পেকুয়া প্রতিনিধি :

কক্সবাজারের পেকুয়ায় দীর্ঘ ৩০ বছরের ভোগদখলীয় বসতভিটার কিছু অংশ জবর দখল করে টংঘর তৈরি করার পর বিভিন্ন অপপ্রচার চালানোর অভিযোগ উঠেছে সেলিম উদ্দিন নামে এক প্রভাবশালীর বিরুদ্ধে। এমন মিথ্যা অপপ্রচারে স্থানীয়রা ক্ষোভও করার পাশাপাশি ভুক্তভোগীর প্রতি প্রশাসনের সহযোগিতা কামনা করেছেন।

এ ঘটনায় বেশ কয়েকদিন ধরে দুই পক্ষে উত্তেজনা বিরাজ করলে বৃহস্পতিবার বিকেলে ভুক্তভোগী জাকের হোছাইনসহ স্থানীয়রা প্রশাসনের সহযোগিতা কামনা করে বিবৃতি দিয়েছেন।

পেকুয়া সদর ইউনিয়নের সাবেকগুলধি এলাকার মৃত আহমদ মিয়ার ছেলে সেলিম উদ্দিনের নেতৃত্বে একদল দুর্বৃত্ত দীর্ঘ ৩০ বছর ধরে ভোগ-দখলীয় জায়গায় জবর দখল করে টংঘর তৈরি করার অভিযোগ এনে উপজেলার শিলখালী ইউনিয়নের চেপ্টামোড়া এলাকার মৃত ফতেহ আলীর ছেলে জাকের হোছাইন ও সাপের ঘারা এলাকার মৃত করিমদাদের ছেলে রশিদ আহমদ বলেন, সাপেরঘারা এলাকায় আমরা দুইজন বেশ কিছু জমি ক্রয় করে বসতভিটাসহ ফলজ ও বনজ বাগান করে জীবিকা নির্বাহ করে আসছি। ইতোমধ্যে পেকুয়া সদর ইউনিয়নের সাবেকগুলধি এলাকার মৃত আহমদ মিয়ার ছেলে সেলিম উদ্দিন ভাড়াটি সন্ত্রাসী এনে বসতভিটার কিছু জায়গা জবর দখল করে একটি টংঘর তৈরি করে। এরপর সেলিম উদ্দিন জায়গা তার দাবী করে শিলখালী ইউনিয়ন পরিষদের গ্রাম আদালতে বিচার দায়ের করলে জায়গা আমাদের বলে গ্রাম আদালত তথ্য-প্রমাণের ভিত্তিতে রায় প্রচার করেন। সর্বশেষ ওই বিচারে তিনি জমি দাবী করবে না বলে অঙ্গিকারনামা দিয়েও বারবার কাল্পনিক নাটক সৃষ্টি করে অপ-প্রচার চালাচ্ছেন। এমনকি গতকালকে তারা বেশ কয়েকটি অনলাইনে আমাদেরকে জবর দখলকারী ও সন্ত্রাসী বানিয়ে মিথ্যা সংবাদ প্রকাশ করে মানহানী করে চলেছে। অথচ সেলিম প্রকৃত সন্ত্রাসী ও জবর দখলকারী। ওই টংঘরে কিছু মহিলাকে অবস্থান করিয়ে ওখানে অস্ত্র মজুদ করেছে। তাদের ভয়ে আমরা সব সময় আতংকের মধ্যে আছি। বিষয়টি সুরহা করতে স্থানীয় জনপ্রতিনিধি ও প্রশাসনের সহযোগিতা কামনা করছি।

স্থানীয় জোবাইদা, ফজল করিম ও বেলাল বলেন, দীর্ঘদিন ধরে জাকের হোসেন ও রশিদ আহমদ সাপেরঘারায় বেশ কিছু জমি ক্রয় করে বসতভিটা করার পর বাগান করে আসছেন। গত কিছুদিন আগে সেলিম নামে এক ব্যক্তি সন্ত্রাসী কায়দায় এসে কিছু জমি জবর দখল করে টংঘর তৈরি করে। এ জমির প্রকৃত মালিক জাকের হোসেন ও রশিদ আহমদ। সেলিম ভয়ংকর লোক। যার কারণে প্রতিবাদ করার সাহস কেউ পাচ্ছেনা।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •