জম্মু-কাশ্মীরে পালিত হয়েছে নিষ্প্রদীপ কর্মসূচী

সিবিএন ডেস্ক
কাশ্মীরে অবস্থিত হিন্দুদের তীর্থ স্থান অমরনাথ মন্দিরে বার্ষিক তীর্থযাত্রা অনুষ্ঠানের ব্যাপারে দৃঢ়তা প্রকাশ করেছেন ভারতের সেনা প্রধান জেনারেল মনোজ মুকুন্দ নরভানে । তীর্থযাত্রার প্রস্তুতি পর্যবেক্ষন করতে শ্রীনগরে এসে সেনা প্রধান একথা জানান।

কোভিড মহামারিতে ভয়াবহভাবে সংক্রমিত ভারতে ধর্মীয় এবং রজনৈতিক সমাবেশ বন্ধ রাখার ব্যাপারে বিশেষজ্ঞদের পরামর্শ এবং আন্তর্জাতিক মহলের উদ্বেগ উৎকণ্ঠা উপেক্ষা করে দু’মাস ব্যাপী তীর্থ যাত্রা আয়জনের ফলে সংক্রমন আরো ব্যাপকভাবে ছড়িয়ে পড়ার আশংকা প্রকাশ করছে বিভিন্ন মহল।

কয়েক মাস আগে হিন্দুদের কুম্ভমেলার গণস্নানে ব্যাপক জনসমাবেশের ফলে ভারতে করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ে লক্ষ মানুষের প্রানহানি ঘটেছে।

আগামি ২৮ শুরু হবে অমরনাথ তীর্থযাত্রা। সমাপ্ত হবে ২২ আগস্ট। শ্রীনগর থেকে ১৪১ কিলোমিটার দূরে প্রায় চার হাজার মিটার উচ্চতায় অবস্থিথ অমরনাথে গুহামন্দিরে পৌঁছানোএবং ফেরত আসা মিলিয়ে টানা ৫৬ দিন ধরে চলবে দীর্ঘ এ পদযাত্রা। এ সময় অসুস্থ হয়ে প্রতিবছরই অনেক পুণার্থী প্রান হারায়।

এদিকে, করোনা সংক্রমন ঠেকানর কথা বলে জারী করা নানা বিধি-নিষেধের কারনে শ্রীনগরের ঐতিহাসিক জামিয়া মসজিদ, হযরতবাল দরগাহ সহ বিভিন্ন মসজিদ, দরগাহ এবং ইমামবারগাতে গতকাল শুক্রবার জুম্মার নামাজ অনুষ্ঠিত হয়নি। এসব স্থানে আগে থেকেই সেনা মোতায়েন করে রাখা হয়েছে।

নিষ্প্রদীপ কর্মসুচী পালিত
শুক্রবার রাতে জম্মু-কাশ্মীর জুড়ে পালিত হয়েছে একঘন্টার নিষ্প্রদীপ কর্মসুচী। সর্বদলীয় হুররিয়াত কনফারেন্স সহ বিভিন্ন নাগরিক ও ব্যাবসায়ী সংগঠনের আহবানে রাত আটটা থেকে ন’টা পর্যন্ত প্রতিটি ঘরের আলো নিভিয়ে অন্ধকার সৃষ্টি করে এ অভিনব প্রতিবাদ কর্মসুচী পালন করেছে কাশ্মিরী জনগন।

জম্মু-কাশ্মীরে ভারতীয় সেনাদের অব্যাহত নির্যাতন, নিপীড়ন ও হত্যাকান্ডের প্রতিবাদে এবং কাশ্মীরি জনগনের আত্মনিয়ন্ত্রনাধিকার প্রতিষ্ঠার দাবিতে এ কর্মসূচী পালিত হয়েছে।

একই দাবিতে ঝিলাম উপত্যকার জনগন শুক্রবার রাস্তায় নেমে প্রতিবাদ বিক্ষোভ করেছে। সর্বস্তরের মানুষ এ কর্মসূচিতে অংশ নিয়ে ভারতবিরোধী স্লোগান লেখা ব্যানার ও প্লাকার্ড বহন করে এবং শ্লোগান দেয় ।

সমাবেশে বক্তাগন কাশ্মীর থেকে ভারতীয় সেনা প্রত্যাহার এবং কাশ্মীরি জনগনের আকাংখা অনুযায়ী শান্তিপুর্ণ সমাধানের জন্য জাতিসংঘ সহ আন্তর্জাতিক সংস্থাগুলির প্রতি আহবান জানায়।

নির্মমতার শিকার কাশ্মীরের শিশুরা
বিশ্বব্যাপী যুদ্ধ-আগ্রাসনের শিকার নিরিহ শিশুদের রক্ষায় আন্তর্জাতিক দিবস পালিত হয়েছে ৪ জুন। এ উপলক্ষ্যে কাশ্মীর মিডিয়া সার্ভিস তাদের এক গবেষনা প্রবন্ধে জানিয়েছে, গত ৩২ বছরে জম্মু-কাশ্মীরে ৯০৪ টি নিরপরাধ শিশু ভারতীয় সৈন্যের হাতে খুন হয়েছে। ১৯৮৯ থেকে আজতক ১০৭,৮২১ জন শিশুকে পিতৃহীন বানানো হয়েছে । ২০ বছরের কম বয়েসী কয়েক শ’ কিশোর- কিশোরীকে শহীদ করা হয়েছে। রাস্তায় মিছিলে বা সমাবেশ বানচাল করতে ভারতীয় বাহিনীর নিক্ষিপ্ত ধাতব পিলেট বা ছড়রা গুলিতে আহত হয়েছে অসংখ্য শিশু-কিশোর। পিলেটে আহত হয়ে অনেকের চোখ নষ্ট হয়ে অন্ধ হয়ে গেছে । কেবল গত এক মাসে ভারতীয় সেনাদের অভিযানে নিহত হয়েছে ১৪ জন কাশ্মীরি।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •