিরা ইয়েমেনের উত্তরাঞ্চলের অধিকাংশ অঞ্চলে ছড়িয়ে পড়ে ও রাজধানী সানা দখলে নেয়। ফলে দেশটির আন্তর্জাতিক স্বীকৃত প্রাপ্ত সরকার ক্ষমতা থেকে বিতাড়িত হয়।
এর পরের বছর ইয়েমেন সরকারের সমর্থনে সৌদি আরবের নেতৃত্বে সামরিক জোট হুতিদের বিরুদ্ধে যুদ্ধ শুরু করে। এই যুদ্ধে ইয়েমেনে এক লাখ ৩০ হাজারেরও বেশি মানুষ নিহত হয়েছে। যুদ্ধবিধ্বস্ত দেশটিতে তৈরি হয়েছে বিশ্বের অন্যতম গুরুতর মানবিক সংকট।

 

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •